বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) বাংলাদেশের জনমিতি, অর্থনীতি, এবং অন্যান্য ঘটনা পরিসংখ্যান সংগ্রহ করা এবং তথ্য পর্যালোচনার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারী সংস্থা[১] এটি বাংলাদেশ সরকারের সকল ধরনের জরিপ কার্যক্রম চালায় এবং তথ্য প্রদান করে।

গঠনসম্পাদনা

যদিও স্বাধীন পরিসংখ্যান ব্যবস্থা আগেও চালু ছিল, কিন্তু সেগুলোর পরিসংখ্যানে প্রায়ই ভুল-ত্রুটি পরিলক্ষিত হত। এর পরিপ্রেক্ষিতে ১৯৭৪ সালের আগস্ট মাসে পূর্ববর্তী বৃহত্তর চারটি পরিসংখ্যান সংস্থার (পরিসংখ্যান ব্যুরো, কৃষি পরিসংখ্যান ব্যুরো, কৃষি শুমারি কমিশন এবং আদমশুমারি কমিশন) অবলুপ্তি ঘটিয়ে "বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো" প্রতিষ্ঠা করা হয়। জুলাই ১৯৭৫ সালে, প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রণের জন্য পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অধীনে পরিসংখ্যান বিভাগ গঠন করা হয়।.পরবর্তীতে পরিসংখ্যান বিভাগকে 'পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ'এ রূপান্তর করা হয়। পরিসংখ্যান ব্যুরো বর্তমানে এই বিভাগের অধীনে কাজ করছে।

এটির সদরদপ্তর ঢাকা। ২০১৩ সাল পর্যন্ত ২৩টি আঞ্চলিক পরিসংখ্যান অফিস, ৪৮৯টি উপজেলা/থানা অফিস ছিল। বর্তমানে ৮টি বিভাগীয় পরিসংখ্যান অফিস (ঢাকা, বরিশাল, খুলনা, রাজশাহী, রংপুর, চট্টগ্রাম, সিলেটময়মনসিংহ), ৬৪টি জেলা পরিসংখ্যান অফিস এবং ৪৮৯টি উপজেলা অফিস রয়েছে। ২০১৩ সালে আঞ্চলিক অফিস বিলুপ্ত করা হয়।

বিভিন্ন শুমারী ও জরিপসম্পাদনা

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মাধ্যমে উল্লেখযোগ্য যে সকল শুমারী ও জরিপ হয় তা হচ্ছে= ১/ জনশুমারী ও গৃহ গনণা(আদমশুমারী) ২/কৃষি শুমারী ৩/জলবায়ু জরিপ ৪/অর্থনৈতিক শুমারী ৫/খানা শুমারী ইত্যাদি

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Bangladesh Bureau of Statistics"Banglapedia। ২০১০-০৬-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-১০-০৮ 

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা