মেধা যোধ (জুলাই ৩১, ১৯২৭ আহমেদাবাদে - ১১ জুলাই ২০০৭ সান ডিয়েগোতে) ছিলেন একজন ভারতীয় এবং ইন্দো আমেরিকান ভরতনাট্যম নৃত্যশিল্পী। তিনি লস অ্যাঞ্জেলসের ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ায় শাস্ত্রীয় ভারতীয় নৃত্যের শিক্ষক ছিলেন। তিনি তাঞ্জোর বালাসারস্বতীর শিষ্য ছিলেন এবং গরবা নৃত্যের উপর একটি তথ্যচিত্র তৈরি করেছিলেন।

মেধা যোধ
মেধা যোধ.jpg
জন্ম(১৯২৭-০৭-৩১)৩১ জুলাই ১৯২৭
মৃত্যু১১ জুলাই ২০০৭(2007-07-11) (বয়স ৭৯)
জাতীয়তাভারতীয়
পেশাভরতনাট্যম নৃত্যশিল্পী

জীবনের প্রথমার্ধসম্পাদনা

মেধা যোধের জন্ম ৩১ জুলাই, ১৯২৭ সালে, বর্তমান গুজরাত রাজ্যে অবস্থিত আহমেদাবাদ শহরে। [১] মেধা পাঁচ বছর বয়স হওয়ার আগেই নাচ শুরু করছেন। শৈশবেই মেধা মুগ্ধ হন ভরতনাট্যম দেখে, যেটা ভারতের শ্রেষ্ঠ শাস্ত্রীয় নৃত্যের একটা ধরন।

নৃত্যে তাঁর আগ্রহ থাকা সত্ত্বেও, মেধা যোধের শিক্ষা আবর্তিত ছিল বিজ্ঞান শিক্ষাকে ঘিরে। মেধা মুম্বাই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞানে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন । [১] তিনি পড়াশোনা চালিয়ে যান এবং ক্যালিফোর্নিয়ার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর অর্জন করেন। পরে ১৯৮৪ সালে লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমসের সাথে একটি সাক্ষাৎকারে মেধা যোধ নৃত্যশিক্ষক হিসেবে তাঁর অস্বাভাবিক শিক্ষাগত পটভূমিটি ব্যাখ্যা করেছিলেন, "আমার যথাযথ ব্রাহ্মণ পটভূমি রয়েছে। আমি ব্রিটিশ ভারতে বড় হয়েছি এবং আমি কলা শিখতে চাই, বিজ্ঞান নিয়ে এগিয়ে যেতে এবং বিদেশ ভ্রমণ করার আশা করি।"

মেধা যোধ ছোট থাকতেই ভারতের বাইরে ব্যাপক ভ্রমণ করেছিলেন। তাঁর ভ্রমণের ফলে নৃত্যের আধুনিক ও বিশ্বশৈলীর বিভিন্ন ধরন তাঁর কাছে উন্মোচিত হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত, মেধা কানেকটিকাটে গিয়ে তাঁর সময়ের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভারতীয় নৃত্যশিল্পী তাঞ্জোর বালাসরস্বতীর ছাত্র হয়েছিলেন। [১] তিনি আজীবন বালাসরস্বতীর ছাত্র এবং শিষ্য হয়ে থেকে গিয়েছিলেন।

ভ্রমণের সময় তিনি সুইডিশ মেডিকেল ছাত্র কার্ল ভন এসেনের সাথেও সাক্ষাত করেছিলেন এবং তার সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন। [১] পরে এই দম্পতির বিবাহবিচ্ছেদ হয়।

পেশাসম্পাদনা

মেধা ১৯৭৬ সালে লস অ্যাঞ্জেলসের ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, (ইউসিএলএ)র অনুষদের সদস্য হন এবং বালসারস্বতীর মূল্যবোধ এবং নৃত্যশৈলী পাঠদানের দিকে মনোনিবেশ করেন। [১] ১৯৯৪ সালে স্কুল থেকে অবসর গ্রহণের আগে পর্যন্ত তিনি ইউসিএলএতে ছিলেন। অবসর গ্রহণের পরেও তিনি ডান্স ক্যালিডোস্কোপ ধারাবাহিক সহ বেশ কয়েকটি ইউসিএলএ সংস্থার উপদেষ্টা হিসাবে দায়িত্ব পালন করে গেছেন।

মেধা যোধ ১৯৮৭ সালে একাডেমিকভাবে সুপরিচিত একটি ডকুমেন্টারি চলচ্চিত্র তৈরি করেছিলেন। [১] গারবা-রস:গুজরাতি সংস্কৃতিতে একটি ঝলক শিরোনামের এই ছবিটি গুজরাতের ঐতিহ্যবাহী গারবা (নৃত্য) -কে কেন্দ্র করে তৈরী করা হয়েছিল।

অবসর নেওয়ার পরে মেধা সারা ক্যালিফোর্নিয়া জুড়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নৃত্য পরিবেশন করতে থাকেন। সান্টা মনিকার হাইওয়ে পারফরম্যান্স স্পেসের "স্পিরিটি ডান্স" সিরিজেও তিনি নৃত্যাভিনয় করেন [১]

২০০২ সালে ওকল্যান্ড থেকে ক্যালিফোর্নিয়ার সান দিয়েগোতে চলে আসার আগে পর্যন্ত মেধা যোধ ব্যক্তিগতভাবে পড়াতেন। [১]

স্বাস্থ্যহানির কারণে ২০০৭ সালের ১১ই জুলাই, মেধা যোধ সান দিয়েগোতে মারা যান। সেই সময় তিনি তাঁর মেয়ে কমলের মুইলেনবার্গের বাড়িতে ছিলেন। [১] মৃত্যকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর। তিনি দুই মেয়ে, কমল ও নীলা ভন এসেন এবং দুই নাতনিকে রেখে গেছেন। তাঁর ছেলে, এরিক ভন এসেন, ছিলেন এক জাজ ব্যাস বাদক, যিনি ১৯৯৭ সালে মারা গিয়েছিলেন।

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Segal, Lewis (২০০৭-০৭-১৮)। "Medha Yodh, 79; classical Indian dancer and arts advocate taught at UCLA"Los Angeles Times। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৮-০৪