জ্যোতির্বিজ্ঞানে রাশিচক্র (ইংরেজি ভাষায়: Zodiac, গ্রিক ভাষায়: ζῳδιακός বা জোডিয়াকোস) বলতে আকাশে সূর্যের আপাত গতিপথের ১২টি ভাগকে বোঝায়। এই আপাত গতিপথের নাম ভূকক্ষ কারণ, প্রকৃতপক্ষে এটি সূর্যের চারদিকে পৃথিবীর কক্ষপথ। ভূকক্ষের খ-দ্রাঘিমাকে ১২টি ভাগে ভাগ করা হয় যার প্রতিটি ৩০ ডিগ্রি করে। এভাবে মোট ১২টি বিভাগ মিলে ৩৬০ ডিগ্রি তথা একটি বৃত্ত তৈরি করে। ভূকক্ষের সমতল থেকে ৮-৯ ডিগ্রি উত্তর বা দক্ষিণ (খ-অক্ষাংশ) পর্যন্ত বিস্তৃত অঞ্চলটিকে বলা হয় রাশিবন্ধনী (zodiacal belt)। চাঁদ এবং খালি চোখে দৃশ্যমান গ্রহগুলোর গতিপথও এই বন্ধনীর মধ্যে অবস্থান করে।

সূর্যের চারদিকে পৃথিবী আবর্তন করে বলে মনে হয় আকাশে সূর্য ভূকক্ষ (লাল বৃত্ত) বরাবর গতিশীল। ভূকক্ষ বিষুবরেখার (নীল) সাথে একটি কোণ তৈরি করে।

কিন্তু বাস্তবিক অর্থে রাশিচক্র কেবলই একটি খ-স্থানাংক ব্যবস্থা, আরও নির্দিষ্ট করে বললে এটি এক ধরনের ভূকক্ষীয় স্থানাংক ব্যবস্থা। প্রতিটি স্থানাংক ব্যবস্থা তৈরি করতে প্রয়োজন পড়ে একটি প্রসঙ্গ তল যেখান থেকে অক্ষাংশ গণনা শুরু হয়, এবং প্রসঙ্গ তলে এমন একটি প্রসঙ্গ বিন্দু যেখান থেকে দ্রাঘিমাংশ গণনা শুরু হয়। রাশিচক্রের ক্ষেত্রে সেই প্রসঙ্গ তল হচ্ছে ভূকক্ষ এবং ভূকক্ষের প্রসঙ্গ বিন্দুটি হচ্ছে মহাবিষুবের সময় সূর্যের অবস্থান।

যে তারামণ্ডলগুলোর মধ্য দিয়ে ভূকক্ষ অতিক্রম করে তার প্রতিটিকেই কোন না কোন জন্তুর আকৃতি দেয়া হয়েছিল। এজন্য প্রাচীন গ্রিসের অধিবাসীরা রাশিচক্রকে ডাকতো "জোডিয়াকোস কিকলোস" বা "জন্তুদের বৃত্ত" নামে। রাশিচক্রে মোট তারামণ্ডলের সংখ্যা এবং তাদের আকৃতি আগে নির্দিষ্ট করে বলা যেতো না, তবে গাণিতিক জ্যোতির্বিদ্যার গোড়াপত্তনের পর তারামণ্ডলগুলোর সীমানা নির্দিষ্ট করা হয়েছে। রাশিচক্রে মোট ১২টি তারামণ্ডল রয়েছে এবং আপাতভাবে বলা যায় সূর্য এই ১২টি তারামণ্ডলের মধ্য দিয়েই অতিক্রম করে। কোন মণ্ডলে সূর্য কতদিন থাকে তাও নির্দিষ্টভাবে জানা যায়।[১]

বারো রাশিসম্পাদনা

 
আধুনিক রাশিচক্র
 
রাশিচক্রের ষোড়শ শতকে করা কাঠখোদাই চিত্র
ক্রম চিহ্ন অবস্থান বাংলা নাম লাতিন নাম প্রতিরূপ গ্রিক নাম সংস্কৃত নাম
♈︎ ০° মেষ Aries ভেড়া Κριός (Krios) Meṣa (मेष)
♉︎ ৩০° বৃষ Taurus ষাঁড় Ταῦρος (Tauros) Vṛṣabha (वृषभ)
♊︎ ৬০° মিথুন Gemini জমজ ডায়াসকিউরি Δίδυμοι (Didymoi) Mithuna (मिथुन)
♋︎ ৯০° কর্কট Cancer কাঁকড়া Καρκίνος (Karkinos) Karka (कर्क)
♌︎ ১২০° সিংহ Leo সিংহ Λέων (Leōn) Siṃha (सिंह)
♍︎ ১৫০° কন্যা Virgo কুমারীত্ব Παρθένος (Parthenos) Kanyā (कन्या)
♎︎ ১৮০° তুলা Libra দাঁড়িপাল্লা Ζυγός (Zygos) Tulā (तुला)
♏︎ ২১০° বৃশ্চিক Scorpio কাঁকড়াবিছে Σκoρπίος (Skorpios) Vṛścika (वृश्चिक)
♐︎ ২৪০° ধনু Sagittarius (অশ্বমানব) ধনুর্ধর Τοξότης (Toxotēs) Dhanuṣa (धनुष)
১০ ♑︎ ২৭০° মকর Capricornus পর্বত ছাগল Αἰγόκερως (Aigokerōs) Makara (मकर)
১১ ♒︎ ৩০০° কুম্ভ Aquarius জলাধার Ὑδροχόος (Hydrokhoos) Kumbha (कुंभ)
১২ ♓︎ ৩৩০° মীন Pisces মাছ Ἰχθύες (Ikhthyes) Mīna (मीन)

তারামণ্ডলসম্পাদনা

 
রাশিচক্রসমূহের তারাচিত্র
নাম উজ্জ্বলতম নক্ষত্র[২]
মেষ আশ্বিনী[৩] / হামাল
বৃষ রোহিণী
মিথুন সোমতারা
কর্কট পুষ্যা
সিংহ মঘা
কন্যা চিত্রা
তুলা বিশাখা
বৃশ্চিক জ্যেষ্ঠা
ধনু কাউস অস্ট্রেলিস
মকর দেনেব আলগেদি
কুম্ভ শতভিষা
মীন মত্‍স্যমুখ

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Zodiac, এনসাইক্লোপিডিয়া ব্রিটানিকা
  2. ম্যাগনিচিউড স্কেল
  3. নক্ষত্রাদি, নক্ষত্র (হিন্দু জ্যোতিষ)