গারট্রুড স্টেইন

গারট্রুড স্টেইন (ইংরেজি: Gertrude Stein; ৩ ফেব্রুয়ারি ১৮৭৪ - ২৭ জুলাই ১৯৪৬) ছিলেন একজন মার্কিন ঔপন্যাসিক, কবি, নাট্যকার ও শিল্প সংগ্রাহক। পিট্‌সবার্গের নিকটবর্তী আলেঘেনি ওয়েস্টে জন্মগ্রহণকারী স্টেইন ক্যালিফোর্নিয়ার ওকল্যাণ্ডে বেড়ে ওঠেন এবং ১৯০৩ সালে প্যারিস চলে যান। বাকি জীবন তিনি সেখানেই কাটান। তিনি প্যারিস সালুনের মালিক ছিলেন, যেখানে সাহিত্য ও শিল্পকলার আধুনিকতাবাদী প্রধান ব্যক্তিত্বরা, যেমন পাবলো পিকাসো, আর্নেস্ট হেমিংওয়ে, এফ. স্কট ফিট্‌জেরাল্ড, সিনক্লেয়ার লুইস, এজরা পাউন্ড, শেরউড অ্যান্ডারসন, অঁরি মাতিস, মিলিত হয়েছিলেন।

গারট্রুড স্টেইন
১৯৩৫ সালে স্টেইন (কার্ল ভ্যান ভেচটেনের তোলা ছবি)
১৯৩৫ সালে স্টেইন (কার্ল ভ্যান ভেচটেনের তোলা ছবি)
স্থানীয় নাম
Gertrude Stein
জন্ম(১৮৭৪-০২-০৩)৩ ফেব্রুয়ারি ১৮৭৪
আলেঘেনি, পেন্সিলভেনিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
মৃত্যুজুলাই ২৭, ১৯৪৬(1946-07-27) (বয়স ৭২)
নোইলি-সুর-সিন, ফ্রান্স
পেশাঔপন্যাসিক, কবি, নাট্যকার, শিল্প সংগ্রাহক
জাতীয়তামার্কিন
সাহিত্য আন্দোলনআধুনিকতাবাদী সাহিত্য
সঙ্গীঅ্যালিস বেবেট টোলকাস

স্বাক্ষর

১৯৩৩ সালে স্টেইন তার প্যারিসের জীবন নিয়ে একটি খণ্ড-স্মৃতিকথা দি অটোবায়োগ্রাফি অব অ্যালিস বি. টোকলাস প্রকাশ করেন, যা তার সঙ্গী অ্যালিস বি. টোকলাসের বর্ণনায় বিবৃত হয়েছে। বইটি সর্বাধিক বিক্রীত বইয়ের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয় এবং স্টেইনকে কাল্ট-সাহিত্যের তুলনামূলক অস্পষ্টতা থেকে মূলধারার দৃষ্টি আকর্ষণে ভূমিকা পালন করে। তার দুটি উক্তি সর্বত্র পরিচিতি লাভ করে: "গোলাপ হল গোলাপ হল গোলাপ হল গোলাপ" এবং "কোন কিছু নেই", দ্বিতীয় উক্তিটি তার ওকল্যাণ্ডের বাড়িকে বুঝাতে ব্যবহৃত হয়।[১]

তার অন্যান্য বই হল তার বান্ধবী ফের্নহার্স্টসহ আরও কয়েকজন সমকামী নারীর প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে কিউ.ই.ডি. (১৯০৩), কল্পনাধর্মী ত্রিকোণ প্রেমের গল্প থ্রি লাইভস (১৯০৫-০৬), ও দ্য মেকিং অব আমেরিকান্স (১৯০২-১১)। টেন্ডার বাটন্স (১৯১৪) বইতে স্টেইন সমকামী নারীর যৌনতা নিয়ে মন্তব্য করেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Extravagant Crowd | Gertrude Stein & Alice B. Toklas"brbl-archive.library.yale.edu। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুন ২০১৯ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

পুরস্কার ও স্বীকৃতি
পূর্বসূরী
জ্যাক ক্রফোর্ড
টাইম ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদ
১১ সেপ্টেম্বর ১৯৩৩
উত্তরসূরী
জর্জ এফ. জুক