নাফিসা আলি

ভারতীয় সাঁতারু

নাফিসা আলি (জন্ম: ১৮ জানুয়ারি ১৯৫৭) একজন ভারতীয় অভিনেত্রী, ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের রাজনীতিবিদ এবং সামাজিক কর্মী

নাফিসা আলি
Nafisa ali.jpg
লাহোর ছবির প্রিমিয়ারে নাফিসা আলি
জন্ম (1957-01-18) ১৮ জানুয়ারি ১৯৫৭ (বয়স ৬৫)
অন্যান্য নামনাফিসা আলি সোধি
পেশাঅভিনেত্রী, মডেল, রাজনীতিবিদ
কর্মজীবন১৯৭৯-বর্তমান
রাজনৈতিক দলভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস
ওয়েবসাইটwww.nafisaali.com

জীবনের প্রথমার্ধসম্পাদনা

নাফিসা আলি কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তার পিতা বাঙালি মুসলিম আহমেদ আলী এবং তার মাতা অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান রোমান ক্যাথলিক ফিলোমেনা টরেসান। নাফিসার পিতামহ এস ওয়াজিদ আলি ছিলেন একজন বিশিষ্ট বাঙালি লেখক। তার বাবার বোন জায়েব-উন-নিসা হামিদুল্লাহ হলেন একজন পাকিস্তানি সাংবাদিক এবং নারীবাদী। নাফিসা বাংলাদেশী মুক্তিযোদ্ধা ও সৈনিক বীর প্রতীক আক্তার আহমেদেরও আত্মীয়। [১] নাফিসার মা এখন অস্ট্রেলিয়ায় স্থায়ী বাসিন্দা। [২]

লা মার্টিনিয়ার কলকাতা থেকে পড়ার পর নাফিসা সিনিয়র কেমব্রিজে গিয়েছিলেন।[৩] তিনি স্বামী চিন্মায়ানন্দের কাছ থেকে বেদান্ত অধ্যয়ন করেছেন, যিনি বিশ্বে বেদান্তকে বোঝানোর জন্য চিন্ময় মিশন কেন্দ্র শুরু করেছিলেন।

তাঁর স্বামী হলেন খ্যাতনামা পোলো খেলোয়াড় এবং অর্জুন পুরস্কারপ্রাপ্ত, অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল আরএস সোধি। বিয়ের পরে তিনি নিজের তিন সন্তানের দিকে মনোনিবেশ করে কাজ বন্ধ করে দিয়েছিলেন: তার কন্যা আরমানা, পিয়া এবং পুত্র অজিত। [২] ১৮ বছরের বিরতির পরে তিনি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে আবারও ফিরে আসেন।

কর্মজীবনসম্পাদনা

নাফিসা আলীর বিভিন্ন ক্ষেত্রে অর্জন রয়েছে। তিনি ১৯৭২-৭৪ সালে জাতীয় সাঁতার চ্যাম্পিয়ন ছিলেন। ১৯৭৬ সালে তিনি ফেমিনা মিস ইন্ডিয়া খেতাব অর্জন করেছিলেন এবংমিস ইন্টারন্যাশনাল প্রতিযোগিতায় ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করে ২য় রানার-আপ হয়েছিলেন। ১৯৭৯ সালে কলকাতা জিমখানায়ও একজন জকি হিসাবেও ছিলেন।

অভিনয় জীবনসম্পাদনা

তিনি বেশ কয়েকটি বলিউড ছবিতে অভিনয় করেছেন, উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রগুলি শশী কাপুরের সাথে জুনুন (১৯৭৮), অমিতাভ বচ্চনের সাথে মেজর সাব (১৯৯৮), বেওয়ফা (২০০৫), লাইফ ইন এ .. মেট্রো (২০০৭) এবং ধর্মেন্দ্রর সাথে ইয়ামলা পাগলা দিওয়ানা (২০১০) ।

তিনি ম্যামুট্টির সাথে বিগ বি (২০০৭) নামে একটি মালায়ালাম ছবিতেও অভিনয় করেছেন এবং এইডস সচেতনতা ছড়িয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে অ্যাকশন ইন্ডিয়ার সাথে যুক্ত আছেন।

রাজনৈতিক জীবনসম্পাদনা

নাফিসা আলী দক্ষিণ কলকাতা থেকে ২০০৪ সালের লোকসভা নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে হেরেছিলেন।সঞ্জয় দত্ত সুপ্রিম কোর্টে দোষী সাব্যস্ত হয়ে নির্বাচনে অযোগ্য হলে ৫ এপ্রিল ২০০৯, তিনি লোকসভা নির্বাচনে লখনউ আসন থেকে সমাজবাদী পার্টির হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তারপরে তিনি ২০০৯ সালের নভেম্বর মাসে ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল কংগ্রেস দলে পুনরায় যোগদান করেছিলেন এবং বলেছিলেন যে তিনি আজীবন কংগ্রেসেই থাকবেন। [৪]

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

তিনি পোলো খেলোয়াড় কর্নেল সোধিকে সাথে বিয়ে করেছেন, যিনি অর্জুন পুরস্কার জিতেছেন। [৩]

২০০৫ সালের সেপ্টেম্বরে, তিনি চিলড্রেন ফিল্ম সোসাইটি অফ ইন্ডিয়া (সিএফএসআই) এর সভাপতির পদে নিযুক্ত হন।

২০১৮ এর নভেম্বরে , তার থ্রি স্টেজের পেরিটোনিয়াল এবং ডিম্বাশয়ের ক্যান্সার ধরা পড়েছিল। [৫]

চলচ্চিত্রের তালিকাসম্পাদনা

  • জুনুন (১৯৭৯)
  • আতঙ্ক (১৯৯৬)
  • মেজর সাব (১৯৯৮)
  • ইয়ে জিন্দেগি কা সাফার (২০০১)
  • বেওয়াফা (২০০৫)
  • বিগ বি (২০০৭)
  • লাইফ ইন এ মেট্রো (২০০৮)
  • গুজারিশ (২০১০)
  • ইয়ামলা পাগলা দিওয়ানা (২০১১)
  • সাহেব, বিবি অর গ্যাংস্টার ৩ (২০১৮) রাজ মাতা যশোধারা হিসাবে
  • লাগা রাহো মুন্না ভাই (২০০৬)

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Major Akhter: Salute and an embrace from our heart"The Opinion Pages। ২২ মার্চ ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১২ আগস্ট ২০১৭ 
  2. "Rival has no clue about Nafisa's secret weapon"। ৬ এপ্রিল ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  3. "Archived copy"। ২২ ডিসেম্বর ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১০-২৯ 
  4. http://news.outlookindia.com/item.aspx?668939[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  5. "Actress Nafisa Ali diagnosed with Stage 3 cancer; Here is what you should know"। Times of India। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১৯, ২০১৮ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা