রজনী হ'ল উতলা হল বুদ্ধদেব বসু রচিত একটি বিখ্যাত ছোটগল্প। গল্পটি বিংশ শতাব্দীর বিশ-ত্রিশের দশকে প্রবল আলোড়ন সৃষ্টিকারী সাহিত্য পত্রিকা কল্লোলের চতুর্থ বর্ষের (১৩৩৩ বঙ্গাব্দ; ১৯২৬ খ্রিষ্টাব্দ) জ্যৈষ্ঠ সংখ্যায় প্রথম প্রকাশিত হয়।[১] সাহিত্যের বিষয় হিসেবে শরীরী প্রেমকে তুলে এনে তৎকালীন সমাজে এই গল্প এক প্রবল ঝড়ের সূচনা করেছিল।

কাহিনী সংক্ষেপসম্পাদনা

গল্পের সূচনা মেঘনার বুকে ভাসমান এক গোয়ালন্দের ঘাটগামী স্টিমারেগল্পকথক-নায়ক সেখানে স্টিমারের ডেকে বসে তার ভাবী স্ত্রী নীলিমার সাথে প্রকৃতির শান্ত সৌন্দর্য অবগাহনরত। কথায় কথায় ওঠে নায়কের অতীতের কথা। নীলিমার জেদাজেদিতেই নায়ক তাকে তার অতীত জীবনের গল্প বলে - অষ্টাদশবর্শীয় এক সদ্য কৈশোর উত্তীর্ণ যুবকের কোলকাতায় পড়তে এসে বাবার বন্ধু এক ব্যারিস্টারের বাড়িতে আশ্রয় নেওয়া ও সে বাড়ির বিভিন্ন বয়সী কন্যাদের সাথে রাতে গোপন শরীরী খেলার এমন এক অভিজ্ঞতার সে গল্প, যা তার অতীতকেই শুধু করে তোলে না ছায়াচ্ছন্ন, তাকে ছাপিয়ে তার কালো ছায়া বাড়িয়ে দেয় ধীরে ধীরে তার বর্তমান জীবনেরও উপরে, ঠেলে দেয় তাকে ও তাদের বর্তমান সম্পর্ককে কোনও এক অনিশ্চিত ভবিষ্যতের দিকে। সেই প্রবল 'অনিশ্চিত'কে আশ্রয় করেই গল্প পৌঁছায় তার উপসংহারে - ফেলে যায় নায়ককে এক ভয়ঙ্কর উদ্বেগের মুহূর্তে।

গ্রন্থপঞ্জীসম্পাদনা

  • কল্লোল: গল্প পঞ্চাশৎ, সম্পা. বারিদবরণ ঘোষ. কোলকাতা: আনন্দ, ১৯৯৬, চতুর্থ মুদ্রণ ২০১০। আইএসবিএন 81-7215-549-2.

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. বারিদবরণ ঘোষ. "ভূমিকা". কল্লোল: গল্প পঞ্চাশৎ, ১৯৯৬ (চতুর্থ মুদ্রণ ২০১০), পৃঃ - ৭ - ১৫।

আরও দেখুনসম্পাদনা