কামালউদ্দিন হোসেন

বাংলাদেশী বিচারক

বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেন (৩১ মার্চ ১৯২৩ - ২১ আগস্ট ২০১৩) বাংলাদেশের একজন প্রখ্যাত আইনবিদ এবং ৩য় প্রধান বিচারপতি। তিনি বাংলাদেশ আইন সংস্কার কমিটির প্রথম চেয়ারম্যান হিসাবেও দায়িত্ব পালন করেন।[২]

মাননীয় প্রধান বিচারপতি

কামালউদ্দিন হোসেন
কামালউদ্দিন হোসেন.jpg
বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি
কাজের মেয়াদ
১ ফেব্রুয়ারি ১৯৭৮ – ১১ এপ্রিল ১৯৮২
পূর্বসূরীবিচারপতি সৈয়দ এ. বি. মাহমুদ হোসেন
উত্তরসূরীবিচারপতি এফ. কে. এম. এ মুনিম
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম৩১ মার্চ ১৯২৩
নোয়াখালী সদর
মৃত্যু২১ আগস্ট ২০১৩
ঢাকা, বাংলাদেশ
নাগরিকত্ব বাংলাদেশ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
সন্তানইজাজ হোসেন[১]
ইশতিয়াক হোসেন[১]
বাসস্থানঢাকা
পেশাআইন
জীবিকাআইনবিদ
ধর্মইসলাম

জন্ম ও পারিবারিক পরিচিতিসম্পাদনা

কামালউদ্দিন হোসেন ১৯২৩ সালের ৩১ মার্চ তারিখে সোনাপুর গ্রাম, সুধারাম উপজেলা, নোয়াখালী জেলা জন্মগ্রহণ করেন।[৩]

শিক্ষাজীবনসম্পাদনা

কামালউদ্দিন হোসেন ১৯৪৫ সালে কলকাতা থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন।[৩]

কর্মজীবনসম্পাদনা

কামালউদ্দিন হোসেন ১৯৬৮ সালে পূর্ব পাকিস্তান হাইকোর্টে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল হিসাবে এবং ১৯৬৯ সালে হাইকোর্ট বিভাগের বিচারক হিসাবে নিয়োগ পান।[১][৪]

১৯৭৪ সালে বাংলাদেশ আইন সংস্কার কমিটি গঠিত হলে বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেন সেটির প্রথম চেয়ারম্যান হিসাবে নিয়োগ লাভ করেন।[৫]

১৯৭৮ সালের ৩১ জানুয়ারি তারিখে বিচারপতি সৈয়দ এ. বি. মাহমুদ হোসেনের অবসর গ্রহণের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশের ৩য় প্রধান বিচারপতি হিসাবে কামালউদ্দিন হোসেনকে নিয়োগ প্রদান করেন এবং তিনি ১৯৭৮ সালের ১ ফেব্রুয়ারি তারিখে প্রধান বিচারপতি হিসাবে শপথ গ্রহণ করেন[৬] ও ১৯৮২ সালের ১১ এপ্রিল তারিখে তৎকালীন সামরিক সরকার তাকে প্রধান বিচারপতির পদ হতে জোর পূর্বক অপসারণ করে।[৩]

তিনি ১৯৯৮ সালে বাংলাদেশ আইন কমিশনের চেয়ারম্যান হন এবং ২০০১ সালে উক্ত পদ হতে অবসরে গ্রহণ করেন।[৩][৪]

 
সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেনের জন্মদিনে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা’র শিশুদের নিয়ে তিনি জন্মদিনের কেক কাটছেন।

[৭] কামালউদ্দিন হোসেন জাতীয় শিশু সংগঠন ‘বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা’র প্রতিষ্ঠাতা প্রধান উপদেষ্টা। এই সংগঠনে পাঠাগার স্থাপনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন তিনি। শিশুদের মানসিক বিকাশে বই পড়ার গুরুত্ব আরোপ করে সংগঠনের কেন্দ্রীয় ও শাখাসমূহে পাঠাগার স্থাপনের পরামর্শ দেন। তাঁর ঐকান্তিক সহযোগিতা ও পরামর্শে সংগঠনের প্রতিষ্ঠালগ্নে স্বলপরিসরে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার পাঠাগার গড়ে উঠে।

রচনাবলীসম্পাদনা

পুরস্কার ও সম্মাননাসম্পাদনা

মৃত্যুসম্পাদনা

ক্যান্সারে আক্রান্ত[৮] হয়ে বিচারপতি কামালউদ্দিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২০১৩ সালের ২১ আগস্ট বুধবার ভোর ৪টা ৫৫ মিনিটে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে ৯০ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।[৪]

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "বিচারপতি কামাল উদ্দিন হোসেন আর নেই"। ২০১৬-০৩-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৭-০৮ 
  2. "সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন আর নেই"। ৫ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুলাই ২০১৫ 
  3. সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেন আর নেই।[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. চলে গেলেন সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেন।
  5. সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন আর নেই।
  6. সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন আর নেই।
  7. "Previous Committee 2005-2008"Bangabandhu Shishu Kishore Mela (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৩-১০-০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৬-১৫ 
  8. সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেন আর নেই।[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহি:সংযোগসম্পাদনা