শৌরীন্দ্রমোহন ঠাকুর

বাঙালি সঙ্গীতজ্ঞ

শৌরীন্দ্রমোহন ঠাকুর (১৮৪০ — ৫ জুন, ১৯১৪) একজন বাঙালী সঙ্গীতজ্ঞ ও সাহিত্যিক।

শৌরীন্দ্রমোহন ঠাকুর

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

১৮৪০ সালে কলকাতা পাথুরিয়াঘাটার ঠাকুর পরিবারে তার জন্ম হয়। তার পিতার নাম হর কুমার ঠাকুর। মাতা শিবসুন্দরী। শৌরীন্দ্রমোহন কলকাতার প্রেসিডেন্সী কলেজে পড়াশোনা করেন। তিনি সঙ্গীত গুরু লক্ষ্মীপ্রসাদ মিশ্র ও  ক্ষেত্রমোহন গোস্বামীর কাছে সঙ্গীতের তালিম নিয়েছিলেন।

অবদানসম্পাদনা

শৌরীন্দ্রমোহন ছিলেন বাংলার সঙ্গীত সংস্কৃতির অন্যতম আদিপুরুষ এবং পাশ্চাত্য সঙ্গীত ও বঙ্গীয় সঙ্গীতের সমন্বয় সাধক। বাংলার সঙ্গীত ও নাট্য আলোচনার জগতে তার বহুল অবদান আছে। হিন্দুসংগীতের পুনরুদ্ধার ও বহুল প্রচারের জন্য সর্বদা সচেষ্ট ছিলেন। ইংরেজিসংগীত এবং আর্যসংগীত বিষয়ক বহু মূল্যবান গ্রন্থ ও হস্তলিপি সংগ্রহ করে হিন্দু সংগীতশিক্ষার উপযোগী বহু গ্রন্থ প্রচার করেছেন। ১৮৭১ সালে হিন্দুমেলা উৎসবে তিনি সঙ্গীত-বিষয়ে প্রথম বক্তৃতা দেন। প্রকাশ্য সভায় বাংলায় সংগীত আলোচনার তিনিই পথ প্রদর্শক। [১] তিনি ১৮৭১ সালে বঙ্গ সঙ্গীত বিদ্যালয় ও ১৮৮১ সালে বেঙ্গল একাডেমি অফ মিউজিক নামক দুটি সঙ্গীত প্রতিষ্ঠান তৈরি করেন। তার এই অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ১৮৭৫ সালে ফিলাডেলফিয়া বিশ্ববিদ্যালয় ভারতের প্রথম নাগরিক হিসাবে তাঁকে ‘ডক্টর অব মিউজিক’ উপাধি দেয়।[২] শৌরীন্দ্রমোহন ১৮৮০ সালে এফআরএ এসসিআইই উপাধি ও ১৮৮৪ সালে নাইট উপাধিতে ভূষিত হন। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় তাঁকে ফেলোশিপ প্রদান করে। ১৮৯৬ সালে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় তাঁকে ‘ডক্টর অব মিউজিক’ উপাধিতে ভূষিত করে। শৌরীন্দ্রমোহন প্রচুর বাংলা ও ইরেজি গ্রন্থের রচয়িতা।[৩]

রচনাসম্পাদনা

  • ভূগোল ও ইতিহাস ঘটিত বৃত্তান্ত (১৮৫৪)
  • মুক্তা ফল (১৮৫৪)
  • হারমোনিয়ম সূত্র (১৮৭৪)
  • সঙ্গীতশাস্ত্র প্রবেশিকা (১৮৭৭)
  • ভারতীয় নাট্য রহস্য (১৮৭৭)
  • ভিক্টোরিয়া গীতিমালা (১৮৭৬)\
  • জাতীয় সঙ্গীত বিষয়ক প্রস্তাব (১৮৭৬)
  • যন্ত্র কোষ (১৮৭৬)
  • মৃদঙ্গ মঞ্জরী (১৮৮০)
  • রসাবিষ্কারক বৃন্দক (১৮৮০)
  • এ্কতান
  • মনিমালা[৪]
  • A Brief History of Tagore Family
  • Hindu Music From Various Authors
  • Eight Tunes etc
  • The principle Avataras of the Hindus
  • The Five Principle Musicians of the Hindus
  • The Dramatic Sentiments of Aryas
  • The Eight Principle Rasas of the Hindus

সম্মাননাসম্পাদনা

সংগীতের জন্য তিনি ভারতবাসীদের মধ্যে যেমন প্রথম ডক্টর অফ মিউজিক উপাধি লাভ করেছেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তেমনই বহু সম্মান লাভ করেছেন দেশ-বিদেশ হতে। যেমন-

দাতা হিসাবেও তার বিশেষ খ্যাতি ছিল। সংস্কৃত কলেজে বৃত্তি ও মাসিক সাহায্যদান, বরিশালে বালিকা বিদ্যালয়ের জন্য ভূমিদান এবং লেডি ডাফরিন হাসপাতাল ও আলবার্ট ভিক্টর কুষ্ঠাশ্রম প্রতিষ্ঠার জন্য প্রচুর অর্থ দান করেছিলেন। গঙ্গাসাগর দ্বীপে পিতার নামে পুষ্করিণী ও বরানগরে রাস্তা তৈরি করেন।[১]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. সুবোধ সেনগুপ্ত ও অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান, প্রথম খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, আগস্ট ২০১৬, পৃষ্ঠা ৭২৭, আইএসবিএন ৯৭৮-৮১-৭৯৫৫-১৩৫-৬
  2. "স্মৃৃতির অতলে শৌরীন্দ্রমোহন - Anandabazar"anandabazar.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-১৮ 
  3. "ঠাকুর, শৌরীন্দ্রমোহন - বাংলাপিডিয়া"bn.banglapedia.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-১৮ 
  4. "শৌরীন্দ্রমোহন ঠাকুর - উইকিসংকলন একটি মুক্ত পাঠাগার"bn.wikisource.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-১৮