বরমী ইউনিয়ন

গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার একটি ইউনিয়ন

বরমী ইউনিয়ন বাংলাদেশের গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার অন্তর্গত একটি ইউনিয়ন। এই ইউনিয়নের কেন্দ্রস্থলে ঐতিহ্যবাহী বরমী বাজার অবস্থিত।

বরমী
ইউনিয়ন
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সীল.svg ৬ নং বরমী ইউনিয়ন পরিষদ
বরমী ঢাকা বিভাগ-এ অবস্থিত
বরমী
বরমী
বরমী বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
বরমী
বরমী
বাংলাদেশে বরমী ইউনিয়নের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°১৪′৪৯″ উত্তর ৯০°৩১′১৩″ পূর্ব / ২৪.২৪৬৮৭৯৯° উত্তর ৯০.৫২০৩৯৩৫° পূর্ব / 24.2468799; 90.5203935
দেশবাংলাদেশ
বিভাগঢাকা বিভাগ
জেলাগাজীপুর জেলা
উপজেলাশ্রীপুর উপজেলা, গাজীপুর উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
সরকার
আয়তন
 • মোট৫২.০১ বর্গকিমি (২০.০৮ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা
 • মোট৬৪,৮৪৪
 • জনঘনত্ব১,২০০/বর্গকিমি (৩,২০০/বর্গমাইল)
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড১৭৪৩ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
মানচিত্র

এক নজরেসম্পাদনা

৩৮টি গ্রামের সমন্বয়ে ঐতিহ্যবাহী বরমী ইউনিয়নটি গঠিত। এখানে হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান সহ সকল ধর্মাবলম্বীদের সহাবস্থানে সকল প্রকার সামাজিক ও ধর্মীয় কর্মকাণ্ড যথাযথ মর্যাদার সাথে পালিত হয়ে থাকে।

বরমী ইউনিয়ন এর আয়তন- ৫২.০১ বর্গ কি:মি:, লোকসংখ্যা: ৬৪,৯৯৫ জন, গ্রামের সংখ্যা: ৩৯টি, মৌজার সংখ্যা: ১১টি, হাট/বাজারের সংখ্যা- ৩টি, শিক্ষার হার: ৬৯ (২০১১ সালের আদমশুমারী অনুসারে), সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা- ১৬টি, বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ৫টি, মাদ্রাসা-৫টি, মহিলা মাদ্রাসা-১টি, গুরুত্বপূর্ণ ধর্মীয় স্থান-১টি, ঐতিহাসিক পর্যটন স্থান-১টি। [১]

প্রশাসনিক এলাকাসম্পাদনা

ভৌগোলিক অবস্থান : বরমী ইউনিয়ন এর উত্তরে- কাওরাইদ ইউনিয়ন, দক্ষিণে- গোসিংগা ইউনিয়ন ও শ্রীপুর পৌরসভা, পূর্বে- বানার নদী, পশ্চিমে- তেলিহাটি ইউনিয়ন পরিষদ।

গ্রাম সমূহের নাম: বরকুল, বালিয়াপাড়া, কাশিজলি, কাঠালী, ঠাকুরতলা, ভিটিপাড়া, লাকচতল, নিমাইচালা, দেদুয়ার, বড়নল, মাইজপাড়া, কোষাদিয়া, দাইবাড়ীটেক, সাতখামাইর, দরগারচালা, ডালেশ্বর, পোষাইদ, চরবহর, দুর্লভপুর, খলারটেক, মুলামুলিরটেক, পাড়াগুনিয়া, গাড়ারন, তাঁতিসূতা, সোনাকর, বরপানি, পাঠানটেক, সোহাদিয়া, বরমী বাজার, পাইটালবাড়ী, গিলাশ্বর, বরমী, কেন্দুয়া, ছিটপাড়া, নিহালিয়া, বরামা, হরতকিরটেক, মুদিবাড়ী, কায়েতপাড়া।

ইতিহাস ও ঐতিহ্যসম্পাদনা

বরমী ইউনিয়নের বরমী নামকরণের পিছনে রয়েছে এক সুদীর্ঘ ইতিহাস। বাংলার স্বাধীন নবাব ঈসা খাঁর এক যুদ্ধ সংগঠিত হয়েছিল বার্মা, অর্থাৎ বর্তমান মায়ানমার সাথে। বার্মা সৈন্যদল ঈসা খাঁর রাজধানী এগার সিন্দুর আক্রমনের উদ্দেশ্যে বর্তমান বরমী গ্রামে অবস্থান নেয়। তখন এই এলাকায় গভীর বন ছিল। মানুষ বার্মা বাহিনীর অবস্থান উল্লেখকালে এই জায়গাকে বার্মায়া বলে চিহ্নিত করত। পরবর্তীতে বার্মায়া শব্দটিই এ অঞ্চলের জনসাধারণের আঞ্চলিকতায় বরমী নামক স্থানে রূপান্তরিত হয়। পাকিস্তান আমলে বরমী ইউনিয়নে পরিনত হয়। এখানে প্রাচীন কাল থেকে একটি বড় বাজার আছে এবং এই বাজারকে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ গ্রাম্য বাজার বলে ধারণা করা হয়। [২]

১৫৯০ সালে শীতলক্ষা নদীর তীরে বরমী বাজারের সৃষ্টি হয়। তখন থেকে আরম্ব করিয়া বর্তমান পর্যন্ত বিভিন্ন পন্য দ্রব্যের জন্য একটি বাণিজ্য কেন্দ্রে পরিণত হয়। বিশেষ করিয়া ধান, পাট, কাঠাল ও গজারী কাঠের জন্য অন্যতম বাণীজ্য কেন্দ্র। এখানে প্রায় ৩০টি উন্নতমানের চাউলের কারখানা আছে। এখানে বর্তমান পাটমন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার হান্নান শাহ বরমী অটো রাইস মিল নামে একটি বৃহৎ চাউলের কারখানা নির্মাণ করেন। কথিত আছে যে, টোকনগরে বাংলার রাজধানী থাকার সময়ে বর্মদেশীয় (মগ) জলদস্যু টোকনগর লুট করার জন্য শীতলক্ষ্যা নদী বহিয়া অগ্রসর হইতেছিল। মোগল বাহিনী তাহাদের গতিরোধ ও বন্দী করে। তাহাদিগকে যেখানে আটক করিয়া রাখিয়াছিল, সেই স্থানের নাম বর্মী ও  বাজারের নাম হয় বরমী। [6]

জনসংখ্যার উপাত্তসম্পাদনা

২০১১ সালের আদমশুমারী অনুসারে বরমী ইউনিয়নের মোট জনসংখ্যা ৬৪,৯৯৫ জন। [১]

ইউনিয়নের ৩৯টি গ্রামের গ্রামভিত্তিক জনসংখ্যার উপাত্ত [২] নিচে দেয়া হলো:

ক্রমিক নাম জনসংখ্যা
০১ বরকুল- ৩৪৭২
০২ বালিয়াপাড়া ২৭৫৯
০৩ কাশিজলি ১২৪৭
০৪ কাঠালী ৭৪১
০৫ ঠাকুরতলা ৬২৫
০৬ ভিটিপাড়া ২৭৫৯
০৭ লাকচতল ১২৭০
০৮ নিমাইচালা ৫৬৩
০৯ দেদুয়ার ৪১৫
১০ বড়নল ৬৮৯৬
১১ মাইজপাড়া ১৪০৩
১২ কোষাদিয়া ১৫০৯
১৩ দাইবাড়ীটেক ৭২২
১৪ সাতখামাইর ২৯৩২
১৫ দরগারচালা ১৮৮২
১৬ ডালেশ্বর ১০৮৭
১৭ পোষাইদ ৫৬২
১৮ চরবহর ৪৪০৫
১৯ দুর্লভপুর ৩৫৭৯
২০ খলারটেক ৩৪৫
২১ মুলামুলিরটেক ১৮৭
২২ পাড়াগুনিয়া ৮১
২৩ গাড়ারন ৬৫৫১
২৪ তাঁতিসূতা ৮৩৭
২৫ সোনাকর ১৪৯৭
২৬ বরপানি Not Update
২৭ পাঠানটেক ৫০৪৬
২৮ সোহাদিয়া ১৮৭৫
২৯ বরমী বাজার ১৩১৮
৩০ পাইটালবাড়ী ৯৮৩
৩১ গিলাশ্বর ১৫৪৫
৩২ বরমী ৯৯০৯
৩৩ কেন্দুয়া ৫৪৩
৩৪ ছিটপাড়া ১১০৯
৩৫ নিহালিয়া ৬২২
৩৬ বরামা ৬১৪২
৩৭ হরতকিরটেক ৭৮৮
৩৮ মুদিবাড়ী ৫৮৭
৩৯ কায়েতপাড়া ১৭৬২


শিক্ষা[৩]সম্পাদনা

মহাবিদ্যালয় বা কলেজ: বরমী ইউনিয়নে বরমী ডিগ্রী কলেজ নামে একটি কলেজ বা মহাবিদ্যালয় রয়েছে।

মাধ্যমিক বিদ্যালয়: ইউনিয়নে অবস্থিত মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ৪টি।

  • বরমী বাজার বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়
  • বরমী বাজার উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়
  • ভিটিপাড়া কে.এইচ.কে উচ্চ বিদ্যালয়
  • সাতখামাইর উচ্চ বিদ্যালয়

মাদ্রাসা: বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড এর অধীনে পরিচালিত মাদ্রাসা রয়েছে ৫টি। এছাড়াও একটি প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী কওমী মাদ্রাসা রয়েছে বরমী বাজারে। এর নাম "বরমী জামিয়া আনওয়ারিয়া মাদ্রাসা"।

বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক পরিচালিত মাদ্রাসাগুলো হলো:[৪]

  • বরামা ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসা
  • বরামা বালিকা দাখিল মাদরাসা
  • গাড়ারন খলিলিয়া ফাজিল মাদরাসা
  • লাকচতল ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা
  • গিলাশ্বর বালিকা দাখিল মাদ্রাসা

প্রাথমিক বিদ্যালয় এর তালিকা: [৫] বরমী ইউনিয়নে ১৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে, এগুলো হলো:

  • বরামা ২নং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • সাতখামাইর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • লাকচতল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • কাঠালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • ভিটিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • দরগারচালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • গাড়ারন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • চরবহর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • বরকুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • সোনাকর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • পাঠানটেক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • বালিয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • বরমী ইউনিয়ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • গিলাশহর মরহুম আঃ জব্বার রেজি: প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • পোষাইদ ছাহেদ আলী রেজি: প্রাথমিক বিদ্যালয়

অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহ: অত্র বরমী ইউনিয়নে বেশ কিছু কিন্ডার গার্টেন রয়েছে যেমন-

  • আল হেরা একাডেমী এন্ড কিন্ডার গার্টেন।
  • বরমী আল্-মাদিনা প্রি-ক্যাডেট স্কুল।
  • টিবব্লিউএফ ইংলিশ মিডিয়াম স্কূল।
  • সান ফ্লাওয়ার কিন্ডার গার্টেন।
  • সান রাইজ কিন্ডার গার্টেন।
  • বরমী আইডিয়াল স্কুল ইত্যাদি উল্লেখ যোগ্য।

অর্থনীতিসম্পাদনা

বরমী ইউনিয়নের অর্থনীতির মূল উৎস কৃষি ও কৃষিপণ্য। এছাড়া বরমী বাজার এ অঞ্চলের ব্যবসায় উল্লেখযোগ্য ভুমিকা পালন করে থাকে। বরমী বাজারে বেশ কিছু ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প প্রতিষ্ঠান পরিচালিত হয়ে আসছে। এছাড়া এ অঞ্চলে অতি সম্প্রতি মৎস্যচাষ ও পোলট্রি ফার্ম গড়ে উঠেছে যা জাতীয় অর্থনীতিতে ভূমিকা পালন করে চলেছে।

অত্র ইউনিয়নে ৭ টি রাষ্টায়ত্ব ব্যাংকের শাখা রয়েছে। এগুলো হলো: ১। সোনালী ব্যাংক লিঃ, ২। অগ্রণী ব্যাংক লিঃ, ৩। গ্রামীণ ব্যাংক লিঃ, ৪। ব্র্যাক ব্যাংক লিঃ, ৫। মেঘনা ব্যাংক লিঃ, ৬। মিচু্য়্যাল ট্রাষ্ট ব্যাংক লিঃ, ৭। আল আরাফা ইসলামী ব্যাংক লিঃ।

এছাড়াও রয়েছে ৪ টি বীমা প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম (১। ন্যশনাল লাইল ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিঃ। ২। সান লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিঃ। ৩। মেঘনা লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিঃ। ৪। আল- আরাফা ইসলামী ইনস্যুরেন্স কোম্পানী লিঃ।) এবং অব্যাহত রয়েছে ৬টি এনজিও'র অর্থনৈতিক কার্যক্রম (১। ব্র্যাক বিডিপি ২। এস.এস.এস ৩। পদক্ষেপ মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্র। ৪। দিশারী ৫। আশা ৬। প্লান বাংলাদেশ)

অবকাঠামোগত অন্যান্য উপাত্তসম্পাদনা

বরমী ইউনিয়নে প্রায় ৬৭টি মসজিদ রয়েছে, যার অধিকাংশই পাকা। এছাড়া ২টি মন্দির (০১। বরমী বাজার পালবাড়ী মন্দির ০২। বরমী বাজার আখড়া মন্দির); ৩০টি ঈদগাহ মাঠ; ৬টি এতিমখানা (০১। বরমী জামিয়া আনওয়ারিয়া মাদ্রাসা এতিমখানা। ০২। বরকুল এমদাদুল উলুম কওমি মহিলা মাদ্রাসা এতিমখানা। ০৩। ছিটপাড়া কাদিরাবাড়ী এতিমখানা। ০৪। ছিটপাড়া মুন্সীবাড়ী এতিমখানা। ০৫। বরামা রফিক প্রধানের বাড়ী এতিমখানা। ০৬। সাতখামাইর এতিমখানা।); ২টি মাজার রয়েছে।

উল্লে­খযোগ্য স্থান ও স্থাপনাসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

আরো দেখুনসম্পাদনা