পিটার ম্যাকইনটায়ার

অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার

পিটার এডওয়ার্ড ম্যাকইনটায়ার (ইংরেজি: Peter McIntyre; জন্ম: ২৭ এপ্রিল, ১৯৬৬) ভিক্টোরিয়ার গিসবর্ন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার।[১] অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৯৫ থেকে ১৯৯৬ সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

পিটার ম্যাকইনটায়ার
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামপিটার এডওয়ার্ড ম্যাকইনটায়ার
জন্ম২৭ এপ্রিল, ১৯৬৬
গিসবর্ন, ভিক্টোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনলেগ ব্রেক গুগলি
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৩৬৪)
২৬ জানুয়ারি ১৯৯৫ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট১০ অক্টোবর ১৯৯৬ বনাম ভারত
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৯৭
রানের সংখ্যা ২২ ৭৯৮
ব্যাটিং গড় ৭.৩৩ ৮.০৬
১০০/৫০ –/– –/–
সর্বোচ্চ রান ১৬ ৪৩
বল করেছে ৩৯৩ ২৫৩৭২
উইকেট ৩২২
বোলিং গড় ৩৮.৭৯ ৩৯.৬৬
ইনিংসে ৫ উইকেট ১২
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৩/১০৩ ৬/৪৩
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং –/– ৩৩/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২১ অক্টোবর ২০১৯

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটে ভিক্টোরিয়া ও সাউথ অস্ট্রেলিয়া দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ লেগ ব্রেক গুগলি বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে কার্যকরী ব্যাটিংশৈলী প্রদর্শন করতেন পিটার ম্যাকইনটায়ার

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটসম্পাদনা

১৯৮৮-৮৯ মৌসুম থেকে ২০০১-০২ মৌসুম পর্যন্ত পিটার ম্যাকইনটায়ারের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। সহজাত প্রতিভার অধিকারী পিটার ম্যাকইনটায়ার ভিক্টোরিয়ার পক্ষে লেগ স্পিনার হিসেবে যোগ দেন। ১৯৮৮-৮৯ মৌসুমে মেলবোর্নে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে সর্বপ্রথম খেলতে নামেন। ক্লাব ক্রিকেটে উচ্চমানের ধারাবাহিক ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শনের স্বীকৃতিস্বরূপ ভিক্টোরীয় রাজ্য দলের সদস্যের ভূমিকায় আবির্ভূত হতে সহায়তা করে।

১৯৯১ সালে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটে একাডেমিতে অবস্থান করেন। এরপর, চার বছর রাজ্য দলের সদস্যরূপে থাকলেও আর দলে স্থায়ীভাবে আসন লাভ করতে পারেননি। শেন ওয়ার্নের আগমনে নিজ রাজ্য দলের খেলার সম্ভাবনা আরও তিরোহিত হয়ে পড়ে। ফলশ্রুতিতে, সুযোগের সন্ধানে দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার দিকে ধাবিত হন। ডানহাতি ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে তিনি দ্রুত সফলতা পান। ১৯৯২-৯৩ মৌসুমে স্বর্ণালী সময় অতিবাহিত করেন। দুই বছরের মধ্যে টেস্ট দলে খেলার জন্যে আমন্ত্রণ বার্তা লাভ করেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটসম্পাদনা

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন পিটার ম্যাকইনটায়ার। ২৬ জানুয়ারি, ১৯৯৫ তারিখে অ্যাডিলেডে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর, ১০ অক্টোবর, ১৯৯৬ তারিখে দিল্লিতে স্বাগতিক ভারত দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

অংশগ্রহণকৃত দুই টেস্টের একটি ১৯৯৫ সালে অ্যাডিলেডে সফরকারী ইংল্যান্ড এবং অপরটি ১৯৯৬ সালে নতুন দিল্লিতে স্বাগতিক ভারতের বিপক্ষে খেলেছিলেন। ১৯৯৪-৯৫ মৌসুমে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের চতুর্থ টেস্টে খেলেন।

বিখ্যাত ক্রিকেটার শচীন তেন্ডুলকরের বিপক্ষে পিটার ম্যাকইনটায়ার অভিনব সফলতার স্বাক্ষর রেখেছেন। তার বিপক্ষে অক্টোবর, ১৯৯৬ সালে একটিমাত্র টেস্টে অংশ নিয়েছিলেন তিনি। আঙ্গুলের অস্ত্রোপচারের কারণে শেন ওয়ার্নের অনুপস্থিতিতে অধিনায়ক হিসেবে প্রথম টেস্টে ১০ রানে মার্ক ওয়াহ’র কটে বিদেয় নিলেও স্বাগতিক দল জয়লাভ করেছিল। খেলায় ম্যাকইনটায়ার ৩/১০৩ বোলিং করেন। উইজডেনের ভাষ্যমতে, দৃঢ়তাপূর্ণ বোলিং করলেও বৈচিত্র্যহীন ও বিকল্প বোলিং না করায় কাঙ্ক্ষিত সফলতার সন্ধানে পাননি। এ টেস্টটি তার দ্বিতীয় ছিল। এরপর ওয়ার্ন দলে ফিরে আসলে তাকে আর কোন খেলায় অংশ নিতে দেখা যায়নি।

খেলার ধরনসম্পাদনা

লেগ স্পিন বোলার হিসেবে ক্রিকেট খেলায় প্রবেশ করেন। কিন্তু দূর্ভাগ্যবশতঃ একই সময়ে সতীর্থ শেন ওয়ার্ন ও স্বল্পকালীন সময়ে দলে অবস্থানকারী স্টুয়ার্ট ম্যাকগিলের সাথে তাকে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অবতীর্ণ হতে হতো। ফলশ্রুতিতে, তিনি কখনো জাতীয় দলে পুরোপুরিভাবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেননি। ১৯৯৮-৯৯ মৌসুমে ডান কাঁধে অস্ত্রোপচার করতে হয়। প্রায় ৪০ গড়ে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে উইকেট পেলেও ভিক্টোরিয়া ও সাউথ অস্ট্রেলিয়ায় উচ্চমানের বোলারের কমতি ছিল না। শেন ওয়ার্নের পূর্বেকার সময়ের স্পিনার হলেও তিনি কিঞ্চিৎ নিম্নমানের বোলার ছিলেন। ১৯৮৮ সালে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটিয়ে ২০০২ সালে অবসর গ্রহণ করেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Australia – Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৩ অক্টোবর ২০১৯ 

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা