শব্দবিজ্ঞানে শব্দোচ্চতা (বা সঙ্গীতের পরিভাষায় স্বরোচ্চতা) হল শব্দের চাপের ব্যক্তিনিষ্ঠ উপলব্ধি। একটি আনুষ্ঠানিক সংজ্ঞা অনুযায়ী শব্দোচ্চতা হলো "শ্রাব্য সংবেদনের সেই বৈশিষ্ট্য যার মাধ্যমে কোনও শব্দ বা ধ্বনি কতটুকু জোরে বা আস্তে শোনা যাচ্ছে তা একটি মাপনীর মাধ্যমে পরিমাপ করা যায়।"[১] শব্দের ভৌত বৈশিষ্ট্যগুলির সাথে মনের ভেতরে উপলব্ধ বা অনুভূত শব্দোচ্চতার ভৌত, শারীরবৃত্তীয় এবং মনস্তত্ত্বিক উপাদান বিদ্যমান। আপাত শব্দোচ্চতা মনোশব্দবিজ্ঞানের একটি অধীত বিষয় এবং এতে মনোপদার্থবিজ্ঞানের বিভিন্ন পদ্ধতি প্রয়োগ করা হয়। শব্দোচ্চতার লগভিত্তিক একটি একক হল ফন

অনুভূমিক অক্ষ হার্জ এককে কম্পাঙ্ক প্রদর্শন করছে

শব্দোচ্চতা একটি ব্যক্তিনিষ্ঠ ধারণা, যা মনের ভেতরে উপলব্ধ হয়। এটির সাথে শব্দের বলের ভৌত পরিমাপ যেমন শব্দের চাপ, শব্দের চাপের স্তর (ডেসিবেল এককে), শব্দের তীব্রতা বা শব্দের ক্ষমতা গুলিয়ে ফেলা হতে পারে। একজন সাধারণ মানুষ কীভাবে মনের ভেতরে শব্দোচ্চতা উপলব্ধি করে, সে ব্যাপারটিকে মাথায় রেখে শব্দোচ্চতা পরিমাপ করার জন্য ওজনযুক্ত পরিস্রাবক যেমন এ-ওজনযুক্তকরণ এবং এলকেএফএস পরিস্রাবকগুলি ব্যবহার করা হতে পারে।

বিভিন্ন শিল্পখাতে শব্দোচ্চতার বিভিন্ন অর্থ থাকতে পারে এবং এটিকে পরিমাপের বিভিন্ন আদর্শ বা প্রমিত ব্যবস্থা থাকতে পারে।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. American National Standards Institute, "American national psychoacoustical terminology" S3.20, 1973, American Standards Association.