ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (লেখক নাম: রাশিদ আসকারী; জন্ম: ১ জুন ১৯৬৫) বাংলাদেশী লেখক, কলামিস্ট, কথাসাহিত্যিক, সমালোচক, রাজনীতি বিশ্লেষক, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব, শিক্ষাবিদ। তিনি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের ১২তম উপাচার্য ছিলেন।[১][২][৩][৪]

হারুন-উর-রাশিদ আসকারী
Dr. Rashid Askari.jpg
১২তম উপাচার্য, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ
কাজের মেয়াদ
২১ অগাস্ট ২০১৬ – ২০ অগাস্ট ২০২০
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1965-06-01) ১ জুন ১৯৬৫ (বয়স ৫৭)
আসকারপুর, মিঠাপুকুর উপজেলা, রংপুর, বাংলাদেশ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
দাম্পত্য সঙ্গীমাসুমা ফেরদৌস
সন্তানহুমায়ুন রাশিদ আসকারী (পুত্র)
রোজা আসকারী (কন্যা)
প্রাক্তন শিক্ষার্থী
পেশালেখক, কলামিস্ট, কথাসাহিত্যিক, সমালোচক, রাজনীতি বিশ্লেষক, শিক্ষাবিদ, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব
স্বাক্ষর

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

১৯৬৫ সালের ১ জুন রংপুর জেলার মিঠাপুকুর থানার আসকারপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পিতার নাম মোঃ আবদুল মান্নান ও মাতার নাম সেতারা বেগম। স্ত্রীর নাম মাসুমা ফেরদৌস এবং দুই সন্তান হুমায়ুন রাশিদ আসকারী ও রোজা আসকারী।

শিক্ষাজীবনসম্পাদনা

আসকারী ১৯৮০ সালে রাজশাহী বোর্ডের অধীনে ১ম বিভাগে এস.এস.সি এবং ১৯৮২ সালে একই বোর্ডে ৫ম স্থানসহ ১ম বিভাগে এইচ.এস.সি পাশ করেন। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগ থেকে কৃতিত্বের সাথে ১৯৮৫ সালে বি.এ (অনার্স) এবং ১৯৮৬ সালে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন। ২০০৫ সালে ভারতের পুনে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভারতীয় ইংরেজি সাহিত্যে পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করেন।

কর্মজীবনসম্পাদনা

তিনি ১৯৯০ সালের ৩১ জুলাই ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগে যোগদান করেন এবং ২০০৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর প্রফেসর পদে পদোন্নতি পান। বর্তমানে এই বিশ্ববিদ্যালের কলা অনুষদের ডিন হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। তিনি ২০০৮ সালের অক্টোবর থেকে ২০১৩ সালের জুন পর্যন্ত সৌদি আরবের বাদশাহ খালিদ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটিং প্রফেসর এবং ইংরেজি বিভাগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৪ সালে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের  মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।[৩][৫] এর আগে বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক, ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি এসুরেন্স সেলের (আইকিউএসি) পরিচালক ও ছাত্র উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।[৪][৪] ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলোর বিভাগের সভাপতি ও ইংরেজি বিভাগে একাধিকবার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।[৬][৭] ২০১৬ সালের ২১ আগস্ট প্রফেসর আসকারী, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২তম উপাচার্য হিসেবে যোগদান করেন[৮] এবং এই বিশ্ববিদ্যালের ইতিহাসে প্রথমবারের মত উপাচার্যের পূর্ণাঙ্গ মেয়াদ সমাপ্ত করেন। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার পাশাপাশি তিনি বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুরি কমিশনের খণ্ডকালীন সদস্য হিসেবে কাজ করেছেন।[৯] এছাড়াও তিনি বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদ্‌যাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির অধীনস্থ  ‘ইন্টারন্যাশনাল পাবলিকেশন এন্ড ট্রান্সলেশন’ উপকমিটির সদস্য হিসেবে কাজ করছেন[১০] এবং বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ১০ জানুয়ারি ১৯৭২ স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস এবং ২৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪-এ প্রদত্ত জাতিসংঘ ভাষণ ইংরেজিতে অনুবাদ করেন।[১১]

