জোসেপ বোনাপ্লাটা ই করিওল

স্প্যানিশ ব্যবসায়ী

জোসেপ বোনাপ্লাটা ই করিওল (বার্সেলোনা, ১৭৯৫ - বুনিয়ল, ২রা জুন, ১৮৪৩) একজন কাতালান শিল্প উদ্যোক্তা তিনি প্রথম কাতালোনিয়াস্পেনে বাষ্পীয় ইঞ্জিন আমদানি করেন। তার পিতামাতা র‍্যামন বোনাপ্লাটা ও তেরেসা করিওল ছিলেন টেক্সটাইল উত্পাদক। তার তিন ভাই ছিল, সালভাদর, র‍্যামন ও নার্সিস।

জোসেপ বোনাপ্লাটা
জন্ম১৭৯৫
মৃত্যু২রা জুন, ১৮৪৩
বুনিয়ল, ফোঁয়ে দ্য বুনিয়ল, ভ্যালেন্সিয় সম্প্রদায়
জাতীয়তাস্প্যানিশ
পেশাপ্রতিষ্ঠাতাঃ ফ্যাক্টরি বোনাপ্লাটা, বিজনেস এক্সিকিউটিভ, প্রকৌশল
পিতা-মাতার‍্যামন বোনাপ্লাটা ও তেরেসা করিওল

যৌবন এবং ইংল্যান্ডে যাত্রাসম্পাদনা

জোসেপ বোনাপ্লাটা পারিবারিক উৎপাদক সংস্থায় কাজ করেন যতদিন না তার পিতা অবসর গ্রহণ করেন এবং ব্যবসা দেখাশোনার ভার গ্রহণ করে তার বড় ভাই সালভাদর।[১] ১৮২৮ সালে জোসেপ এবং তার বন্ধু জোয়ান ভিলারকাট স্যালেন্টে সূতার বস্ত্র কারখানার কাজ শুরু করে।[১][২] ১৮২৯ সালে তার ব্যবসাকে আধুনিকীকরণের এক প্রচেষ্টায় স্প্যানিশ সরকার তাকে বাষ্পীয় ইঞ্জিন আনার অনুমতি দেয়।[৩]

তিনি, জোয়ান রাল এবং ক্যাম্পস নামক একজন ব্যক্তি ইংল্যান্ড যান বস্ত্রশিল্প সম্পর্কে ল্যান্সাশায়ার থেকে কিছু জানতে এবং বার্মিংহামের বোল্টন এন্ড ওয়াট হতে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি কিনতে।[২] লন্ডনে তিনি স্প্যানিশ রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিসকো সিয়া বার্মুডেজ-এর মাধ্যমে একটি বাষ্পীয় ইঞ্জিন নেবার অনুমতি পান। বোনাপ্লাটা ও রাল জুলাই, ১৮৩০ সালে কাতালোনিয়া ফিরে আসলেও ক্যাম্পস যন্ত্র সম্পর্কে, বিশেষত রিচার্ড রবার্টস সম্পর্কে সম্পর্কে আরো জানার জন্য ম্যাঞ্চেস্টারে থেকে যান। এর সাহচর্যের লাইসেন্সেই তিনি বস্ত্র তৈরি করার সিদ্ধান্ত নেন।[১]

গ্রামীণ ব্যবসাসম্পাদনা

এল ভ্যাপর ধ্বংসের পরে ডিসেম্বর, ১৮৩৫ সালে জোসেপ বোনাপ্লাটা ভ্যালেন্সিয়ার গ্রাম লিরিয়ার জন্য ১৮৭.০০০ রিয়াল খরচ করেন। সেখানে তিনি জলপাই তেলের কারখানা তৈরি করেন এবং অনেক বাদাম গাছ লাগান্ম তিনি ১, ১৯০.০০০ রিয়াল খরচ করেন এমন একটি প্রকল্পের জন্য যা সিঙ্কা নদীসিগ্রেকে যুক্ত করবে যেন লিরিয়া স্থানটি চাষ করা যায়। প্রকল্পটিকে তার বন্ধু এন্টনি গ্যাঁসো জনপ্রিয় করেন, কিন্তু শেষে এটি ভেস্তে যায়।[৪]

অসুস্থতা ও মৃত্যুসম্পাদনা

গুরুতর শ্বাসযন্ত্রের ব্যাধিদ্বারা বোনাপ্লাটা দীর্ঘদিনই আক্রান্ত ছিলেন এবং এই ব্যধি তার কাজে প্রভাব ফেলছিল। শেষ আক্রান্ত হবার ভয়ে তিনি মে, ১৮৪০ সালে তার উইল করে যান। তিন বছর পর তিনি লিরিয়ার এস্পিনার খামারবাড়িতে অবসর নেবার কথা ঠিক করেন। ৩০শে মে, ১৮৪৩ সালে বোনাপ্লাটা তার অছিকে সমস্ত কিছু বুঝিয়ে দিয়ে যাত্রা শুরু করেন। কিন্তু তার ফুসফুস কলাপস করে এবং শেষ অ্যাজমা অ্যাটাকে তিনি ২রা জুন বুনিয়ল গ্রামের নিকট পরলোকগমন করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৪৮।[৪]

তিনি কোন বংশধর রেখে যাননি। তাই তার ভাইয়েরাই উত্তরাধিকারী হয়। জানা যায় যে তার সোফিয়া নামক অবৈধ কন্যা ছিল। তবে সেও ১৮৪০ সালে জন্মের সময় মারা যায়। জোসেপ ও তার কন্যার মা জেসুসা রোমেরো দম্পতি ছিলেন।[৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

পাদটীকাসম্পাদনা

  1. Jordi Nadal: p. 6-8
  2. Enciclopèdia Catalana
  3. কাতালান ব্যবসায়ী সংস্থা জান্টা দ্য কোমার্ক এই সংবাদ শুনে এর বিরোধীতা করে কারণ তাদের ভয় ছিল এই সিদ্ধান্তর ফলে ইংরেজদের বস্ত্র রপ্তানির দাম পড়ে যাবে। তবে ব্যবসায়ীরা মার্চ, ১৮৩৩ সালে নতুন ব্যবসার স্থান প্রদর্শন করে মন পরিবর্তন করেন।Jordi Nadal: p. 6-8
  4. Jordi Nadal: p. 9-11

গ্রন্থবিবরণীসম্পাদনা

  • "Josep Bonaplata" (Catalan ভাষায়)। Enciclopèdia Catalana। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০১৪ 
  • "Els Bonaplata: Tres generacions d'industrials catalans a l'Espanya del segle XIX" (PDF) (Catalan ভাষায়)। Institut d'Estudis Catalans। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০১৪ 
  • Burning Barcelona by Roger Williams (Bristol Book Publishing 2008, আইএসবিএন ৯৭৮০৯৫৫৫৩৭৬১৫) is an historical novel about the installation of the steam engine by Josep Bonaplata and William Sanford, an engineer from the Boulton & Watt manufactory.