তড়িৎ বা আধান যখন চলাচল করে না, বরং কোন বস্তুতে আবদ্ধ থাকে, তখন তাকে স্থির তড়িৎ (ইংরেজি ভাষায়: Static electricity) বলে। পদার্থবিজ্ঞানের যে শাখায় এই স্থির তড়িৎ নিয়ে আলোচনা করা হয় তাকে ইংরেজি ভাষায় Electrostatics বলে। বাংলায় অধ্যয়নের এই ক্ষেত্রটিকেও সাধারণভাবে স্থির তড়িৎ নামে আখ্যায়িত করা হয়।

স্থির বিদ্যুতের সাধারণ উদাহরণ - কোন আহিত দন্ডকে কাগজের টুকরোর কাছে আনলে দন্ডের মধ্যস্থিত স্থির বিদ্যুতের কারণে কাগজের টুকরোগুলো আকর্ষিত হয়। আঁন্দ্রে লুটনের (André Lütken) ১৮৭৮ সালের বুক অব ইনভেনশনস (Opfindelsernes Bog বা Book of inventions থেকে গৃহীত।

কারণসম্পাদনা

সাধারণত একটি পদার্থ যেসব অণুসমূহের সমন্বয়ে গঠিত, তারা সবাই মিলে একটি আধান নিরপেক্ষ (charge neutral) পরিবেশ তৈরি করে। এমনকি যদি পদার্থটি আয়নের সমষ্টি হয়, তবে তার ধনাত্মক আয়ন ও ঋণাত্মক আয়নের সংখ্যা সমান হয়। কোন কারণে, যদি এই পদার্থটির সাথে অন্য কোন পদার্থের ঘর্ষণ হয়, তবে এই পদার্থদ্বয়ের মাঝে কিছু আধানের (চার্জের) আদান প্রদান হয়। ফলশ্রুতিতে, এই দুটি পদার্থের একটিতে কিছু অতিরিক্ত ঋণাত্মক ও অপরটিতে কিছু অতিরিক্ত ধনাত্মক আধান জমা হয়। অর্থাৎ, এরা আর তখন আধান নিরপেক্ষ থাকে না।

কোন পদার্থটি ধনাত্মক আর কোন পদার্থটি ঋণাত্মক আধানে আধিত (charged) হবে, সেটা নির্ধারিত হয় পদার্থগুলো চার্জের প্রতি আসক্তি কতটা বেশি তার উপর। এই আসক্তির উপর ভিত্তি করে আগে থেকেই বলা সম্ভব দুটি পদার্থের ঘর্ষণের ফলে কোনটি ধনাত্মক আর কোনটি ঋণাত্মক আধানে আধিত হবে।

বহিঃসংযোগ ও প্রাসঙ্গিক অধ্যয়নসম্পাদনা

সাধারণ
প্রবন্ধ
বই