সাহিত্যসম্পাদনা

রাশিদ বিশ্ববিদ্যালয় জীবন থেকেই লেখালেখি করেন।[১২] তিনি ২টি সম্পাদনা গ্রন্থসহ মোট ৮টি গ্রন্থ এবং শতাধিক প্রবন্ধ-নিবন্ধ-কলাম রচনা করেছেন। তবে পাঠকের কাছে ইংরেজি ভাষার প্রাবন্ধিক হিসেবে অধিক পরিচিত। বিশ্বকবি রবীন্দ্রানাথ ঠাকুরের জন্ম সার্ধশতবার্ষিকীতে ঠাগোর'স রাইটিং ইন ইংলিশ নামে তিন খণ্ডের বই সম্পাদনা করেন। ২০২১ সালে বাংলা একাডেমীর বইমেলায় প্রকাশিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বই আমার পিতা আমার বাংলাদেশ-এর অনুবাদ মাই ফাদার মাই বাংলাদেশ সম্পাদনা করেন। তিনি বাংলাদেশের প্রথম আন্তর্জাতিক বহুভাষিক ফ্লিপবুক জার্নাল 'দ্য আর্চার' সম্পাদনা করেন। তিনি বলেন “উপাচার্য সত্ত্বার চাইতে লেখক সত্ত্বা আমার কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ”।[১৩][১৪] একটি আন্তর্জাতিক লেখক জরিপে বাংলাদেশের সেরা ১০ উদীয়মান ইংরেজি লেখকের তালিকাভুক্ত হন। জরিপটি করেছে ‘দ্য অথার সাকসেস কোচ’ নামের একটি আন্তর্জাতিক প্রকাশনা ও জরিপ প্রতিষ্ঠান। তালিকার শীর্ষে রয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ইংল্যান্ড প্রবাসী লেখিকা তাহমিমা আনাম, দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন রাশিদ আসকারী।[১৫][১৬]

গ্রন্থসম্পাদনা

বাংলাসম্পাদনা

  • "মুমূর্ষু স্বদেশ" (১৯৯৬, প্রবন্ধ সংকলন)
  • "ইন্দো-ইংরেজি সাহিত্য ও অন্যান্য" (১৯৯৬, সাহিত্য ও সমালোচনা গ্রন্থ)
  • "একালের রূপকথা" (১৯৯৭, গল্প সংকলন)
  • "বিনির্মিত ভাবনা" (১৯৯৭, সমালোচনা প্রবন্ধ সংকলন)
  • "উত্তরাধুনিক সাহিত্য ও সমালোচনা তত্ত্ব" (ঢাকা ২০০২)
  • "বাংলাদশেঃ সমকালীন সমাজ-রাজনীতি" (২০১৯)

ইংরেজিসম্পাদনা

  • দ্য উন্ডেড ল্যান্ড (আহত মাতৃভূমি) (২০১১, সামাজিক-রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক প্রবন্ধগ্রন্থ)
  • নাইনটিন সেভেন্টি ওয়ান অ্যান্ড আদার স্টোরিজ (উনিশ একাত্তর ও অন্যান্য গল্প)  (২০১২, ছোট গল্প সংকলন), গ্রন্থটি বর্তমানে হিন্দি ও ফরাসী ভাষায় অনূদিত হয়েছে[১২]
  • ইংলিশ রাইটিংস অফ ঠাগোর (রবীন্দ্রানাথ ঠাকুরের ইংরেজি লেখা) (৩ খণ্ড, সম্পাদনা গ্রন্থ)
  • মাই ফাদার মাই বাংলাদেশ ( শেখ হাসিনার লেখা সম্পাদনা)

