প্রধান মেনু খুলুন

ডাবল (ক্রিকেট)

ক্রিকেট পরিভাষা

ডাবল ক্রিকেট খেলার পরিভাষাবিশেষ। একজন ক্রিকেটার যখন কোন একটি মৌসুমের প্রথম-শ্রেণীর খেলায় এক হাজার বা ততোধিক রান এবং একশত বা ততোধিক উইকেট লাভ করতে সক্ষমতা প্রদর্শন করেন, তখন তিনি ‘ডাবল’ লাভ করেছেন বলে চিত্রিত করা হয়। ইংল্যান্ডের বাইরে এ ধরনের অসাধারণ অর্জন লাভ করা অতীব দুঃসাধ্য। কেননা, অন্যান্য দেশে তুলনামূলকভাবে প্রথম-শ্রেণীর খেলা কম আয়োজন করা হয়ে থাকে। এমনকি ইংল্যান্ডেও সাম্প্রতিক দশকগুলোয় লিস্ট এ খেলাকে প্রাধান্য দেয়ার ফলে প্রথম-শ্রেণীর খেলা আয়োজন কম করা হচ্ছে। ১৯৮৮ সালে এ ধরনের ডাবল লাভের সর্বশেষ কৃতিত্ব প্রদর্শন করেছেন ফ্রাঙ্কলিন স্টিফেনসন[১]

উল্লেখযোগ্য ক্রিকেটারসম্পাদনা

উইলফ্রেড রোডস সর্বাধিক ১৬বার ডাবল লাভ করেছেন। এর পরের স্থানে রয়েছেন জর্জ হার্স্ট। তিনি ১৪বার পেয়েছেন। তন্মধ্যে, ১৯০৬ সালে অনন্য সাধারণ কৃতিত্ব ডাবল ডাবল প্রদর্শন করেছেন তিনি। ২৩৮৫ রান তোলার পাশাপাশি ২০৮ উইকেট তুলে নিয়েছেন। জিম পার্কস সিনিয়র অনন্য সাধারণ ডাবল পেয়েছেন। ১৯৩৭ সালে ৩০০০ রান ও ১০০ উইকেট লাভের মাধ্যমে।[২] একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে মরিস টেট ইংল্যান্ডের বাইরে ডাবল লাভ করেছেন। ১৯২৬-২৭ মৌসুমে এমসিসি দলের সাথে ভারত ও সিলন গমন করে ১১৯৩ রান ও ১১৬ উইকেট পেয়েছিলেন।

উইকেট-রক্ষকের ডাবলসম্পাদনা

‘উইকেট-রক্ষকের ডাবলে’ এক উইকেট-রক্ষকের এক হাজার বা ততোধিক রান ও একশত বা ততোধিক ডিসমিসাল ঘটানোর বিষয়টি জড়িয়ে রয়েছে। এ ধরনের কৃতিত্ব অতি দূর্লভ ঘটনারূপে বিবেচ্য। কেবলমাত্র লেস অ্যামিস তিনবার ও জন মারে একবার এ কৃতিত্ব প্রদর্শনে সক্ষমতা দেখিয়েছেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা