পিঁয়াজু

বাংলাদেশী খাবার

পিঁয়াজু বাংলাদেশের খুবই জনপ্রিয় একটি ভাজা ঝাল খাবার। এটি সাধারণত দুপুর বা বিকেলের নাস্তায় পরিবেশিত হয়। বিশেষ করে রোজার সময় ইফতারে এটির চল বেশি। এটি মসুর ডাল বা খেসাড়ীর ডাল বাটার সাথে পেঁয়াজ কুচিঁ, মরিচ বাটা, লবণ এবং বিভিন্ন মশলা মিশিয়ে ছোট ছোট চ্যাপ্টা গোলাকাকৃতি দলা তৈরি করে, এরপর ডোবা তেলে ভেজে তৈরি করা হয়। প্রচুর পেঁয়াজ দেয়া হয় বলে এটির নাম "পিঁয়াজু"। কখনো কখনো একে বড়া হিসেবেও উল্লেখ করা হয়। এটি একটি ঝাল খাবার। হুলুদ ও মরিচ দেয়ার ফলে এর বর্ণ আগুনে লাল। এটি মচমচে এবং সুস্বাদু।

পিয়াজু

প্রস্তুত প্রণালীসম্পাদনা

প্রথমে পরিমাণ মত খেশারি ডাল নিতে হবে, এর পর পরিমাণ মত পানিতে ১.০০(এক) ঘণ্টা মত ভিজিয়ে রাখতে হবে,ডাল যখন নরম হয়ে আসবে তখন ভলো করে ধুয়ে ঝরঝরা করতে হবে, এর পর ব্লেন্ডার মেসিন অথবা পাটার মধ্যে হালকা করে বেটে নিতে হবে, এর পর বাটা ডাল এর সাথে পরিমাণ মত ময়দা মিশাতে হবে, যাতে আটালো হয় এরপর খাবার সোডা পরিমাণ মত, পিয়াজ ও কাঁচা মরিচ এবং লবণ স্বাদ অনুযায়ী দিব,স্বাদ বাডানো জন্য চাইলে জিরা ও দিতে পারেন,এবার সব গুলো এক সাথে মিশিয়ে আধা ঘণ্টা রেখে দিবেন, এর পর পরিমাণ মত তেল দিয়ে গ্যাস এর চুলায় আগুন বাডিয়ে দিয়ে তেলটা গরম করে নিব, তেল গরম হয়ে এলে গ্যাস চুলার আগুন হালকা করে পিয়াজুর বরা বনিয়ে তেলে দিব,এরপর পিয়াজুর গায়ের রং লাল হয়ে নিয়ে ফেলব, ব্যাস হয়ে গেল মজার পেয়াজু, এবার চস দিয়ে কিংবা এমনে পরিবেশন করুন।

খাদ্য মানসম্পাদনা

ক্যালরি: ৬০-১২০ কিলোক্যালরি (আকারের উপর নির্ভরশীল)