যুক্তরাষ্ট্রের রাইট স্টেট ইউনিভার্সিটি, ডেইটন ওহাইও থেকে প্রকাশিত “জার্নাল অব দ্য-পোস্ট কলোনিয়াল কালচারস এন্ড সোসাইটিজ”-এ ২০১১ সালে তার একটি ছোটগল্প (নাইনটিন সেভেন্টি ওয়ান) প্রকাশিত হয়। এছাড়া ভারতের কনটেম্পোরারি লিটারেরি রিভিউ পত্রিকায় ২০১১ এবং ২০১২ সালে দুটি গল্প প্রকাশিত হয়। দ্য ব্রুনেই টাইমস্ এবং আফ্রিকান হেরাল্ড এক্সপ্রেসসহ দেশ বিদেশের বিভিন্ন প্রত্রিকায় তার অসংখ্য প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। ভারতীয় সাহিত্য একাডেমি কর্তৃক প্রকাশিত ইন্ডিয়ান লিটারেচার পত্রিকার মার্চ- এপ্রিল ২০১৯ সংখ্যায় তার ছোটগল্প সংকলন নাইনটিন সেভেন্টি ওয়ান এর রিভিউ প্রকাশিত হয়েছে।[১৭]

প্রকাশনাসম্পাদনা

সংবাদপত্রে প্রকাশনাসম্পাদনা

  • "নিউনরমাল ও বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষা" (শিক্ষা), ইত্তেফাক, ২৪ ডিসেম্বর ২০২০[১৮]
  • "বিশ্ব জঙ্গিবাদের নেপথ্যে" (জঙ্গিবাদ), ইত্তেফাক, ০৫ জুন, ২০১৭ ইং[১৯]
  • "এক যুদ্ধহীন পৃথিবীর প্রত্যাশায়" (রাজনীতি), ইত্তেফাক, ১০ এপ্রিল, ২০১৭ ইং[২০]
  • "দক্ষ মানবসম্পদ উন্নয়নের চ্যালেঞ্জ" ইত্তেফাক, ০৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং[২১]
  • "সুষমা স্বরাজের ঢাকা সফর এবং ভারতের বাংলাদেশনীতি" ইত্তেফাক, ২৭ শে অক্টোবর, ২০১৭[২২]
  • "বিশ্বসভায় বাংলাদেশের আরেকটি অর্জন" (রাজনীতি), ইত্তেফাক, ২০ নভেম্বর, ২০১৭[২৩]
  • "রাজনৈতিক অগ্নিপরীক্ষার মুখে নেপাল" (রাজনীতি), ইত্তেফাক, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৭[২৪]
  • "একুশ শতকের উচ্চশিক্ষা ও বাংলাদেশ" (শিক্ষা), ইত্তেফাক, ২৯ মার্চ , ২০১৮[২৫]
  • "রোহিঙ্গা সংকট | প্রয়োজন একটি টেকসই সমাধান" ইত্তেফাক, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
  • "রোহিঙ্গা সংকট বাংলাদেশ বসে নেই" ইত্তেফাক, অক্টোবর ৪, ২০১৭
  • "রোহিঙ্গারা মাতৃভূমিতে পুনর্বাসিত হোক" যায় যায় দিন, ২১ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭
  • "আগস্ট ট্র্যাজেডি", যায় যায় দিন, ১৫ আগস্ট, ২০১৭
  • " বাংলাদেশের অর্থনীতি : প্রাচ্যের বিস্ময়" যায় যায় দিন, ৩১ শে অক্টোবর ২০১৬[২৬]
  • "বাংলাদেশ এক অসামান্য উন্নয়নের গল্প" যায় যায় দিন, ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬[২৭]

আন্তর্জাতিক জার্নালে প্রকাশনাসম্পাদনা

  • "War crimes and the criminals (যুদ্ধাপরাধসমূহ ও অপরাধীরা)" (নিবন্ধ); দ্য ব্রুনেই টাইমস, শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০০৭।
  • “Nineteen seventy one” (ছোট গল্প) The Journal of Postcolonial Cultures and Societies (JPCS) রাইট স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়, ডেটন, ওহাইও, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, খণ্ড ২, নং ৪,২০১১
  • "Lottery (লটারি)" (ছোট গল্প); দ্য কনটেম্পোরারি লিটারারি রিভিউ: ভারত (CLRI), বুধবার, আগস্ট ৩, ২০১১।
  • "Jihad (জিহাদ)" (ছোট গল্প) দ্য কনটেম্পোরারি লিটারারি রিভিউ: ভারত (CLRI)-Nimba Issue 1, ২০১২।
  • "Nineteen seventy one" (ছোট গল্প) Journal of the Postcolonial Cultures and Societies (খণ্ড-২, সংখ্যা ৪), ২০১১।
  • “The virgin whore” (ছোট গল্প) কাফে ডিসেনসেস, ৩১ মার্চ ২০১৯।
  • "Eve-teasing in Bangladesh: Crime and punishment", আফ্রিকান হেরাল্ড এক্সপ্রেস, ১৪ মার্চ, ২০১২।
  • "Psychological torture on women and the legal cure", আফ্রিকান হেরাল্ড এক্সপ্রেস, ১৭ মার্চ, ২০১২।
  • "Population explosion and the fate of mankind", আফ্রিকান হেরাল্ড এক্সপ্রেস, ১০ এপ্রিল ২০১২।
  • " Bangladesh's conquest of the sea: a daunting prospect", আফ্রিকান হেরাল্ড এক্সপ্রেস, ১০ এপ্রিল ২০১২।
  • "Future of literature: Global Art-Malady and its Consequences", লিট সার্চ, খণ্ড ১, সংখ্যা ১, ডিসেম্বর ২০১১: আইএসএসএন 2277-6990 (মুদ্রণ)।
  • "Locked-in Syndrome" (ছোট গল্প); দ্য কনটেম্পোরারি লিটারারি রিভিউ: ভারত (CLRI), জুন ২০১২।
  • 'Historic 21st February and the birth of a nation (ঐতিহাসিক ২১শে ফেব্রুয়ারি এবং একটি জাতির জন্ম)', আফ্রিকান হেরাল্ড এক্সপ্রেসে প্রকাশিত নিবন্ধ।

পুরস্কার ও সম্মাননাসম্পাদনা

  • লেখালেখি এবং শিক্ষাক্ষেত্রে অবদানের জন্য “ঐতিহ্য র্স্বণপদক ২০১৯”[২৮]
  • শিক্ষাখাতে বিশেষ অবদানের জন্য "জননেত্রী শেখ হাসিনা পুরস্কার ২০১৯"[২৯]
  • ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই নিউজ অ্যাওয়ার্ড-২০২০[৩০][৩১]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "ইবি'র নতুন ভিসি ড. রাশিদ আসকারী ও ট্রেজারার ড. সেলিম তোহা"দৈনিক ইনকিলাব। ২১ আগস্ট ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০ জুন ২০১৯ 
  2. "ড. রাশিদ আসকারী ইবির নতুন ভিসি | অন্যান্য | The Daily Ittefaq"archive1.ittefaq.com.bd। ২০১৯-০৭-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-০৫ 
  3. প্রতিবেদক, নিজস্ব। "ইবি'র নতুন ভিসি ড. রাশিদ আসকারী ও ট্রেজারার ড. সেলিম তোহা"DailyInqilabOnline। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-০৫ 
  4. "রাশিদ আসকারী ইবির উপাচার্য"সমকাল। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-০৫ 
  5. Mahmud, Murad। "বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলেন রাশিদ আসকারী"uttorbangla.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-০৫ 
  6. "ইবির ফোকলোর বিভাগের নয়া সভাপতি ড. আসকারী"The Daily Sangram। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-০৫ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  7. "ইবির ফোকলোর বিভাগের নতুন সভাপতি ড. আসকারী"Dainik shiksha। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-০৫ 
  8. "A Talk with IU VC | daily-sun.com"web.archive.org। ২০১৭-০৩-০৬। Archived from the original on ২০১৭-০৩-০৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-২৭ 
  9. "Dr Rashid Askari nominated UGC part-time member"Daily Sun (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-২৭ 
  10. Mosharrof। "Coffee table book to be published on Bangabandhu | Bangladesh Sangbad Sangstha (BSS)" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-২৭ 
  11. "'We don't know defeat'"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-০১-১০। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-২৭ 
  12. "রাশিদ আসকারীর ৭১-এর গল্প ফরাসি অনুবাদের মোড়ক উন্মোচন"একুশে টিভি। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-০৫ 
  13. ডেস্ক, নিউজ (২০১৮-১২-০১)। "উপাচার্য সত্ত্বার চাইতে লেখক সত্ত্বা আমার কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ: ড. রাশিদ আসকারী"কুষ্টিয়া নিউজ | Kushtia News। ২০১৯-০৭-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-০৫ 
  14. "সমাজ ও রাজনীতি নিয়ে ব্যতিক্রমী গ্রন্থ || সাহিত্য"জনকন্ঠ। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-০৫ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  15. "সেরা ১০ উদীয়মান ইংরেজি লেখকের তালিকায় রাশিদ আসকারী"Risingbd.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-০৫ 
  16. "সেরা ১০ ইংরেজি লেখকদের মধ্যে ড. রাশিদ আসকারী"BreakingNews.com.bd। ২০১৯-০৭-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-০৫ 
  17. "Nineteen seventy one and other stories – Book Review – observerbd.com"দ্য ডেইলি অবজার্ভার (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-২৪ 
  18. "ই-পেপার | দৈনিক ই-ইত্তেফাক"ই-পেপার | দৈনিক ই-ইত্তেফাক (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১২-২৯ 
  19. "বিশ্ব জঙ্গিবাদের নেপথ্যে"archive1.ittefaq.com.bd। ২০১৯-০৭-২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-২২ 
  20. "এক যুদ্ধহীন পৃথিবীর প্রত্যাশায়"archive1.ittefaq.com.bd। ২০১৯-০৭-২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-২২ 
  21. "দক্ষ মানবসম্পদ উন্নয়নের চ্যালেঞ্জ"archive1.ittefaq.com.bd। ২০১৯-০৭-২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-২২ 
  22. "সুষমা স্বরাজের ঢাকা সফর এবং ভারতের বাংলাদেশনীতি"archive1.ittefaq.com.bd। ২০১৯-০৭-২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-২২ 
  23. "বিশ্বসভায় বাংলাদেশের আরেকটি অর্জন"archive1.ittefaq.com.bd। ২০১৯-০৭-২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-২২ 
  24. "রাজনৈতিক অগ্নিপরীক্ষার মুখে নেপাল"archive1.ittefaq.com.bd। ২০১৯-০৭-২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-২২ 
  25. "একুশ শতকের উচ্চশিক্ষা ও বাংলাদেশ"archive1.ittefaq.com.bd। ২০১৯-০৭-২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-২২ 
  26. "বাংলাদেশের অর্থনীতি : প্রাচ্যের বিস্ময় সফল বাংলাদেশ"সফল বাংলাদেশ। ২০১৯-০৭-২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-২২ 
  27. "বাংলাদেশ এক অসামান্য উন্নয়নের গল্প সফল বাংলাদেশ"সফল বাংলাদেশ। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-২২ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  28. "'ঐতিহ্য' স্বর্ণপদক পেলেন ইবি ভিসি"ঢাকাটাইমস২৪.কম। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-১৩ 
  29. "Prof Aksari gets Janonetri Sheikh Hasina award – Eduvista – observerbd.com"দৈনিক অবজারভার। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-১৭ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  30. "ঢাবি অ্যালামনাই নিউজ অ্যাওয়ার্ড পেলেন ইবি উপাচার্য"bd-journal.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-১৯ 
  31. "ঢাবি অ্যালামনাই নিউজ অ্যাওয়ার্ড পেলেন ইবি উপাচার্য"বাংলাদেশ প্রতিদিন। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-১৯