এরিকা ফার্নান্দেস

ভারতীয় অভিনেত্রী

এরিকা ফার্নান্দেস (জন্ম: ৭ই মে ১৯৯৩)[১] হলেন একজন ভারতীয় অভিনেত্রী এবং মডেল, যিনি কুছ রং পেয়ার কে অ্যায়সে ভি নামক টেলিভিশন ধারাবাহিকে ড. সোনাক্ষী বোস এবং কসৌটি জিন্দেগি কে নামক টেলিভিশন ধারাবাহিকে প্রেরনা শর্মা নামক চরিত্রে অভিনয় করে অধিক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন।

এরিকা ফার্নান্দেস
জন্ম
এরিকা জেনিফার ফার্নান্দেস

(1993-05-07) ৭ মে ১৯৯৩ (বয়স ২৭)
জাতীয়তাভারতীয়
যেখানের শিক্ষার্থীমুম্বই বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাঅভিনেত্রী
মডেল
কার্যকাল২০১৩–বর্তমান

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

এরিকা ১৯৯৩ সালের ৭ই মে তারিখে ভারতের মুম্বইয়ে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তাঁর বাবার নাম রালফ এরিকা এবং মায়ের নাম লাভিনা ফার্নান্দেস।[২] তাঁর পরিবার হচ্ছে একটি কোঙ্কণী ম্যাঙ্গোলোরীয় ক্যাথলিক পরিবার। তিনি মুম্বইয়ের কুরলায় জন্মগ্রহণ করেছেন এবং সেখানেই তাঁর শৈশব অতিবাহিত করেছেন। তিনি কুরলাহোলি ক্রস হাই স্কুল থেকে তাঁর বিদ্যালয়ের পড়াশুনা সম্পন্ন করেছিলেন এবং তাঁর প্রাক-ডিগ্রি কোর্সের জন্য এসআইইএস কলেজে ভর্তি হন। তিনি বান্দ্রার সেন্ট অ্যান্ড্রু কলেজে বিএ ডিগ্রির জন্য ভর্তি হয়েছিলেন; তবে মডেলিংয়ে আগ্রহের জন্য তিনি পড়াশোনা বন্ধ করে দিয়েছিলেন।

পেশাসম্পাদনা

২০১০ সাল থেকে এরিকা বেশ কয়েকটি মডেলিং প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছিলেন, যার মধ্যে প্যান্টালুন্স ফেমিনা মিস মহারাষ্ট্র ২০১১ অন্যতম।[৩] অতঃপর পরিচালক কুমারের পুত্র নবাগত সুজিভের সাথে দ্বিভাষিক চলচ্চিত্র ভিরাট্টু / দেগার প্রধান চরিত্রে অভিনয় করার জন্য তাঁকে নির্বাচন করা হয়েছিল।[৪]

পরিচালক শশী আইনথু আইনথু আইনথু চলচ্চিত্রের অভিনয়শিল্পী নির্ধারণের সময় মীরা কাঠিরাওয়ানের অফিসে এরিকার বেশ কয়েকটি ছবি দেখেছিলেন, যাঁর সাথে এরিকা উক্ত সময়ে অন্য একটি চলচ্চিত্রের শুটিং করছিলেন। অতঃপর শশী তাঁর চলচ্চিত্রের সহশিল্পী ভরতের প্রেমিকার চরিত্রে (যিনি একজন সফটওয়্যার প্রকৌশলী) তাঁকে নেওয়ার জন্য প্রস্তাব দিয়েছিলেন।[৫] তাঁর অন্যান্য চলচ্চিত্র মুক্তি পেতে দেরি হওয়ার কারণে আইনথু আইনথু আইনথু তাঁর প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র হয়েছে। ২০১৪ সালে, তিনি কন্নড় ভাষায় নিন্নিন্দালে নামক চলচ্চিত্রে পুনীত রাজকুমারের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন। অতঃপর তিনি বাবলু হ্যাপি হ্যায় নামে একটি হিন্দি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন; যেটি হচ্ছে তাঁর প্রথম বলিউড চলচ্চিত্র। ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে, ভিরাট্টু নামক চলচ্চিত্রটি মুক্তি পায়। তবে এর তেলেগু সংস্করণটি ২০১৪ সালের শেষের দিকে মুক্তি পেয়েছিল; যার ফলে গালিপটম তাঁর মুক্তিপ্রাপ্ত প্রথম তেলুগু চলচ্চিত্রে পরিণত হয়। এই চলচ্চিত্রটি সমালোচকদের কাছ থেকে সম্মানজনক পর্যালোচনা পেয়েছিল, যারা আরও উল্লেখ করেছিলেন যে এরিকা "একটি ভাল কাজ করেছেন এবং সেখানে তিনি অভিনয়ের পরিপক্কতা প্রদর্শন করেছেন"।[৬][৭][৮]

মিডিয়াসম্পাদনা

২০১৭ সালে, এরিকা দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়ার "ভারতীয় টেলিভিশনের সবচেয়ে পছন্দনীয় ২০জন নারী"-এর তালিকায় চতুর্থ স্থান অধিকার করেছিলেন।[৯]

২০১৮ সালে, তিনি বিজ এশিয়ার টিভি ব্যক্তিত্ব তালিকায় ১৫তম স্থান অধিকার করেছিলেন।[১০] এছাড়াও তিনি দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়া "শীর্ষ ২০ আবেদনময়ী নারী"-এর ভারতীয় তালিকায় ৩য় স্থান অধিকার করেছিলেন।[১১]

২০১৯ সালে, এরিকা ইস্টার্ন আইয়ের "৫০ আবেদনময়ী এশীয় নারী"-এর তালিকায় ১৩তম স্থান অধিকার করেছিলেন।

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Parth Samthaan celebrates Kasautii co-star Erica Fernandes's birthday in Mussoorie"India Today (ইংরেজি ভাষায়)। 
  2. Puneeth is very down to earth: Erica Fernandes 
  3. Erica Fernandes is Miss Maharashtra 2011 
  4. I am not Ileana's sister, I am Erica 
  5. "Review: Ainthu Ainthu Ainthu is a breezy entertainer"Rediff 
  6. Suresh Kavirayani (২০১৬-০১-১০), "Movie Review 'Gaalipatam': Innovative marital drama", The Deccan Chronicle (প্রকাশিত হয় ২০১৪-০৮-০৯), সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৬ 
  7. Ranjani Rajendra (২০১৪-০৮-০৮)। "Bold and unapologetic"The Hindu। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৬ 
  8. Sangeetha Seshagiri (২০১৪-০৮-০৮), "'Galipatam' Review Roundup: Bold Attempt, Worth a Watch", International Business Times, সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৬ 
  9. "Meet The Times 20 Most Desirable Women on TV - Times of India"The Times of India (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-০৩ 
  10. # (২০১৮-১২-২৫)। "TV Personality 2018: Live updates"BizAsia | Media, Entertainment, Showbiz, Events and Music (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-০৬ 
  11. "Meet TV's most desirable actresses"The Times of India (ইংরেজি ভাষায়)। 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা