আনাড়ি (হিন্দি: अनाड़ी) হৃষিকেশ মুখোপাধ্যায় পরিচালিত ১৯৫৯ সালের চলচ্চিত্র। ছবিতে অভিনয় করেছেন রাজ কাপুর, নূতন, মতিলাল এবং ললিতা পাওয়ার। সঙ্গীত পরিচালনা করেছিলেন শঙ্কর জয়কিষণ এবং গীতিকার ছিলেন হাসরাত জয়পুরিশৈলেন্দ্রললিতা পাওয়ার যে কয়েকটি চলচ্চিত্রতে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করেছিল তার মধ্যে এটি অন্যতম। ছবিটি তামিল ভাষায় পাসমাম নেসামাম নামে পুনর্নির্মাণ হয়েছিল। [১]

আনাড়ী
আনাড়ী (১৯৫৯) পোস্টার.png
পোস্টার
পরিচালকহৃষিকেশ মুখোপাধ্যায়
প্রযোজকএল বি লক্ষণ
রচয়িতাইন্দ্র রাজ আনন্দ
শ্রেষ্ঠাংশেরাজ কাপুর
নূতন
ললিতা পাওয়ার
সুরকারশঙ্কর জয়কিষণ
চিত্রগ্রাহকজয়বন্ত পাথারে
সম্পাদকহৃষিকেশ মুখোপাধ্যায়
মুক্তি
  • ১৬ জানুয়ারি ১৯৫৯ (1959-01-16)
দেশভারত
ভাষাহিন্দি

পটভূমিসম্পাদনা

রাজ কুমার একজন সৎ, সুদর্শন এবং বুদ্ধিমান যুবক। কেবলমাত্র চিত্রশিল্পী হিসাবে কাজ করে, তিনি তার বাড়িওয়ালাকে ঠিকমতো ভাড়া ও জীবিকা নির্বাহ করতে পারছেন না। একদিন, রাজ টাকা পয়সা সংবলিত একটি মানিব্যাগ পেয়ে এটির মালিক মিঃ রামনাথকে ফিরিয়ে দেয়। রামনাথ রাজকে প্রশংসা করেন; তার সততায় নিয়ে সন্তুষ্ট হয়ে তিনি রাজকে কেরানি হিসাবে তাঁর অফিসে কাজ করতে নিয়োগ করেন। রাজ রামনাথের দাসী আশার সাথে দেখা হয় এবং তারা একে অপরের প্রেমে পড়ে যায়। কিন্তু রাজ পরে জানতে পারে যে, আশা তার নিয়োগকর্তার ভাইঝি আরতি, এবং রামনাথ তাঁর ভাইঝিকে দরিদ্র রাজের সাথে দেখা করতে নিষেধ করে দেন। এরইমাঝে দুর্ভাগ্যক্রমে তার বাড়িওয়ালা মিসেস ডি'সা, রামনাথের কোম্পানির তৈরি ওষুধ সেবন করে হঠাৎই মারা যান। পুলিশ ময়না তদন্ত করে সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, কেউ মিসেসকে বিষ প্রয়োগ করেছে। পুলিশ সন্দেহভাজন হিসাবে রাজকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেয়, গ্রেপ্তার করে কারাগারে রাখা হয়। তবে বিচার চলাকালীন সময়ে রামনাথ তাঁর কোম্পানিতে তৈরি ওষুধের পুরো দায় স্বীকার করে নেন, এতে রাজ অভিযোগ থেকে মুক্তি পায়। এরপর, আরতি রাজকে বিয়ে করে কেননা সে মিসেস ডি'সাকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল যে তাঁর অবর্তমানে আরতি রাজকে দেখে রাখবে, কারণ দুনিয়া যতটুকু চতুর রাজ ঠিক ততটাই আনাড়ি। [২]

শ্রেষ্ঠাংশেসম্পাদনা

সংঙ্গীতসম্পাদনা

# শিরোনাম সিঙ্গার (গুলি) সংগীত পরিচালক গীতিকার স্থিতিকাল
"দিল কি নাজার সে" লতা মঙ্গেশকর, মুকেশ শঙ্কর জয়কিষণ শৈলেন্দ্র ০৪ঃ৩৮
"নাইন্টিন ফিফটি সিক্স" লতা মঙ্গেশকর, মান্না দে মান্না দে, শঙ্কর জয়কিষণ শৈলেন্দ্র ০৪ঃ৫৯
"ওহ চাঁদ খিলা ওহ তারে হাসে" লতা মঙ্গেশকর, মুকেশ শঙ্কর জয়কিষণ হাসরাত জয়পুরী ০৪ঃ১৩
"সাব কুছ সিখা হাম নে" মুকেশ শঙ্কর জয়কিষণ শৈলেন্দ্র ০৩ঃ৪০
"বান কে পাঞ্ছি গায়ে পেয়ার কা তারানা" লতা মঙ্গেশকর শঙ্কর জয়কিষণ হাসরাত জয়পুরী ০৩ঃ৩৫
"কিসি কি মুসকুরাহাটো পে" মুকেশ শঙ্কর জয়কিষণ শৈলেন্দ্র ০৪ঃ৩১
"তেরা জানা" লতা মঙ্গেশকর শঙ্কর জয়কিষণ শৈলেন্দ্র ০৩ঃ৪১

উল্লেখ্যসম্পাদনা

ছবিতে নুতনের মামার চরিত্রে অভিনয় করেছেন মতিলাল। বাস্তব জীবনে তিনি নুতনের মা শোভনা সমার্থের সাথে থাকতেন।

পুরস্কারসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. ""Enge Thaan Povaai" – Pasamum Nesamum (1964) – Tamil Feature Film"thesouthernnightingale.net। মে ৩১, ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-২৭ 
  2. 2:35:50 in the film, available e.g. at https://www.youtube.com/watch?v=HujdhyUcfrw
  3. "7th National Film Awards" (PDF)Directorate of Film Festivals। সংগ্রহের তারিখ ৪ সেপ্টেম্বর ২০১১ 

বাহিঃ সংযোগসম্পাদনা