জোড় বাংলা স্থাপত্য রীতি

বাংলার মন্দিরের স্থাপত্য রীতি

জোড় বাংলা যা চার-চালা বা জরু বাংলা নামেও পরিচিত,[১] বাংলায় বিকাশ লাভ করা একধরনের মন্দিরের স্থাপত্যরীতি।[২] এই স্থাপত্যরীতিতে নকশায় দুটি অংশ থাকে। ইমারতের অধিকতর স্থায়িত্বের জন্য দুটি দোচালা পাশাপাশি জোড়া থাকে। একটি অংশ বারান্দা হিসেবে ব্যবহৃত হয় এবং অন্য অংশটি মন্দির হিসেবে ব্যবহৃত হয়।[২]

উল্লেখযোগ্য উদাহরণসম্পাদনা

পশ্চিমবঙ্গেসম্পাদনা

স্থান জেলা প্রতিষ্ঠাকাল চিত্র
কালনা বর্ধমান জেলা ১৭৩৯ খ্রীঃ
 
সিদ্ধেশ্বরী কালীমন্দির
বিষ্ণুপুর[৩] বাঁকুড়া জেলা ১৬৫৫ খ্রীঃ
 
জোড় বাংলা
গড়পঞ্চকোট[৪]:২০০ পুরুলিয়া জেলা
 
জোড় বাংলা
গুপ্তিপাড়া হুগলী জেলা চিত্র:শ্রীচৈতন্যের মন্দির

বাংলাদেশেসম্পাদনা

  • গোপীনাথ জোড় বাংলা পাবনা শহর থেকে ১ কিলোমিটার (০.৬২ মা) পূর্বে অবস্থিত একটি হিন্দু মন্দির। এই মন্দিরটির প্রতিষ্ঠাকাল সম্পর্কে নির্ভরযোগ্য তথ্য পাওয়া যায় না।[৫] এটি পাবনা জেলার অন্যতম প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন এং দর্শনীয় স্থান।

তথ্য উৎসসম্পাদনা

  1. Ghosh, P. (২০০৫)। Temple To Love: Architecture And Devotion In Seventeenth-Century Bengal। Indiana University Press। আইএসবিএন 9780253344878 
  2. Priyanka Mangaonkar (২০১২)। "Temples of Bengal: Material Style and Technological Evolution" (PDF)Chitrolekha International Magazine On Art And Design2 (1)। 
  3. মন্দির নগরী বিষ্ণুপুর, বিশ্বজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়, মুদ্রক - মিনার্ভা অফসেট, বিষ্ণুপুর
  4. সুভাষ রায়, পুরুলিয়া জেলার পুরাকীর্তি, পুরুলিয়ার কয়েকটি প্রত্নস্থল, অনৃজু প্রকাশনী, চেলিয়ামা, পুরুলিয়া, ৭২৩১৪৬, প্রথম প্রকাশ, আশ্বিন ১৪১৯
  5. Mrinmoyee Ray (২০১২)। "Representation in Monument Building and Schematic of Terracotta Narratives: Delving into Some Aspects of Gopinath Jor-Bangla Temple, Pabna, Bangladesh" (PDF)Chitrolekha International Magazine On Art And Design2 (1)।