রোকেয়া চেয়ার

বেগম রোকেয়ার নামে নামাঙ্কিত সম্মানজনক গবেষণা পদ

রোকেয়া চেয়ার বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত একটি সম্মানজনক গবেষণা পদ। নারী জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়ার নামে এই চেয়ারটি নামাঙ্কিত। নারী শিক্ষা, নারী ক্ষমতায়ন, নারী উন্নয়ন ও নারী সমাজের উন্নয়নের জন্য যে সকল শিক্ষাবিদ ও গবেষক কাজ করে যাচ্ছেন তাদের মধ্য থেকে ইউজিসি একজন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে রোকেয়া চেয়ার-এর জন্য মনোনয়ন প্রদান করে থাকে।[১][২]

নিয়োগ পদ্ধতিসম্পাদনা

নির্দিষ্ট নীতিমালার ভিত্তিতে রোকেয়া চেয়ার নিয়োগ প্রদানের জন্য সাধারণত বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছ থেকে গবেষকদের নামের প্রস্তাব আহ্বান করা হয়। বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান, ইউজিসির পূর্ণকালীন সদস্যগণ এবং কমিশন কর্তৃক মনোনীত দুই জন বিশেষজ্ঞের সমন্বয়ে গঠিত কমিটি উক্ত পদে মনোনয়ন চূড়ান্ত করে থাকে।[১]

নিয়োগ কালসম্পাদনা

রোকেয়া চেয়ার পদে নিয়োগ কাল দুই বছর। উল্লেখ্য, একই সময়ে মাত্র একজন ব্যক্তিকে এই পদে নিয়োগ দেওয়া হয়।[১][২]

গবেষণাকর্মসম্পাদনা

নিয়োগপ্রাপ্ত গবেষকদের বাংলাদেশের যে কোনো পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সংযুক্ত থাকতে হয়। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে গবেষণাপত্র প্রকাশনা ছাড়াও তাদের সেমিনারে অংশগ্রহণ, বক্তৃতা প্রদান বা শিক্ষার্থীদের গবেষণা তত্ত্বাবধান করতে হতে পারে।[১]

প্রদেয়সম্পাদনা

রোকেয়া চেয়ারে নিযুক্ত গবেষকগণ ইউজিসি কর্তৃক নির্ধারিত বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা পেয়ে থাকেন। তবে তাদের প্রাপ্ত সম্মানী জাতীয় অধ্যাপকের তুলনায় অধিক নয়।[১][২]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "রোকেয়া চেয়ার মনোনয়ন প্রসঙ্গে" (পিডিএফ)বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০২২ 
  2. "কুবির 'রোকেয়া চেয়ার' মনোনীত হলেন ড. মনিরুজ্জামান"দৈনিক ইত্তেফাক। ২০ জানুয়ারি ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০২২ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা