সাজ্জাদ আহমেদ

বাংলাদেশী ক্রিকেটার

সাজ্জাদ আহমেদ (জন্ম: ২০ মে ১৯৭৪) ঢাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা সাবেক বাংলাদেশী আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৯৫ সালে বাংলাদেশ দলের পক্ষে দুইটিমাত্র একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণের সুযোগ হয় তার। দলে তিনি মূলতঃ শীর্ষসারির ব্যাটসম্যানের ভূমিকায় অবতীর্ণ হতেন। ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ডানহাতে অফ ব্রেক বোলিং করতেন ‘শিপন’ ডাকনামে পরিচিত সাজ্জাদ আহমেদ।

সাজ্জাদ আহমেদ
ব্যক্তিগত তথ্য
ডাকনামশিপন
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি অফ ব্রেক
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৩৩
রানের সংখ্যা ১৫ ১২৮২
ব্যাটিং গড় ৭.৫০ ২৫.৬৪
১০০/৫০ –/– ১/৬
সর্বোচ্চ রান ১১ ১১৭
বল করেছে ২৪৩
উইকেট
বোলিং গড় ৩১.৬৬
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং ৩/৪২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ০/০ ২৫/০
উৎস: ক্রিকইনফো, ১৬ মার্চ ২০১৮

খেলোয়াড়ী জীবনসম্পাদনা

১৯ বছর বয়সে সফরকারী জিম্বাবুয়ে দলের বিপক্ষে খেলার জন্য মনোনীত হন। ১৯৯৩ সালের শরতে ঢাকায় অনুষ্ঠিত ঐ খেলায় দলের পক্ষে ব্যাটিং উদ্বোধনে নেমেছিলেন তিনি। তবে, খেলাগুলো ওডিআই মর্যাদাবিহীন থাকলেও কেনিয়ায় অনুষ্ঠিত পঞ্চম আইসিসি ট্রফ্রির জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল। দূর্ভাগ্যবশতঃ এ তরুণ হিথ স্ট্রিকের পেস বোলিং মোকাবেলায় দক্ষতা প্রদর্শনে ব্যর্থ হয়েছিলেন।

১৯৯৫ সালে দুইটি একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশ নেন। তবে, ৪ ও ১১ রান তোলায় জাতীয় দল থেকে উপেক্ষিত হন।[১]

ঘরোয়া ক্রিকেটসম্পাদনা

২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত ঢাকা মেট্রোপলিশ ও ঢাকা বিভাগের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশ নেন। তন্মধ্যে, ২০০০-০১ মৌসুমে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে তিনি তার খেলোয়াড়ী জীবনের একমাত্র সেঞ্চুরি হাঁকাতে সক্ষমতা দেখান।[২] ঢাকা মেট্রোপলিসের সদস্য থাকা অবস্থায় বরিশাল বিভাগের বিপক্ষে ঐ সেঞ্চুরি দলের জয়ে প্রভূতঃ ভূমিকা রেখেছিল।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা