অনিল দলপত

পাকিস্তানী ক্রিকেটার

অনিল দলপত সোনাভারিয়া (জন্ম: ২০ সেপ্টেম্বর, ১৯৬৩) সিন্ধু প্রদেশের করাচীতে জন্মগ্রহণকারী পাকিস্তানের সাবেক টেস্ট ক্রিকেটার[১] ১৯৮০-এর দশকে সংক্ষিপ্তকালের জন্য পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সদস্য ছিলেন। প্রথম হিন্দু ধর্মাবলম্বী হিসেবে পাকিস্তান ক্রিকেট দলের পক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন তিনি।

অনিল দলপত
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামঅনিল দলপত সোনাভারিয়া
জন্ম (1963-09-23) ২৩ সেপ্টেম্বর ১৯৬৩ (বয়স ৫৭)
করাচী, সিন্ধু, পাকিস্তান
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক
সম্পর্কদানিশ কানেরিয়া (কাকাতো ভাই)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৯৮)
২ মার্চ ১৯৮৪ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট৯ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৫ বনাম নিউজিল্যান্ড
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৪৭)
২৬ মার্চ ১৯৮৪ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ ওডিআই১৭ অক্টোবর ১৯৮৬ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
করাচী
পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই
ম্যাচ সংখ্যা ১৫
রানের সংখ্যা ১৬৭ ৮৭
ব্যাটিং গড় ১৫.১৮ ১২.৪২
১০০/৫০ -/১ -/-
সর্বোচ্চ রান ৫২ ৩৭
বল করেছে
উইকেট
বোলিং গড়
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২২/৩ ১৩/২
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২ জানুয়ারি ২০১৭

দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষক ছিলেন। পাশাপাশি নিচেরসারির কার্যকরী ব্যাটসম্যান হিসেবে দলে ভূমিকা রাখেন অনিল দলপত। এছাড়াও পরবর্তীকালে পাকিস্তানের অন্যতম সফল স্পিনার দানিশ কানেরিয়া সম্পর্কে তার কাকাতো ভাই। বর্তমানে তিনি করাচীতে বসবাস করছেন। মারোয়াড়ি বংশোদ্ভূত তিনি।

খেলোয়াড়ী জীবনসম্পাদনা

১৯৮০-এর দশকের শুরুতে নিয়মিত উইকেট-রক্ষক ওয়াসিম বারি আঘাতপ্রাপ্ত হলে পাকিস্তান ক্রিকেট দলের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেন। ১৯৮৩-৮৪ মৌসুমে করাচীতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অভিষেক ঘটে তার। বিখ্যাত স্পিনার আব্দুল কাদিরের বলে তিনি দক্ষতার সাথে গ্লাভস বন্দী করেন। ঐ টেস্টে পাকিস্তান দল ৩ উইকেটে জয়লাভ করে।

১৯৮৪-৮৫ মৌসুমে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নিজস্ব সর্বোচ্চ ৫২ রান তোলেন। তবে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটেই অধিক সফল ছিলেন তিনি। ১৯৮৩-৮৪ মৌসুমে ৬৭ ব্যাটসম্যানকে ডিসমিসের সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন যা ঘরোয়া ক্রিকেটে পাকিস্তানী রেকর্ড।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা