আর্গ

সিজিএস পদ্ধতিতে শক্তির একক

আর্গ হল সিজিএস পদ্ধতিতে শক্তির একক যা এসআই এককে 10−7 J বা 100 nJ পরিমাণ কাজ বা শক্তির সমান। এর প্রতীক ergগ্রীক ἔργον (আর্গন) থেকে erg শব্দটি উদ্ভূত। ἔργον শব্দটির অর্থ কাজ, কৃত কর্ম বা ক্রিয়া।[১][২]

আর্গ (erg)
একক পদ্ধতিসিজিএস পদ্ধতি
যার এককশক্তি
প্রতীকerg
একক রুপান্তর
১ erg ...... সমান ...
   সিজিএস মৌলিক একক   1 g⋅cm2s–2
   এসআই একক   1.00×10–7 J
   ব্রিটিশ মহাকর্ষীয় একক   7.37562×10–8 ft⋅lbf
   ফুট-পাউন্ডাল   2.37304×10–6 ft.pdl

কোন বস্তুকণার উপর এক ডাইন বল প্রয়োগের ফলে বল প্রয়োগের দিকে এর এক সেন্টিমিটার সরণে যে পরিমাণ কাজ হয় এক আর্গ হল সেই পরিমাণ কাজ। সিজিএস মৌলিক এককে এক আর্গ এক গ্রাম-বর্গসেন্টিমিটার প্রতি বর্গসেকেন্ড (g⋅cm2s–2) এর সমান। বসতবাড়িতে থাকা সাধারণ একটি মাছির পা মোড়ানো অবস্থা থেকে একবার মাথা উপরে তুলে দাড়াতে অর্থাৎ একটি পুশ-আপে যে পরিমাণ কাজ হয় বা শক্তি ক্ষয় হয় এক আর্গ হল মোটামুটিভাবে সেই পরিমাণ কাজ বা শক্তি।

রূপান্তরসম্পাদনা

1 আর্গ = 10–7 জুল (J) = 100 ন্যানোজুল (nJ)
1 আর্গ = 1 ডাইন-সেন্টিমিটার (dyn⋅cm) = 1 g⋅cm2s–2
1 আর্গ = 6.2415×1011 ইলেক্ট্রন-ভোল্ট (eV) = 624.15 গিগাইলেক্ট্রন-ভোল্ট (GeV)
1 আর্গ = 2.37304×10–6 ফুট-পাউন্ডাল (ft·pdl) = 7.37562×10–8 ফুট-পাউন্ড-ফোর্স (ft⋅lbf)
1 আর্গ = 10–10 স্থীন-মিটার (sthène-metre) = 100 পিকোস্থীন-মিটার (psn⋅m)

ইতিহাসসম্পাদনা

১৮৬৪ সালে জার্মান পদার্থবিদ রুডলফ ক্লসিয়াস শক্তি, কাজ ও তাপের এককের জন্য গ্রীক ἐργον (আর্গন) শব্দটির প্রস্তাব করেন। ১৮৭৩ সালে ব্রিটিশ পদার্থবিদ জেমস ক্লার্ক ম্যাক্সওয়েল এবং উইলিয়াম থমসন সহযোগে গঠিত ব্রিটিশ এসোসিয়েশন ফর দি এডভান্সমেন্ট অব সাইন্সের এক কমিটি সেন্টিমিটার, গ্রাম এবং সেকেন্ডকে মৌলিক একক হিসেবে (সিজিএস পদ্ধতি) সাধারণভাবে গ্রহণ করার সুপারিশ করেন। মৌলিক একক ও লব্ধ একক আলাদা করতে তাঁরা ".... এর সিজিএস একক" উপসর্গটি ব্যবহারের সুপারিশ করেন। শক্তির সিজিএস একক নির্দেশের ক্ষেত্রে erg অথবা ergon শব্দটি যাতে কঠোরভাবে নির্দিষ্ট হয় সেটা তাঁরা বলেছিলেন।

১৯২২ সালে আমেরিকান রসায়নবিদ উইলিয়াম ড্রেপার হারকিন্স পৃষ্ঠ রসায়নে অণুর পৃষ্ঠ শক্তি পরিমাপের জন্য সুবিধাজনক একক হিসেবে মাইক্রি-আর্গ এর প্রস্তাব করেন যা হবে 10−14 আর্গ বা 10−21 জুলের সমতূল্য।[৩]

ইউরোপিয়ান ইকোনমিক কমিটি (EEC) ১৯৭১ সালের একটি নির্দেশনাকে অনুসমর্থন দেওয়ার ফলে ১লা জানুয়ারি ১৯৭৮ সাল থেকে আর্গ কোন বৈধ বা কার্যকর একক নয়। এর ফলে ওজন ও পরিমাপ বিষয়ক সাধারণ সম্মেলনের[৪] চুক্তি অনুসারে এসআই একক বাস্তবায়িত হয়। এই এককটি এখনও জ্যোতিঃপদার্থবিজ্ঞানে[৫] ব্যাপকভাবে এবং কখনো কখনো বলবিদ্যায় ব্যবহার করা হয়।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "2041: ἔργον Noun, Neuter"। greeklexicon.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৬-২০ 
  2. "ἔργον (Ancient Greek)"। www.wordsense.eu। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৬-২০ 
  3. "The Orientation of Molecules in Surfaces, Surface Energy, Adsorption, and Surface Catalysis. V. The Adhesional Work Between Organic Liquids and Water: Vaporization in Steps as Related to Surface Formation "। books.google.com।  line feed character in |শিরোনাম= at position 207 (সাহায্য)
  4. "SI units in radiation measurement"। birpublications.org। ডিওআই:10.1259/0007-1285-45-538-784পিএমআইডি 5078949 
  5. "Are ergs commonly used in astrophysics? If so, is there a specific reason for it?"। physics.stackexchange.com।