প্রধান মেনু খুলুন

বিজয় হাজারে

ভারতীয় ক্রিকেটার

বিজয় স্যামুয়েল হাজারে (এই শব্দ সম্পর্কেউচ্চারণ ; জন্ম: ১১ মার্চ, ১৯১৫ - মৃত্যু: ১৮ ডিসেম্বর, ২০০৪) মহারাষ্ট্র রাজ্যে জন্মগ্রহণকারী বিখ্যাত ভারতীয় ক্রিকেটার ছিলেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যানের দায়িত্ব পালন করতেন। পাশাপাশি ডানহাতে মিডিয়াম পেস বোলিংয়েও পারদর্শিতা দেখিয়েছেন তিনি।

বিজয় হাজারে
বিজয় হাজারে.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামবিজয় স্যামুয়েল হাজারে
জন্ম(১৯১৫-০৩-১১)১১ মার্চ ১৯১৫
সাংলি, বোম্বে প্রেসিডেন্সি, ব্রিটিশ ভারত
মৃত্যু১৮ ডিসেম্বর ২০০৪(2004-12-18) (বয়স ৮৯)
বরোদা, গুজরাট, ভারত
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম পেস
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ২৮)
২২ জুন ১৯৪৬ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট২৮ মার্চ ১৯৫৩ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৩৪-১৯৪২মহারাষ্ট্র
১৯৩৫-১৯৩৯মধ্য ভারত
১৯৪১-১৯৬১বরোদা
১৯৫৭-১৯৫৮হোলকার
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৩০ ২৩৮
রানের সংখ্যা ২,১৯২ ১৮,৭৪০
ব্যাটিং গড় ৪৭.৬৫ ৫৮.৩৮
১০০/৫০ ৭/৯ ৬০/৭৩
সর্বোচ্চ রান ১৬৪* ৩১৬*
বল করেছে ২,৮৪০ ৩৮,৪৪৭
উইকেট ২০ ৫৯৫
বোলিং গড় ৬১.০০ ২৪.৬১
ইনিংসে ৫ উইকেট ২৭
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৪/২৯ ৮/৯০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১১/– ১৬৬/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৮ অক্টোবর ২০১৬

ভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য হিসেবে ১৪ টেস্টে অধিনায়কত্ব করেন। ভারতের টেস্ট মর্যাদাপ্রাপ্তির প্রায় বিশ বছর পর ২৫তম টেস্টে দলের প্রথম বিজয়ে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন বিজয় হাজারে

টেস্ট ক্রিকেটসম্পাদনা

শিক্ষক পিতার আট সন্তানের অন্যতম হাজারে তৎকালীন বোম্বে প্রেসিডেন্সির সাংলি এলাকায় ১৯১৫ সালে জন্মগ্রহণ করেন।

হাজারের টেস্ট রেকর্ড বেশ সমৃদ্ধ ছিল। ৩০ টেস্টে ৪৭.৬৫ গড়ে ৭ সেঞ্চুরি সহযোগে ২,১৯২ রান করেন। টেস্টে ২০ উইকেট লাভ করেছেন। তন্মধ্যে ডোনাল্ড ব্র্যাডম্যান তিনবার তার শিকারে পরিণত হন। ১৯৪৭-৪৮ মৌসুমে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অ্যাডিলেডে ১১৬ ও ১৪৫ রান সংগ্রহ করেছিলেন।

১৯৫১-৫২ মৌসুমে মাদ্রাজে সফরকারী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ভারত দল ইনিংস ও ৮ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় পায় যা তার অধিনায়কত্বে একমাত্র জয়। ঐদিনই রাজা ষষ্ঠ জর্জ মৃত্যুবরণ করেছিলেন।

বৈশ্বিক দৃষ্টিকোণে তিনি সহজাত অধিনায়কের অধিকারী ছিলেন না। ফলশ্রুতিতে তার ব্যাটিং বেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিজয় মার্চেন্টের মতে, 'অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করায় হাজারে ভারতের সেরা ব্যাটসম্যান হতে পারেননি'।

অর্জনসমূহসম্পাদনা

প্রথম ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে টেস্টের উভয় ইনিংসে সেঞ্চুরি করেন। অ্যাডিলেড ওভালের ঐ টেস্টে ১১৬ ও ১৪৫ রান তুললেও তার দল পরাজয়বরণ করেছিল।[১] অন্যদিকে, ১৯৫১-৫২ মৌসুমে সফরকারী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে কানপুরে অনুষ্ঠিত টেস্টের উভয় ইনিংসে জোড়া শূন্য লাভ করেন তিনি। এছাড়াও প্রথম ভারতীয় হিসেবে পরপর তিন টেস্টে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন তিনি।

অবসরসম্পাদনা

ক্রিকেট থেকে বিদায় নেবার অল্প কিছুদিন পর ভারতের টেস্ট দল নির্বাচক হন।

তার নামানুসারে ভারতের আঞ্চলিক ক্রিকেট প্রতিযোগিতা বিজয় হাজারে ট্রফি নিয়মিতভাবে অনুষ্ঠিত হয়। জসু প্যাটেলের সাথে তাকেও যৌথভাবে পদ্মশ্রী পদকে ভূষিত করা হয়।[২]

দীর্ঘদিন ক্যান্সারজনিত রোগে আক্রান্ত থাকার পর ডিসেম্বর, ২০০৪ সালে বিজয় হাজারের দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "4th Test: Australia v India at Adelaide, Jan 23–28, 1948 | Cricket Scorecard"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জানুয়ারি ২০১৪ 
  2. ""Padma Awards Directory (1954–2014)" (PDF). Ministry of Home Affairs (India). 21 May 2014. pp. 11–37. Retrieved 22 March 2016." (PDF)। ১৫ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১৬ 

আরও পড়ুনসম্পাদনা

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা