হুদুমদ্যাও পূজা

হুদুমদ্যাও পূজা বা মেঘ পূজা হল উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি নামানোর জন্য কৃষকবধূদের কৃত একধরনের সাদৃশ্যমূলক জাদুধর্মী পূজা ও নৃত্যগীত অনুৃষ্ঠান। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ি, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার জেলার বসবাসী কৃষক সমাজে এটি অনুষ্ঠিত হয়। দেশে অনাবৃষ্টি, খরা প্রভৃতি প্রাকৃতিক বিপর্যয় ঘটলে মেঘদেবতাকে সন্তুষ্ট করতে আয়োজিত হয় এই পূজা ; তবে এই অনুৃষ্ঠানে পুরুষের প্রবেশাধিকার নেই।[১]

বিবরণসম্পাদনা

তত্ত্বগতভাবে, ধরিত্রী-নারীর সঙ্গে মেঘ-পুরুষের মিলনই 'মেঘপূজা' বা 'হুদুমদ্যাও' অনুৃষ্ঠান; দুজনের মিলনে প্রকৃতি শস্যশ্যামলা হয়ে উঠবে — এই বিশ্বাস।

এই অনুৃষ্ঠানের জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ হল: ফিঙে পাখির বাসা, সন্তানবতী এক জননীর গা-ধোওয়া জল, গণিকার চুল, একটি কলাগাছ, জলপূর্ণ ঘট, কুলো, ধূপ-বাতি, নৈবেদ্য ও তার সাজ-সরঞ্জাম, গোটা পান-সুপারি, বরণডালা ইত্যাদি। দিনের বেলা এইসব উপকরণ সংগ্রহ করে মেয়েরা গভীর অন্ধকার রাত্রে লোকালয় থেকে বহুদূরের কোনো মাঠ, নিরালা প্রান্তর বা নির্জন নদীর ধারে বসনমুক্ত অবস্থায় মশাল জ্বালিয়ে হাজির হন। পূজার জন্য কিছুটা জায়গা সংস্কার করে তার মাঝখানে একটি গর্ত করা হয়। তারপর উলুধ্বনির মধ্যে প্রধান পূজারিণী সেই গর্তে সংগৃহীত দ্রব্যগুলি ঢেলে দিয়ে কলাগাছটিকে পুঁতে দেন। এরপর সবাই স্নান করেন। পরে পূর্বোক্ত গা-ধোওয়া জল কুলোয় ঢেলে ঘন-ঘন উলুধ্বনির মাঝে মেঘদেবতার প্রতীক কলাগাছটিতে ছিটিয়ে দিয়ে গাছটিকে স্নান করানো হয়। এরপর জলপূর্ণ মাটির ভেতর একজোড়া গুয়াপান ও বারোশস্য দিয়ে গাছের নিচে ঘটস্থাপন করে ধূপ-বাতি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। এইভাবে পূজার পাঠ শেষ হলে শুরু হয় আবাহন পালা। এই পালাটি নৃত্য-গীত, রঙ্গ-রসিকতা, অনুনয়-বিনয়, শ্লেষ-ধিক্কার, ছলাকলায় প্রেমাস্পদকে মোহিত করার প্রচেষ্টায় ভরে ওঠে। উলঙ্গ নারীদের একদল কলাগাছটির অদূরে দাঁড়িয়ে হাততালি দিয়ে গান ধরেন ও মাঝেমাঝে উলুধ্বনি দেন; আর অন্য নারীরা দেবতারূপী পুরুষ কলাগাছটির চারিদিক ঘিরে নৃত্য করেন। এই পূজানুষ্ঠানে সধবা কিংবা বিধবা উভয়ই অংশগ্রহণ করেন, কেবল কুমারীরা অংশ নিতে পারে না। পূজায় কোনো ফুল প্রদানও হয় না।

মেঘদেবতার অধিবাস থেকে শুরু করে বিয়ে, বিরহ-মিলন, বৃষ্টির কৃপা ভিক্ষা সবই নাচে-গানে অনুৃষ্ঠিত হয়। দেবতার কৃপা ভিক্ষা সংগীতাংশের একটি নমুনা:

হুদুম দ্যাও হুদুম দ্যাও, এক ছলকা পানি দ্যাও
ছুয়ায় অশুচি আছি, নাই পানি
ছুয়াছুতির ধারা বাহি ঝালকানি।
কালা ম্যাগ, উতলা ম্যাগ, ম্যাগ সোদর ভাই
এক ঝাঁক পানি দ্যাও গাও ধুইবার চাই।।

[১]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. বাংলার লোকসংস্কৃতির বিশ্বকোষ, দুলাল চৌধুরী, আকাদেমি অব ফোকলোর, কলকাতা: ৭০০০৯৪, প্রথম প্রকাশ: ২০০৪; পৃষ্ঠা: ২৯৯