জিয়াউল হক (সমাজসেবক)

জিয়াউল হক (জন্ম ৬ জুন ১৯৩৪[১]) হলেন একজন বাংলাদেশি সমাজসেবক।[২] সমাজসেবায় বিশেষ অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে ২০২৪ সালে একুশে পদক প্রদান করে।[৩]

মো: জিয়াউল হক
জন্ম (1934-06-06) ৬ জুন ১৯৩৪ (বয়স ৮৯)
চাঁপাইনবাবগঞ্জ
জাতীয়তাবাংলাদেশি
পেশাসমাজসেবক
পুরস্কারএকুশে পদক (২০২৪)

জিয়াউল হক ১৯৩৪ সালের ৬ জুন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার বর্তমান ভোলাহাট উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন।[৪] তার পিতার নাম তৈয়ব আলী মোল্লা এবং মাতা শরীফুন নেছা।[৫] ১৯৫৫ সালে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত পড়ালেখার সুযোগ পেয়েছিলেন।[২] পরে পারিবারিক অভাবের কারণে আর শিক্ষাজীবন চালিয়ে নিতে পারেননি। পিতামাতা মৃ্ত্যুবরণ করার পর তাকে পরিবারের হাল ধরতে হয়। পরবর্তীতে তিনি দই প্রস্তুতকারক এবং ফেরী করে দই বিক্রির পেশা বেছে নেন।[৫] একইসাথে সাংসারিক খরচ চালানোর পর উদ্বৃত্ত টাকা জমিয়ে ১৯৬৯ সালে গড়ে তুলেন ‘জিয়াউল হক সাধারণ পাঠাগার’। তবে ১৯৬০ সাল থেকেই তিনি তার জেলার অস্বচ্ছল পরিবারের শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরন করতে থাকেন।[৬]

এর পাশাপাশি তিনি জেলার বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রম যেমন অবকাঠামো নির্মাণ থেকে শুরু করে এলাকার খাবার পানি সংকট নিরসনে কাজ করেছেন।[৪] দীর্ঘদিন ধরে ধারাবাহিকভাবে সমাজসেবার স্বীকৃতি হিসেবে বাংলাদেশ সরকার তাকে ২০২৪ সালে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদক প্রদান করে।[২] ২০০৬ সালে ইউনিলিভার বাংলাদেশ তাকে ‘সাদা মনের মানুষ’ পদকে ভূষিত করে। এছাড়াও তিনি স্থানীয় বেশ কিছু পুরস্কার লাভ করেন।[৫]

জিয়াউল ব্যক্তিগত জীবনে দুই কন্যা ও এক ছেলেসন্তানের জনক। প্রথম স্ত্রী সারাবান তহুরার মৃত্যুর পর তিনি ফরিদা হকের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।[৬]

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. আলী, আনোয়ার (১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪)। "স্কুল থেকে ঝরেপড়াদের রক্ষায় দই বিক্রেতা জিয়াউল হকের ৬ দশকের যাত্রা"ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ 
  2. হোসেন, আনোয়ার (১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪)। "একুশে পদক পাওয়ায় বাড়িতে মানুষের ভিড়, জিয়াউল হক ব্যস্ত দই বিক্রিতে"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ 
  3. "একুশে পদক প্রদান-২০২৪ অনুষ্ঠানে প্রাপ্ত সুধীজনদের তালিকা" (পিডিএফ)www.moca.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০২-১৩ 
  4. "দই বেচে বই বিলানো জিয়াউল পাচ্ছেন একুশে পদক"দৈনিক ইত্তেফাক। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ 
  5. প্রতিনিধি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ (১ জানুয়ারি ১৯৭০)। "সমাজসেবায় একুশে পদক পেলেন 'দই বিক্রেতা' জিয়াউল হক"ঢাকা পোস্ট। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ 
  6. "দই বেচে বই কিনে শিক্ষার আলো ছড়ানো জিয়াউল পাচ্ছেন একুশে পদক"আরটিভি। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