প্রধান মেনু খুলুন

শ্রীনগর, জম্মু ও কাশ্মীর

শ্রীনগর ({{Urdu:এই শব্দ সম্পর্কেسرینگر  শ্রীনাগার) ভারতের জম্মু ও কাশ্মীর অঙ্গরাজ্যের রাজধানী। এখানে প্রায় ১০ লক্ষ লোকের বাস। শহরটি ঝেলুম নদীর তীরে কাশ্মীর উপত্যকায় অবস্থিত। শীতকালে প্রবল শীতের কারণে অঙ্গরাজ্যটির রাজধানী ছয় মাসের জন্য জম্মুতে স্থানান্তরিত করা হয়। শ্রীনগর একটি পর্যটন কেন্দ্র। এখানকার হ্রদ, পাহাড়, সবুজ মাঠ, বার্চ ও উইলো গাছে পূর্ণ অরণ্য পর্যটকদের জন্য অত্যন্ত আকর্ষণীয়। এখানকার বিভিন্ন কুটির শিল্পও বিখ্যাত। এদের মধ্যে কার্পেট, রেশম ও পশমের বস্ত্র, কাঠ ও চামড়ার কাজ উল্লেখযোগ্য। শহরের ভেতরে ও বাইরে বহু প্রাচীন ভবন ও ধ্বংসাবশেষ আছে। ১৯৬৯ সালে এখানে শ্রীনগ্র বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। এখানে ৭ম শতকে নির্মিত একটি মসজিদ এবং ১৬শ শতকে নির্মিত একটি দুর্গ আছে। কাছেই অনেক বৌদ্ধ মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ আছে। শহরটি খ্রিস্টীয় ৬ষ্ঠ শতকে প্রতিষ্ঠা করা হয়।

শ্রীনগর, জম্মু ও কাশ্মীর
শ্রীনগর
স্থানাঙ্ক: ৩৪°০৫′ উত্তর ৭৪°৪৭′ পূর্ব / ৩৪.০৯° উত্তর ৭৪.৭৯° পূর্ব / 34.09; 74.79
সরকার
 • নগরপালগুলাম মুস্তাফা ভাট [২]
জনসংখ্যা (২০০১)
 • মোট৮,৯৪,৯৪০[১]

ইতিহাসসম্পাদনা

শিক্ষাসম্পাদনা

  • ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি , শ্রীনগর

দর্শনীয় স্থানসম্পাদনা

  • ডাল হ্রদ
  • নাগিন লেক
  • জামা মসজিদ - ১৬৭৪ সালে নির্মিত জামা মসজিদ, শ্রীনগরের মসজিদগুলির মধ্যে সবচেয়ে প্রাচীনতম। চারটি কুন্ডলী, ৩৭০-টি স্তম্ভ ও প্রার্থনা সভার সমন্বয়ে গঠিত মসজিদটি ইন্দো-শারাসেনিক স্থাপত্যের এক নিদারুণ উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। মসজিদটির প্রতিটি স্তম্ভ হিমালয়ের সেডার (দারূবৃক্ষবিশেষ) কান্ডের একক খন্ডের দ্বারা নির্মিত। মসজিদটি তার ইতিহাসের ধারায় বহুবার বিপর্যস্ত ও পুনরুদ্ধার হয়েছিল। এটি ফ্রাইডে মসজিদ বা শুক্রবার মসজিদ নামেও পরিচিত।

যোগাযোগসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা