প্রধান মেনু খুলুন

মখদুম আলী মাহিমি

ভারতীয় মুসলিম আলেম
(মাহিম দরগাহ থেকে পুনর্নির্দেশিত)
মাহিম স্থিত বাবা মাহিমির দরগাহ

মখদুম আলী মাহিমি ( ১৩৭২ থেকে ১৪৩১ খ্রিঃ) একজন দরবেশ ও আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আলেম ছিলেন। তিনি তুগলক রাজবংশেরগুজরাটের সুলতান আহমেদ শাহের সময় জীবিত ছিলেন, এবং সুলতানের বোনকে বিয়ে করেছিলেন। তিনি ব্যাপকভাবে তার পাণ্ডিত্যপূর্ণ গ্রন্থ, উদার দৃষ্টিভঙ্গি ও মানবতাবাদী আদর্শের জন্য পরিচিত। মাহিমি ইরাকি বংশোদ্ভূত আরব্য ভ্রমণকারী পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন যারা পরে বোম্বাইয়ের সপ্তদ্বীপের মাহিমে বসতি স্থাপন করেন।[১]

তাঁর শৈশবকাল সম্পর্কে বেশি কিছু জানা যায় না। পরবর্তীতে তিনি মহিউদ্দিন ইবনে আরাবী নামক একজন স্পেনীয় মুসলিম সাধুর শিষ্যত্ব গ্রহণ করেন। গুজরাটের মুজাফফরিদ রাজবংশের সুলতান আহমেদ শাহ তাঁকে শহরের কাজি নিয়োগ করার পর, মাহিমির সুনাম বৃদ্ধি পায়।

ভারতীয় পণ্ডিতদের মধ্যে মাহিমি প্রথম কুরআনের একটি ব্যাখ্যা লেখেন, যা শাহ ওয়ালীউল্লাহ দেহলোভী সহ অন্যান্য ইসলামি পণ্ডিতমহল কর্তৃক সমালোচনামূলোক প্রশংসা অর্জন করে। তাঁর লেখা উনিশটি মূল্যবান বইয়ের জন্য তাঁকে, কুতুব-ই-কোঙ্কণ (কোঙ্কণের নেতা) উপনাম প্রদান করা হয়। ভারতে তিনি পবিত্র আল কুরআনের প্রথম ব্যাখ্যাদাতা। তাঁর ব্যাখ্যানসমূহ সারা বিশ্বজুড়ে পরিচিত এবং এগুলিকে "তাফসিরুর রহমান" বলা হয়ে থাকে। পণ্ডিতদের মতে, কুরআনের সব ব্যাখ্যানগুলোর মধ্যে এগুলি অনন্য। যা আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়, কায়রো ও মক্কার উম্মুল কুরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পাওয়া যায়।

মাহিমি মুসলিমহিন্দু উভয় দ্বারা সম্মানিত, মুসলিম সম্প্রদায়ের সব মজহব তাঁকে মর্যাদার নজরে দেখে। ১৪৩১ সালে তাঁর মৃত্যুর পর তাঁকে মাহিমে সমাহিত করা হয়। পরে কবরস্থ স্থানটি ভক্তদের জন্য দরগাহয় পরিণত হয়;[২] যা বর্তমানে মাহিম দরগাহ নামে পরিচিত।

পরিচ্ছেদসমূহ

উর্স উৎসবসম্পাদনা

প্রতিবছর ১০ দিন যাবত আরবি ক্যালেন্ডার অনুযায়ী শাওয়াল মাসের ত্রয়োদশ তম দিনে ওরস উৎসব পালন কারা হয়, সেসময় হাজার হাজার ভক্ত তাঁর দরগাহয় যান।

বার্তমানে যে জায়গায় মাহিম পুলিশ স্টেশনটি অবস্থিত, বিশ্বাস করা হয় যে উক্ত স্থানটি তাঁর বাড়ি ছিল; এবং এর জন্য আঠবার মিছিলও হয়। এই ওরস উৎসবের সময় চুরাশিটি পুলিশ থানার প্রতিটি থেকে দু'জন করে পুলিশ এখানে প্রতিনিধিত্ব করে; এবং মুম্বাই পুলিশের কমিশনার বাবা মাহিমির কবরে চাদর চড়িয়ে উৎসবের শুরু করে।

২১ মে, ২০০৫ সালে, মহারাষ্ট্র সরকার মখদুম আলী মাহির সম্মানার্থে জেজে উড়ালপুলের নাম পালটে তাঁর নামে নামকরণ করে। ২.১ কিলোমিটার দীর্ঘ এ উড়ালপুলটি দেশের দীর্ঘতম ভায়াডাক্ট।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  • A saint revered by both Hindus and Muslims, Mohammed Wajihuddin/TNN, pg 4, Sunday Times of India, Bombay, dated 2005-05-22
  • On Urs, Mumbai police keep tryst with Sufi saint, S Ahmed Ali, The Indian Express, Sunday, 2002-12-22
  • Sayed Imamuddin Gulshan Aabadi, Barakat-ul-Awliya, Bombay.
  • Ghulam Azad Bilgrami, Rausat'ul-Awliya, Aurangabad, 1892-93.
  • Bombay Gazetteer, Volume III, Bombay, 1910.
  • S.M. Edwardes, Rise of Bombay, Bombay 1909.
  • Maulana A. R. Parvaz Islahi, Makhdum Ali Mahimi, Naqsh-e-Kokan Publication Trust, Bombay,1976.
  • Nawab Siddiq Hasan Khan, Abjad-ul-Uloon, Bhopal,1295 AH.
  • Muhammed Yusuf Khatkhatey, Kashaful Maktoon
  • Fi-Halat-e-Haji Ali Makhdoom, Maktaba-e-Shihabi, Bombay,1903.
  • Towns and Islands of Bombay, Statistical account (Administration), Volume III, Bombay,1894.
  • Prof. Abdus Sattar Dalvi, Dargahs Abodes of the Saints.
  1. Sadia Dehlvi (১১ অক্টোবর ২০১৬)। Sufism: Heart of Islam। HarperCollins Publishers। পৃষ্ঠা 211–। আইএসবিএন 978-93-5029-448-2 
  2. George Michell (১ মে ২০১৩)। Southern India: A Guide to Monuments Sites & Museums। Roli Books Private Limited। পৃষ্ঠা 54–। আইএসবিএন 978-81-7436-903-1 

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা