কোসতাস মারতাকিস

গ্রিক গায়ক

কোসতাস মারতাকিস (গ্রিক: Κώστας Μαρτάκης) (জন্ম ২৫ মে, ১৯৮৪; এথেন্স, গ্রিস) [১] হলেন একজন গ্রিক গায়ক। তিনি ২০০৬ সালে আলফা টিভিতে সম্প্রচারিত ড্রিম শো নামে একটি ট্যালেন্ট শো-তে অংশগ্রহণ এবং ইউরোভিশন সং কনটেস্ট ২০০৮-এর গ্রিক ন্যাশানাল ফাইনালে অংশগ্রহণ করে খ্যাতি অর্জন করেন।

কোসতাস মারতাকিস
Κώστας Μαρτάκης
MARTAKHSARMY.jpg
প্রাথমিক তথ্য
উদ্ভবএথেন্স, গ্রিস
ধরনপপ, পপ রক, ড্যান্স
কার্যকাল২০০৬-বর্তমান
লেবেলসোনি বিএমজি গ্রিস (২০০৬-২০০৯)
ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রিস (২০০৯-বর্তমান)

জীবনসম্পাদনা

প্রথম জীবনসম্পাদনা

কোসতাস মারতাকিস ১৯৮৪ সালের ২৫ মে এথেন্স শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতামাতা নিকোস মারতাকিস ও লাবরিনি মারতাকি ক্রিটীয় বংশোদ্ভুত। মারতাকিসের এক দিদি রয়েছে। পিতামাতার বিবাহবিচ্ছেদের পর তিনি মায়ের সঙ্গে থাকতেন।

২০০৬–২০০৭: ড্রিম শো ও প্রথম অ্যালবামসম্পাদনা

মারতাকিস প্রথম খ্যাতি অর্জন করেছিলেন ড্রিম শো নামে একটি রিয়েলিটি ট্যালেন্ট শো-তে অংশগ্রহণ করে। এর আগে তিনি মডেলিং করতেন। তাছাড়া তিনি কয়েকটি ছোটোখাটো শখের লিগে বাস্কেটবল খেলেও কিছু পদক পেয়েছিলেন।[১] পাশাপাশি মারতাকিস আমেরিকান কলেজ অফ গ্রিস থেকে কম্পিউটার প্রযুক্তি নিয়ে পড়াশোনা করছিলেন। ড্রিম শো-তে আবির্ভাবের অল্পকাল পরে তিনি সোনি বিএমজি গ্রিসের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন এবং ২০০৬ সালের গ্রীষ্মে তার একক সিডি অ্যালবাম "পান্ডা মাজি" (সর্বদা একসঙ্গে) প্রকাশ করেন। ২০০৬ সালের শীতে কারতাকিস দেসপিনা ভান্ডি ও জিওরগস মাজোনাকিসের সঙ্গে রেক্স নাইট ক্লাবে সংগীতানুষ্ঠান করেন। ২০০৭ সালের গ্রীষ্ম থেকে তিনি কেলি কেলেকিদৌ ও দিওনিসিস মাকরিসের সঙ্গে রোমিও সামার ক্লাবে গান গাইতে শুরু করেন।

 
লাটভিয়ায় আয়োজিত আন্তর্জাতিক সংগীত প্রতিযোগিতা নিউ ওয়েভ ফেস্টিভ্যাল ২০০৭-এ কোসতাস মারতাকিস। এই প্রতিযোগিতায় তিনি দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছিলেন।

২০০৭ সালের জুন মাসে তিনি তার প্রথম স্টুডিও অ্যালবাম "আনাত্রোপি" (রিহার্সাল) প্রকাশ করেন। এই অ্যালবামটি সব জায়গাতেই ভালভাবে গৃহীত হয় এবং তিনি ম্যাড ভিডিও মিউজিক অ্যাওয়ার্ডস ২০০৭-এ "শ্রেষ্ঠ নবাগত শিল্পী"র পুরস্কারটি লাভ করেন।

২০০৭ সালের গ্রীষ্মে তিনি "নিউ ওয়েভ ফেস্টিভ্যাল ২০০৭" নামে লাটভিয়ায় আয়োজিত একটি আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে দ্বিতীয় স্থান এবং জনগণের ভোটে প্রথম স্থান অধিকার করেন। এরপরই সোনি বিএমজি রাশিয়া পূর্বতন সোভিয়েত দেশগুলিতে একটি ইংরেজি অ্যালবাম প্রকাশের জন্য তাকে বুক করে নেয়। তবে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হয়নি এবং রাশিয়ান শাখার সঙ্গে তার চুক্তিও বাতিল হয়ে যায়।

২০০৮: গ্রিসের ইউরোভিশন ন্যাশানাল ফাইনালসম্পাদনা

তার ক্রমবর্ধমান জনপ্রিয়তা দেখে ইআরটি তাকে ইউরোভিশন সং কনটেস্ট ২০০৮-এর গ্রিক ন্যাশানাল ফাইনাল প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে বলে। কোসতাস মারতাকিস গ্রিক ন্যাশানাল ফাইনালে ভিকি গেরোথোদোরৌ-এর লেখা ও দিমিত্রিস কোনতোপৌলোসের গাওয়া একটি গান গেয়েছিলেন।[২] গানটি ছিল "অলওয়েজ অ্যান্ড ফরএভার"।[৩] গানটি দুটি ভিন্ন গায়কীতে রেকর্ড করা হয়। পপ রক সংস্করণটিই প্রথমে ন্যাশানাল ফাইনালে গাওয়ার জন্য নির্বাচন করা হয়েছিল। কিন্তু শেষে মারতাকিস ও তার লেবেল ড্যান্স সংস্করণটি বেছে নেন।[৪] বিজয়ী হয় কালোমইরা-র "সিক্রেট কম্বিনেশন" গানটি। মারতাকিসের গানটি দ্বিতীয় হয়। এরপর "অলওয়েজ অ্যান্ড ফরএভার"-এর রাশিয়ান কভারে ড্যান্স সংস্করণটির ভিত্তিতে "С тобой навеки" (তোমার সঙ্গে চিরকাল) গানটি পূর্বতন সোভিয়েত দেশগুলিতে প্রকাশিত হয়। ২০০৮ সালের ডিসেম্বর মাসে "অলওয়েজ অ্যান্ড ফরএভার" গানটি আমেরিকান রিটেলার অ্যাবারক্রোম্বি অ্যান্ড ফিচ-এর দেশব্যাপী মার্কিন ইন-স্টোর মিউজিক প্লে-লিস্টের অন্তর্ভুক্ত হয় পরোক্ষভাবে আমেরিকার বাজারে চলে আসে।

 
২০০৮ সালে এথেন্সে জেনিফার লোপেজমার্ক অ্যান্টনির সঙ্গে কোসতাস মারতাকিস

কোসতাস মারতাকিস ও ড্যানিশ-গ্রিক গায়ক শায়াকে বেছে নেওয়া হয় ডিজনির হাই স্কিল মিউজিক্যাল ৩: সিনিয়র ইয়ার চলচ্চিত্রের "রাইট হিয়ার, রাইট নাও" গানটির গ্রিক সংস্করণটি গাইবার জন্য। কভারের নাম ছিল "Mikroi Theoi" (ছোটো দেবতারা)। এটি ছবির গ্রিক সংস্করণের একটি সিঙ্গল-অফ হিসেবেও প্রকাশিত হয়। মারতাকিস ও শায়া ছবির দৃশ্য অবলম্বনে নির্মিত একটি মিউজিক ভিডিওতে অভিনয়ও করেন। ছবিটির গ্রিক সংস্করণের হোম ভিডিও রিলিজের একটি অতিরিক্ত ফিচার ছিল এই মিউজিক ভিডিওটি। ওয়াল্ট ডিজনি রেকর্ডস তার আন্তর্জাতিক পরিবেশক সহযোগী ইএমআই-এর মাধ্যমে গানটির অনেকগুলি বিদেশী সংস্করণ কমিশন করেন। তবে "Mikroi Theoi" ছিল গানটার একমাত্র গ্রিক সংস্করণ।

