প্রধান মেনু খুলুন

স্ক্যাবিস এক প্রকার চর্মজনিত রোগ যা Sarcoptes scabei নামক এক প্রকার জীবাণু দ্বারা সংঘটিত হয়।[১][২] এর প্রধান লক্ষণ হল শরীরে চুলকানি ও গুটি গুটি র‍্যাশ ওঠা। স্পর্শের মাধ্যমে সাধারণত এ রোগ হয়। তাছাড়া রোগীর ব্যবহৃত কাপড় গামছা, বিছানার চাদর ও বালিশ ব্যবহার করলে এ রোগ হতে পারে। বিশেষ করে শিশুরা এতে ব্যাপকভাবে আক্রান্ত হয়ে থাকে ৷প্রথমবার সংক্রমণে একজন ব্যক্তির সাধারণত দুই থেকে ছয় সপ্তাহের মধ্যে উপসর্গ দেখা দেয়।দ্বিতীয় সংক্রমণের লক্ষণগুলি ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই শুরু হতে পারে।এই উপসর্গগুলি শরীরের বেশিরভাগ অংশে, যেমন-কব্জি, আঙ্গুলের ভিতর বা কোমরের আশেপাশে উপস্থিত হতে পারে। রাতের বেলা চুলকানির তীব্রতা আরও বাড়ে।

স্ক্যাবিস
Sarcoptes scabei 2.jpg
চুলকানি রোগের জীবানু Sarcoptes scabei এর আনুবিক্ষনীক চিত্র
শ্রেণীবিভাগ এবং বহিঃস্থ সম্পদ
বিশিষ্টতাInfectious disease, dermatology
আইসিডি-১০B৮৬
আইসিডি-৯-সিএম১৩৩.০
ডিজিসেসডিবি১১৮৪১
মেডলাইনপ্লাস০০০৮৩০
ইমেডিসিনderm/382 emerg/৫১৭ ped/২০৪৭
পেশেন্ট ইউকেস্ক্যাবিস
মেএসএইচD০১২৫৩২ (ইংরেজি)

লক্ষনসম্পাদনা

  • আঙ্গুলের ফাঁকে, আঙ্গুলে, বগলে, যৌনাঙ্গে, নাভি ও নাভির চার দিকে ছোট ছোট দানা বা গুটি দেখা দেয়। তবে এ গুটিগুলো মুখ, মাথা বাদে সমস্ত শরীরে দেখা দিতে পারে।
  • গুটি গুলোতে প্রচণ্ড চুলকায় এবং চুলকানি রাতে বেশি হয়।

প্রতিরোধসম্পাদনা

পারমেথ্রিন বা আইভারমেক্টিন ব্যবহার করে এমন গণ-চিকিৎসা প্রোগ্রামগুলি বেশিরভাগ জনসাধারণের মধ্যে স্ক্যাবিস এর বিস্তার হ্রাসে কার্যকরী।[৩] স্ক্যাবিসের জন্য কোন টিকা পাওয়া যায় না।সংক্রমণের লক্ষণ না দেখা সত্ত্বেও রোগীর সংস্পর্শে যারা থাকেন,সবারই চিকিৎসা করা বাঞ্ছনীয়।[৩][৩] পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখাই স্ক্যাবিস রোধের মোক্ষম উপায়।[৪]

চিকিৎসাসম্পাদনা

 
মানুষের দেহে চুলকানি আক্রান্ত হওয়ার কিছু সাধারন জায়গা

স্ক্যাবিসের চিকিৎসার অনেক ঔষধ আছে,তবে এর পাশাপাশি যাবতীয় গৃহস্থ জিনিসপত্র এবং যারা রোগীর সংস্পর্শে ছিলেন,তারাও চিকিৎসার আওতায় থাকবেন।[৩] ঔষধের মধ্যে আছে অ্যান্টিহিস্টামিন এবং অ্যান্টি সংক্রামক ঔষধ ।[৫] বিছানার চাদর,কাপড় ,তোয়ালে সহ ব্যবহৃত সবকিছু গরম পানিতে ধুয়ে রোদে শুকানো উচিৎ।[৬]

পারমেথ্রিনসম্পাদনা

পারমেথ্রিন স্ক্যাবিসের জন্য সবচেয়ে কার্যকর চিকিৎসা [৭] ।এটি ঘাড় থেকে নিচে,শরীরের সব জায়গায় রাতে ঘুমানোর আগে লাগানো হয় এবং সকালে ধুয়ে ফেলতে হয়।.[৩] শরীরের প্রতিটি জায়গায় পারমেথ্রিন লাগাতে হবে,নাহলে সুস্থ অংশও সংক্রমিত হবে।পারমেথ্রিন একবার লাগালেই যথেষ্ট,তবে অনেক চিকিৎসক তিন থেকে সাত দিন পর দ্বিতীয় বার এটি পূর্ব সতর্কতার জন্য প্রয়োগ করতে বলেন।স্ক্যাবিস শক্ত হলে আইভারমেক্টিন ব্যবহার করা যেতে পারে।[৩][৮][৯] পারমেথ্রিন ব্যবহারে ত্বক সামান্য জ্বালা হতে পারে,যা সহনীয়। [১০]

আইভারমেক্টিনসম্পাদনা

একবার ব্যবহার করলেই আইভারমেক্টিন স্ক্যাবিস দূর করতে বেশ কার্যকর।[৩][১১] শক্ত হয়ে যাওয়া স্ক্যাবিসের চিকিৎসায় এটিই সর্বোত্তম চিকিৎসা।[৩][১০] ছয় বছরের কম বাচ্চাদের জন্য এটা ব্যবহার করা নিষেধ।[১০]

অন্যান্যসম্পাদনা

জনসাধারণ পর্যায়সম্পাদনা

রোগতত্ত্বসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; CDC2010Epi নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  2. Gates, Robert H. (২০০৩)। Infectious disease secrets (2. সংস্করণ)। Philadelphia: Elsevier, Hanley Belfus। পৃষ্ঠা 355। আইএসবিএন 978-1-56053-543-0 
  3. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Clinic2009 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  4. "Prevention and Control – Scabies"। Center for Disease Control and Prevention। ২০১০-০৩-০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১০-০৯ 
  5. Vañó-Galván, S; Moreno-Martin, P (২০০৮)। "Generalized pruritus after a beach vacation. Diagnosis: scabies"। Cleveland Clinic journal of medicine75 (7): 474, 478। doi:10.3949/ccjm.75.7.474PMID 18646583 
  6. "Parasites - Scabies"cdc.gov। নভেম্বর ২, ২০১০। ১১ ডিসেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  7. Strong M, Johnstone PW (২০০৭)। Strong, Mark, সম্পাদক। "Interventions for treating scabies"। Cochrane Database Syst Rev (3): CD000320। doi:10.1002/14651858.CD000320.pub2PMID 17636630 
  8. "Scabies"। Illinois Department of Public Health। জানুয়ারি ২০০৮। ২০১০-১২-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১০-০৭ 
  9. The Pill Book। Bantam Books। ২০১০। পৃষ্ঠা 867–69। আইএসবিএন 978-0-553-59340-2 
  10. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Ray2009 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  11. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; WHO নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি

বহিঃসংযোগসম্পাদনা