অতুল্য ঘোষ

ভারতীয় রাজনীতিবিদ

অতুল্য ঘোষ (২৮ আগস্ট ১৯০৪ – ১৮ এপ্রিল ১৯৮৬) ছিলেন ভারতীয় উপমহাদেশের ব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের একজন ব্যক্তিত্ব, ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের নেতা, লোকসভার প্রাক্তন সদস্য। তিনি হিজলি বন্দি নিবাসে রাজবন্দীরূপে ছিলেন।[১]

অতুল্য ঘোষ
জন্ম২৮ আগস্ট ১৯০৪
মৃত্যু১৮ এপ্রিল ১৯৮৬
কলকাতা, (বর্তমান ভারত ভারত)
নাগরিকত্ব ব্রিটিশ ভারত (১৯৪৭ সাল পর্যন্ত)
 ভারত
পেশারাজনীতিবিদ
পরিচিতির কারণব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলন
উল্লেখযোগ্য কর্ম
লোকসভার প্রাক্তন সদস্য
রাজনৈতিক দলভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস

জন্ম ও পারিবারিক পরিচিতিসম্পাদনা

অতুল্য ঘোষের জন্ম বৃটিশ ভারতের কলকাতায় পাথুরিয়াঘাটায়। পিতা কার্তিকচন্দ্র ঘোষ এবং মাতা হেমহরিণী দেবী। ঘোষ পরিবারের আদি নিবাস ছিল অবিভক্ত বাংলার হুগলি জেলার হরিদাস উন্নয়ন ব্লকের জেজুয়া গ্রামে। মাত্র এগারো বৎসর বয়সে পিতার মৃত্যু হলে তিনি মাতুলালয়ে মাতামহ বিশিষ্ট বাঙালি কবি ও সাহিত্য সমালোচক অক্ষয়চন্দ্র সরকারের কাছে প্রতিপালিত হন। মাতুলালয়ে মাতামহের কাছে তৎকালীন সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাহিত্য জগতের বহু জ্যোতিষ্কের আনাগোনা ছিল। চাক্ষুষ করেছেন "লাল-বাল-পাল"এর লালা লাজপত রায়, বাল গঙ্গাধর তিলক, বিপিনচন্দ্র পাল, রামেন্দ্রসুন্দর ত্রিবেদী, সুরেশচন্দ্র সমাজপতি, দীনেশচন্দ্র সেন, ব্রহ্মবান্ধব উপাধ্যায় প্রমুখকে।

রাজনৈতিক জীবনসম্পাদনা

প্রথা অনুসারে তিনি কোন স্কুলে ভর্তি হন নি, কিন্তু নামকরা শিক্ষকের ব্যক্তিগত তত্ত্বাবধানে পড়াশোনা করেন। কিন্তু পনের-ষোল বৎসর বয়স থেকেই তিনি কলকাতার বাড়ির সংলগ্ন কলকাতার কংগ্রেস অফিসে নিয়মিত যাতায়াত শুরু করেন। প্রথমে কলকাতা ও পরে হুগলি জেলা কংগ্রেসের সদস্য হন। ১৯২১ খ্রিস্টাব্দে গান্ধীজির অসহযোগ আন্দোলনে যোগ দেন। ১৯৩০ খ্রিস্টাব্দে মেদিনীপুরে পুলিশ-হত্যা মামলায় ধরা পড়েন,কিন্তু প্রমাণাভাবে মুক্তি পান।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. পতি, ভাস্করব্রত (২২ ডিসেম্বর ২০১৬)। "দেশের প্রথম মহিলা জেল এখন আই আই টি'র গুদামঘর!"গণশক্তি ডট কম। কলকাতা। ২০২২-০২-১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১২-২২