বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়া

একুশে পদকপ্রাপ্ত শিক্ষাবিদ ও গবেষক

বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়া (জন্ম: ১ ডিসেম্বর ১৯৪৩ - মৃত্যু: ১৬ই আগষ্ট ২০২৩[১]) একজন বাংলাদেশি শিক্ষাবিদ ও গবেষক ছিলেন। শিক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে ২০২০ সালে একুশে পদক প্রদান করে।[২] তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিদ্যা বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান। তিনি মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। [৩]

বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়া
২০২৩ সালে বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়া
জন্ম (1943-12-01) ১ ডিসেম্বর ১৯৪৩ (বয়স ৮০)
মৃত্যু১৬ই আগস্ট ২০২৩
ঢাকা, বাংলাদেশ
জাতীয়তাবাংলাদেশি
মাতৃশিক্ষায়তনচট্টগ্রাম কলেজ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়
পরিচিতির কারণশিক্ষাবিদ
পুরস্কারএকুশে পদক (২০২০)

প্রারম্ভিক জীবন

সম্পাদনা

বিকিরণ প্রসাদ ১৯৪৩ সালের ১ ডিসেম্বর চট্টগ্রামের রাউজানের আবুরখিল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।[৪] তার পিতার নাম কৈলাশ চন্দ্র বড়ুয়া ও মাতা মল্লিকা রানী বড়ুয়া। তার দাদা সরৎচন্দ্র বড়ুয়া স্থানীয় মহাজন ছিলেন।[৪] তিনি ১৯৬০ সালে আবুরখিল অমিতাভ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে প্রথম শ্রেণীতে মাধ্যমিক সম্পন্ন করে চট্টগ্রাম কলেজে ভর্তি হন। এ কলেজ থেকে তিনি ১৯৬২ সালে উচ্চ মাধ্যমিক এবং ১৯৬৬ সালে পদার্থবিদ্যায় স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন।[৪]

পরবর্তীতে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তাত্ত্বিক পদার্থবিদ্যায় স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।[৪] ১৯৭৫ সালে কলকাতার সাহা ইনস্টিটিউট অব নিউক্লিয়ার ফিজিক্স থেকে অ্যাসোসিয়েটশীপ ডিপ্লোমা এবং ১৯৮২ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক সুনীল কান্তির তত্ত্বাবধানে পদার্থবিদ্যায় গবেষণায় পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন।[৪] তার গবেষণার বিষয় ছিলো “স্টাডিজ অব ইলাস্টিক কন্সট্যান্ট অব মেটালস অ্যান্ড অ্যালয়”।[৪]

কর্মজীবন

সম্পাদনা

বিকিরণ প্রসাদ ১৯৭৫ সালের ১ জুলাই কক্সবাজার কলেজে শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন।[৪] পরে তিনি রাঙ্গুনিয়া ডিগ্রি কলেজে, বরিশাল সরকারি কলেজ, চট্টগ্রাম কলেজ এবং চট্টগ্রামের সরকারি সিটি কলেজে বিভিন্ন মেয়াদে শিক্ষকতা করেন। ১৯৮৪ সালের ১৩ ডিসেম্বর তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিদ্যা বিভাগের শিক্ষক হিসেবে যোগ দেন।[৪] ১৯৯৪ সালের ৮ মার্চ তিনি অধ্যাপক হন। পরে তিনি একই বিভাগে ৩ বছর চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন এবং ২০১০ সালের ৩০ জুন অধ্যাপনা থেকে অবসর গ্রহণ করেন।[৪] তিনি বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের বৃহত্তর চট্টগ্রাম শাখার সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।[৫]

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. Rakshit, Palash Kanti (২০২৩-০৮-১৭)। "বিশিষ্ট পদার্থবিদ ড. বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়া আর নেই"দৈনিক পূর্বকোণ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০৮-১৭ 
  2. "একুশে পদক পাচ্ছেন কিংবদন্তি চিকিৎসা বিজ্ঞানী ডা. সায়েবা"যুগান্তর। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  3. প্রতিবেদক, নিজস্ব (২০২৩-০৮-০৮)। "অধ্যাপক বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়ার মৃত্যু"bdnews24। ২০২৩-০৮-১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০৮-১৭ 
  4. "Eminent Educationist Physicist Prof. Dr. Bikiran Prasad Barua is selected for "Ekushe Smarak Sammanana Padak" by Chittagong City Corporation of Bangladesh"Triratna Sangha (ইংরেজি ভাষায়)। ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  5. "চট্টগ্রামের সুফি মিজান ও বিকিরণ প্রসাদসহ একুশে পদক পেলেন ২০ জন"চট্টগ্রাম প্রতিদিন। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০