আনারকলি (উর্দু: انارکلی‎‎ (শাহমুখী); Anārkalī) ছিলেন একজন পৌরাণিক দাসী কন্যা। জন্মসুত্রে তার নাম নাদিরা বেগম অথবা শার্ফ-উন-নিসা। ধারণা করা হয় যে, আনারকলি কোন এক বণিক বহরের সাথে ইরান থেকে পাঞ্জাব অঞ্চলের লাহোরে (বর্তমান পাকিস্তান) অভিবাসিত হয়েছিলেন।[১] বলিউডের চলচ্চিত্র মুঘল-ই-আজমে আনারকলিকে মুঘল আমলে শাহজাদা সেলিমের সাথে (যিনি পরবর্তিতে জাহাঙ্গীর হয়েছিলেন) অবৈধ সম্পর্ক স্থাপনের অপরাধে মোগল সম্রাট আকবরের নির্দেশে দুটি ইটের দালানের মধ্যখানে জীবন্ত কবরস্থ করা হয়েছিল। তবে কোন বিশেষ প্রমাণ বা তথ্যসূত্র না থাকায় এবং আনারকলির কোন কবরের সন্ধান না পাওয়াতে এই ঘটনা অধিকাংশের নিকট মিথ্যা প্রতীয়মান হয়। এছাড়া আনারকলি উপাখ্যান আকবরনামা অথবা তুজক-ই-জাহাঙ্গীরী কোথাও উল্লেখিত হয়নি। আনারকলির সম্বন্ধে প্রথম জানা যায় ইংরেজ পর্যটক ও বণিক উইলিয়াম ফিঞ্চের সাময়িকী থেকে, যিনি আগস্ট ২৪, ১৬০৮ সালে ভারত ভ্রমণ করেছিলেন।[২][৩]

জাহাঙ্গীর এবং আনারকলি

প্রথম সার্থক আনারকলি গল্প লেখেন ভারতীয় লেখক আব্দুল হালিম শারার, যিনি তার বইয়ের প্রথম পাতায় পরিষ্কারভাবে একে কথাসাহিত্য হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তার গল্পই পরবর্তিতে সাহিত্যে, চিত্রকলায় ও চলচ্চিত্রে বিভিন্ন সময় অভিযোজিত হয়েছে।

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Legend: Anarkali: myth, mystery and history"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৯-০৫ 
  2. "WHAT IS THE TRUTH ABOUT ANARKALI?"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৯-০৫ 
  3. "Legend: Anarkali: myth, mystery and history"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৯-০৫