দয়ানন্দ দেব (১৭ ডিসেম্বর ১৮৭০ – ১৯৩৭ খ্রিস্টাব্দ) একজন হিন্দু ধর্মগুরু ও সমাজ সংস্কারক এবং বিশ্ব শান্তি সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন।

শ্রীশ্রী ঠাকুর

দয়ানন্দ দেব
উপাধিশ্রী শ্রী ঠাকুর
ব্যক্তিগত
জন্ম১৭ ডিসেম্বর ১৮৭০
বাংলাদেশ, হবিগঞ্জ জেলার লাখাই উপজেলা
মৃত্যু১৯৩৭ (বয়স ৬৬–৬৭)
অমৃত মন্দির, বামৈ, হবিগঞ্জ, বাংলাদেশ
ধর্মহিন্দু ধর্ম
জাতীয়তাব্রিটিশ ভারতীয়
এর প্রতিষ্ঠাতাবিশ্ব শান্তি সংগঠন প্রতিষ্ঠা

জীবনীসম্পাদনা

দয়ানন্দ দেব হবিগঞ্জ জেলার লাখাই উপজেলার বামৈ গ্রামে[১] জমিদার পরিবারে ১২৭৮ বঙ্গাব্দের ৭ই জৈষ্ঠ বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর ১৮৭০ খ্রিষ্টাব্দ) জন্মগ্রহণ করেন। পিতা গুরুচরণ চৌধুরী হবিগঞ্জ বারের আইনজীবী ছিলেন। তার মাতার নাম ছিল কামাখ্যা দেবী চৌধুরী।

ফ্রান্সের বিশ্ব শান্তি সম্মেলনসম্পাদনা

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর ১৯১৮ সালের ১৮ ডিসেম্বর ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে একটি বিশ্ব শান্তির সম্মেলন হয়েছিল, যা প্যারিস কনফারেন্স ১৯১৮ নামে পরিচিত। সেই সম্মেলনের এক দিন আগে ১৭ ডিসেম্বর দয়ানন্দ নিজেকে "বিশ্ব সুহৃদ ও সন্নাসী" সংগঠনের সভাপতি পরিচয়ে দিয়ে ইংরেজিতে বক্তব্য দেন, যাতে দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের সূচনা না হয়। দয়ানন্দের বক্তব্য ছিল প্রশংসীয়। কনফারেন্সের বক্তারা দয়ানন্দকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শান্তির দূত ঘোষণা করেন।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] এরপর দয়ানন্দের নাম হয় ঠাকুর দয়ানন্দ। দয়ানন্দকে ফ্রান্স সরকার বিমান উপহার দেন। সেই বিমান নিয়ে পৃথিবীর সব দেশে পাড়ি জমান। জার্মানির চ্যান্সেলর হিটলার, ইতালির রাষ্ট্রপতি মুসোলিনি, জাপানের সম্রাট আকিহিতোর কাছে শান্তির বাণী পৌঁছে দেন।

প্রথম বিশ্বযুদ্ধে দয়ানন্দসম্পাদনা

ভারতবর্ষে যখন স্বদেশী আন্দোলন এবং পৃথিবীজুড়ে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের আলোচনা চলছিল, তখন আসাম প্রদেশের শিলচর শহর থেকে ৩ মাইল দূরে ১৯০৯ সালের জানুয়ারিতে[২] দয়ানন্দ অরুণাচল আশ্রম প্রতিষ্ঠা করেন।[৩][৪] দয়ানন্দের শিষ্য মহেন্দ্রনাথ ঠাকুর মৌলভীবাজার শহরের সন্নিকটে জগৎসীতে দোল গোবিন্দ আশ্রম প্রতিষ্ঠা করেন। ব্রিটিশ সরকার এই আশ্রমকে সন্ত্রাসীদের আখড়া হিসেবে চিহ্নিত করে, আশ্রমবাসীদের সাথে বৃটিশ পুলিশের সংঘর্ষ বাধে। ১৯১২ সালের ১৬ জুলাই গুলিবিদ্ধ হলে সিলেট হাসপাতালে মারা যান মহেন্দ্রনাথ দে। সেই মামলায় দয়ানন্দসহ ৫৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়। দয়ানন্দ দেব দেড় বছর কারাভোগ করেন। জেল থেকে বের হয়ে তিনি সন্যাসীদের কে নিয়ে বিশ্ব শান্তি সংগঠন করেন। ২০ ফেব্রুয়ারি ১৯১৮ লাখাই থানার বামৈ গ্রামের ১ কিলোমিটার দক্ষিণে প্রতিষ্ঠা করেন অমৃত মন্দির

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "বামৈ ইউনিয়ন"www.bamoiup.habiganj.gov.bd। ২০২০-০৮-১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১২-১৭ 
  2. "Arunachal Mission Deoghar | Silchar | Thakur Dayananda Dev | Explore Bihar"। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১২-১৭ 
  3. "মাসিমপুরে অরুণাচল আশ্রমে কালী মায়ের সাধনায় স্বামী দয়ানন্দ ঠাকুর"বরাক বুলেটিন। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১২-১৭ 
  4. "লাখাই উপজেলা"lakhai.habiganj.gov.bd। ২০২০-১২-০১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১২-১৭