মারতাকিসের আর একটি একক গান হল "Fila Me"। এটি ডিজিট্যাল সিঙ্গল হিসেবে প্রকাশিত হয়। এরপর কিছুকাল রেকর্ডিং ও লাইভ শো বন্ধ রেখে মারতাকিস যান গ্রিক নৌবাহিনীতে বাধ্যতামূলক সামরিক দায়িত্ব পালন করতে।

২০০৮ সালের হেমন্তে কোসতাস মারতাকিস জেনিফার লোপেজের এথেন্স কনসার্টের ওপেনিং অ্যাক্ট ছিলেন। অনুষ্ঠানের আয়োজকরা অনেক গ্রিক শিল্পীর ভিডিও স্ক্রিনিং করে তাকে নির্বাচিত করেন। ২০০৮ সালের নভেম্বরে আমেরিকান টেলিভিশন স্টেশন ই! মারতাকিসকে "২৫ মোস্ট সেক্সি মেন ইন দ্য ওয়ার্ল্ড" তালিকাভুক্ত করে এবং তাকে একজন "গ্রিক দেবতা" আখ্যা দেয়।

২০০৯–বর্তমান: দ্বিতীয় অ্যালবাম পিও কোনতাসম্পাদনা

২০০৯ সালের মার্চ মাসে কোসতাস মারতাকিস ঘোষণা করেন যে তিনি ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রিসের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। সোনি বিএমজি থেকে তার নয়টি একক গান প্রকাশিত হয়েছিল। কিন্তু ২০০৯ সালে ওই লেবেল থেকে তার প্রস্থান নির্ঝঞ্ঝাটেই ঘটে যায়।[৫]

২০০৯ সালের জুন মাসে মারতাকিস ডিজিট্যাল ডাউনলোড সিঙ্গল হিসেবে পিও কোনতা (কাছে এসো) নামে একটি গান প্রকাশ করেন। গানটির কথা সুইডিস প্রযোজক হোলটার ও এরিস্কসনের। দিমিত্রিস সিলভেস্ত্রোস পরিচালিত একটি মিউজিক ভিডিও অনতিবিলম্বেই প্রকাশিত হয়।[৬] ২০০৯ সালের ১২ নভেম্বর মারতাকিস তার দ্বিতীয় প্ল্যাটিনাম অ্যালবাম পিও কোনতা প্রকাশ করেন।

ডিস্কোগ্রাফিসম্পাদনা

স্টুডিও অ্যালবামসম্পাদনা

All the albums listed below were released in Greece and Cyprus.

বছর নাম শংসাপত্র
২০০৭ আনাত্রোপি -
২০০৯ পিও কোনতা প্ল্যাটিনাম

সিডি সিঙ্গলসসম্পাদনা

বছর নাম শংসাপত্র
২০০৬ পান্ডা মাজি -
2008 অলওয়েজ অ্যান্ড ফরএভার -

পাদটীকাসম্পাদনা

  1. "ΒΙΟΓΡΑΦΙΚΟ"। ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০১১  ERT. Retrieved on February 19, 2008
  2. "Στην τελική ευθεία ο Κώστας Μαρτάκης"  MAD TV. Retrieved on January 23, 2008 (গ্রিক)
  3. "Kostas Martakis to sing 'Always & Forever'"। ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০১১  Oikotimes. Retrieved on January 23, 2008
  4. "Κ.Μαρτάκης: Με την dance version στον τελικό"। ৩ মার্চ ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০১১  Eurovision-Greece. Retrieved on March 21, 2008
  5. "Ο Μαρτάκης τελειώνει τη θητεία του και γίνεται Universal"  MAD TV. Retrieved on March 4, 2009
  6. http://www.youtube.com/watch?v=BSCgX3XPdJY&feature=channel_page

বহিঃসংযোগসম্পাদনা