জামিয়া ফারুকিয়া করাচি

''জামিয়া ফারুকিয়া করাচি'' পাকিস্তানের বিখ্যাত ইসলামী প্রতিষ্ঠানগুলির একটি। প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৬৭ সালে। বর্তমানে মাদ্রাসাটিতে প্রায় ২৩০০ শিক্ষার্থী শিক্ষা বিভাগে লেখাপড়া করছেন। জামিয়া ফারুকিয়ায় ছাত্রদেরকে শিক্ষাদান, বই, খাবার, বাসস্থান, চিকিৎসা সেবা, এবং অন্যান্য সুবিধাগুলি ফ্রীতে প্রদান করা হয়। সকল খরছ সাধারনতঃ মুসলিম উম্মাহর দান এবং দাতব্য উপহার থেকে হয়ে থাকে।[১]

জামিয়া ফারুকিয়া করাচি
ধরনইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়
স্থাপিত১৯৬৭
অধিভুক্তিদারুল উলুম দেওবন্দ
আচার্যশাইখুল হাদিস মাওলানা সলিমুল্লাহ খান
শিক্ষার্থী২৩০০ [১]
অবস্থান,
শিক্ষাঙ্গনশহুরে (৯ একর)
ওয়েবসাইটhttp://www.farooqia.com/fp/fp.php

শিক্ষার বিষয় সমূহ সম্পাদনা

জামিয়া তার শিক্ষা ব্যবস্থাকে নিম্ন স্তরে বিভক্ত করেছে:

ধর্মীয় শিক্ষার বিষয় সমূহ:

  • আরবি ভাষা, নহব, সরফ, বালাগাত ও আরুয।
  • ফিকহ ও উছুলে ফিকহ।
  • তাফসির ও উছুলে তাফসির।
  • হাদীস ও উছুলে হাদীস।
  • তাজবীদ।
  • ফারাইয
  • ইসলামের রাষ্ট্র বিজ্ঞান ও সিরাত।
  • ইসলামের অর্থনীতি।
  • ইসলামের সমাজ বিজ্ঞান ও সিরাত।
  • ইসলামের দর্শন।
  • পরিবার বিজ্ঞান।

বৈষয়িক জ্ঞান-বিজ্ঞান সমূহ:

বাংলা এবং বাংলা ব্যকরণ।

ইংরেজি এবং ইংরেজি গ্রামার।

উর্দূ ও উর্দূ কাওয়ায়েদ।

ফারসি ও ফারসি কাওয়ায়েদ।

গণিত ও জ্যামিতি।

ইতিহাস।

ভূগোল।

বিজ্ঞান।

মানতিক।

মুনাযারা।

পাশ্চাত্যের দর্শন।

আরও দেখুন সম্পাদনা

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৬ আগস্ট ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৯ 
  2. http://wikimapia.org/3962932/Jamia-Farooqia

বহিঃসংযোগ সম্পাদনা