চৌম্বক ভ্রামক

অ্যাম্পিয়ার বর্গ মিটার এককে বাহ্যিক পরিমাপ

চৌম্বক ভ্রামক (ম্যাগনেটিক মোমেন্ট) হলো চুম্বক বা অন্য কোনও বস্তুর চৌম্বক প্রাবল্য এবং অরিয়েন্টেশন যা চৌম্বক ক্ষেত্র উৎপাদন করে। অন্যভাবে, চুম্বকের চৌম্বক ভ্রামক হলো এমন একটি পরিমাণ যা সেই চুম্বকটি তড়িৎ প্রবাহে যেই বল প্রয়োগ করে তা এবং টর্ক যা একটি চৌম্বক ক্ষেত্র এর উপর প্রয়োগ করে তা নিরূপণ করে। চৌম্বক ভ্রামক রয়েছে এমন কিছু সামগ্রীর উদাহরণ হলো: তড়িৎ প্রবাহের লুপ (যেমন তড়িচ্চুম্বক), স্থায়ী চুম্বক, চলন্ত মৌলিক কণা (যেমন ইলেক্ট্রন), বিভিন্ন অণু এবং অনেক জ্যোতির্বিদ্যা সংক্রান্ত বস্তু (যেমন অনেক গ্রহ, কিছু উপগ্রহ, তারা ইত্যাদি)।

আরও স্পষ্টভাবে, চৌম্বক মূহুর্ত শব্দটি সাধারণত একটি ব্যাবস্থার চৌম্বক দ্বিমেরু ভ্রামককে বোঝায়, চৌম্বক মুহুর্তের উপাদান যা একটি সমতুল চৌম্বক দ্বিমেরু (খুব অল্প দূরত্বে পৃথক হওয়া একটি চৌম্বক উত্তর এবং দক্ষিণ মেরু) দ্বারা চিত্রিত করা যায়। চৌম্বকীয় দ্বিমেরু উপাদান যথেষ্ট ছোট চৌম্বকের যথেষ্ট বড় দূরত্বের জন্য যথেষ্ট। বর্ধিত বস্তুর জন্য দ্বিমেরু মুহুর্ত ছাড়াও উচ্চতর ক্রমের পরিভাষা (যেমন চৌম্বক চতুষ্মেরু মুহুর্ত) প্রয়োজন হতে পারে।

কোনো বস্তু একটি চৌম্বক ক্ষেত্রে যে টর্ক অনুভব করে তার পরিভাষায় সহজেই চৌম্বক দ্বিমেরু ভ্রামককে সংজ্ঞায়িত করা যায়। একই প্রয়োগ কৃত চৌম্বক ক্ষেত্র বৃহত্তর চৌম্বক মুহুর্ত সম্পন বস্তুতে বেশী টর্ক উৎপন্ন করে। এই টর্কের শক্তি (এবং দিক) কেবল চৌম্বক মুহুর্তের মাত্রাই নয় বরং চৌম্বক ক্ষেত্রের দিকের সাথে সম্পর্কিত অরিয়েন্টেশনের উপরও নির্ভর করে। চৌম্বক মুহুর্তকে ভেক্টর হিসাবে বিবেচনা করা যেতে পারে। চৌম্বক মুহুর্তের দিক চৌম্বকের দক্ষিণ থেকে উত্তর মেরুতে (চৌম্বকের অভ্যন্তরে) নির্দেশীত হয়।

একটি চৌম্বক দ্বিমেরুর চৌম্বক ক্ষেত্র তার চৌম্বক দ্বিমেরু ভ্রামকের সমানুপাতিক। কোনও বস্তুর চৌম্বকক্ষেত্রের দ্বিমেরু উপাদানটি তার চৌম্বক দ্বিমেরু ভ্রামকের দিক সম্পর্কে প্রতিসাম্যপূর্ণ এবং বস্তু থেকে দূরত্বের বিপরীত ঘনক (−3) হিসাবে হ্রাস পায়।

সংজ্ঞা, একক ও পরিমাপসম্পাদনা

সংজ্ঞাসম্পাদনা

পাঠ্য বইয়ে চৌম্বক মুহুর্তকে সংজ্ঞায়িত করতে দুটি পরিপূরক পদ্ধতির ব্যবহার করা হয়। ১৯৩০-এর পূর্বের পাঠ্যপুস্তকে এগুলি চৌম্বক মেরু ব্যবহার করে সংজ্ঞায়িত করা হয়েছিল। [১] সাম্প্রতিক পাঠ্যপুস্তকগুলি অ্যাম্পিয়ারিয় প্রবাহের পরিভাষায় একে সংজ্ঞায়িত করে।

চৌম্বক মেরুর সংজ্ঞাসম্পাদনা

 
চৌম্বক মুহূর্তের জন্য একটি স্থির তড়িৎ উপমা: সসীম দূরত্বে পৃথক দুটি বিপরীত আধান।

পদার্থবিজ্ঞানীরা বস্তুর চৌম্বক মুহূর্তের উৎসকে মেরু হিসাবে উপস্থাপন করেন। উত্তর এবং দক্ষিণ মেরু স্থির তড়িৎ বিজ্ঞানে ধনাত্মক এবং ঋণাত্মক আধানের একটি সাদৃশ্য। একটি দণ্ড চুম্বক বিবেচনা করুন যার সমান মাত্রার কিন্তু বিপরীত মেরুর চৌম্বক মেরু রয়েছে। প্রতিটি মেরু চৌম্বক বলের উৎস যা দূরত্বের সাথে দুর্বল হয়ে পড়ে। যেহেতু চৌম্বক মেরু সর্বদা জোড়ায় থাকে তাই তাদের বল একে অপরকে আংশিকভাবে বাতিল করে দেয় কারণ যখন একটি মেরু আকর্ষণ করে, অন্যটি তখন বিকর্ষণ করে। যখন মেরু একে অপরের নিকটে থাকে অর্থাৎ যখন দণ্ড চুম্বকটি ছোট হয় তখন এই বাতিলকরণটি সর্বাধিক হয়। কোনো স্থানের একটি নির্দিষ্ট বিন্দুতে একটি দণ্ড চুম্বক দ্বারা উৎপাদিত চৌম্বক বল দুটি বিষয়ের উপর নির্ভর করে।

উভয় মেরুর প্রাবল্য   ও এদের পৃথক করা ভেক্টর  হলে মূহূর্তটিকে এভাবে সংজ্ঞায়িত করা যায় [১]

 

এটি দক্ষিণ থেকে উত্তর মেরুতে নির্দেশ করে। বৈদ্যুতিক দ্বিমেরুর সাথে সাদৃশ্যটি খুব বেশি ধরে নেওয়া উচিত নয় কারণ চৌম্বক দ্বিমেরু কৌণিক ভরবেগের সাথে জড়িত (চৌম্বক মুহূর্ত ও কৌণিক ভরবেগ দেখুন)। তবুও চৌম্বক মেরু স্থির চুম্বকীয় গণনাগুলির জন্য খুব দরকারি, বিশেষত ফেরোচুম্বক (অয়শ্চৌম্বক)-এর ক্ষেত্রে। চৌম্বক মেরু পদ্ধতির ব্যবহারকারীরা চুম্বক ক্ষেত্রকে সাধারণত তড়িৎ ক্ষেত্র   এর সাদৃশ্যে ইরোটেশনাল ক্ষেত্র   এর মাধ্যমে উপস্থাপন করেন।

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Brown, Jr., William FullerMagnetostatic Principles in Ferromagnetism। North-Holland। 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা