প্রধান মেনু খুলুন

ভৌগোলিক উপাত্তসম্পাদনা

শহরটির অবস্থানের অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশ হল ৩১°৪৩′ উত্তর ৭৬°৫৫′ পূর্ব / ৩১.৭২° উত্তর ৭৬.৯২° পূর্ব / 31.72; 76.92[১] সমূদ্র সমতল হতে এর গড় উচ্চতা হল ১০৪৪ মিটার (৩৪২৫ ফুট)।

জনসংখ্যার উপাত্তসম্পাদনা

ভারতের ২০০১ সালের আদম শুমারি অনুসারে মান্ডী শহরের জনসংখ্যা হল ২৬,৮৫৮ জন।[২] এর মধ্যে পুরুষ ৫৩% এবং নারী ৪৭%।

এখানে সাক্ষরতার হার ৮৪%। পুরুষদের মধ্যে সাক্ষরতার হার ৮৬% এবং নারীদের মধ্যে এই হার ৮২%। সারা ভারতের সাক্ষরতার হার ৫৯.৫%, তার চাইতে মান্দী এর সাক্ষরতার হার বেশি।

এই শহরের জনসংখ্যার ১০% হল ৬ বছর বা তার কম বয়সী।

জলবায়ুসম্পাদনা

মান্ডীর জলবায়ু কোপেন জলবায়ু শ্রেণীবিভাগের অন্তর্গত প্রায় ক্রান্তীয় পার্বত্যাঞ্চল জলবায়ু বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন। মান্ডীর জলবায়ু যৌগিক ধরনের,গ্রীষ্মকালে বেশ গরম এবং শীতকালে ঠান্ডা।

মান্ডী-এর আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য
মাস জানু ফেব্রু মার্চ এপ্রিল মে জুন জুলাই আগস্ট সেপ্টে অক্টো নভে ডিসে বছর
সর্বোচ্চ °সে (°ফা) গড় ১৬٫৮
(৬২)
১৬٫৬
(৬২)
২১
(৭০)
২৭٫৬
(৮২)
২৬٫৬
(৮০)
২৭٫৭
(৮২)
২৫٫৫
(৭৮)
২৫٫৬
(৭৮)
২৫٫৩
(৭৮)
২৩٫১
(৭৪)
২১٫৬
(৭১)
১৭٫৪
(৬৩)
২২٫৯
(৭৩٫৩)
সর্বনিম্ন °সে (°ফা) গড়
(৩৯)
৪٫১
(৩৯)
৭٫২
(৪৫)
১০٫৫
(৫১)
১৪٫৭
(৫৮)
১৫٫২
(৫৯)
১২٫৭
(৫৫)
১২٫৩
(৫৪)
১১٫৭
(৫৩)
১০
(৫০)
৬٫৪
(৪৪)
৩٫৮
(৩৯)
৯٫৩৮
(৪৮٫৮)
গড় বৃষ্টিপাত মিমি (ইঞ্চি) ৩০
(১٫১৮)
৩০
(১٫১৮)
২২
(০٫৮৭)
১৫
(০٫৫৯)
১৫
(০٫৫৯)
৮৫
(৩٫৩৫)
২৪০
(৯٫৪৫)
২২০
(৮٫৬৬)
১৩০
(৫٫১২)
২৫
(০٫৯৮)
১০
(০٫৩৯)
১০
(০٫৩৯)
৮৩২
(৩২٫৭৫)
উৎস #১: মেওওয়েদার[৩]
উৎস #২: ইন্টারন্যাশনাল স্কলারলি রিসার্চ নেটওয়ার্ক[৪]

পরিবহনসম্পাদনা

জাতীয় সড়ক ১৫৪ পথে এটি রাজ্যের রাজধানী শিমলার সাথে যুক্ত।

দর্শনীয় স্থানসম্পাদনা

মাণ্ডি ও তার আশপাশে ছড়িয়ে আছে বেশকিছু দর্শনীয় স্থান। যার মধ্যে অনির্বচনীয় প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের মাঝে লুকিয়ে রয়েছে অচেনা পরাশর হ্রদ[৫]

মাণ্ডিকে বলা হয় হিমাচলের কাশী। এখানে রয়েছে ৮১টি পুরনো মন্দির। যার অধিকাংশই শিবের। হাইওয়ে ছাড়িয়ে নদীর ব্রিজ পেরিয়ে শহরের প্রাণকেন্দ্রে প্রবেশ করলে চারপাশে পুরনো আমেজটা আজও ধরা দেয়। শহরের মাঝে সাজানো গোছানো ইন্দিরা মার্কেট। এর ঠিক পিছনেই রাজমহল ভবানী প্রাসাদ। প্রাসাদের একাংশে হেরিটেজ হোটেল আর অন্য অংশে সরকারি কার্যালয়। অদূরে পুরনো বাজার এলাকার মধ্যে রয়েছে মাণ্ডির বিখ্যাত ভূতনাথ মন্দির। এই মন্দিরকে কেন্দ্র করে এখানে শিবরাত্রিতে বড় উৎসব হয়। লাগোয়া গলিপথে রয়েছে পুরনো আমলের বাড়ি-ঘর।

 
Victoria Bridge ,Mandi full view

এছাড়া নীলকণ্ঠ শিবমন্দির, মৃত্যুঞ্জয় মহাদেব মন্দির। মন্দির দুটো শিল্পমণ্ডিত। নদীর ধারে দেখবেন একাদশ রুদ্রমন্দির। বিপাশা নদীর উপর ভিক্টোরিয়া ব্রিজ পেরিয়ে দেখে নিন কারুকার্যময় সপ্তদশ শতকের রাজা সিধ সেনের পঞ্চবকতর শিবমন্দির।

খানিক দূরে সুকেতি ঝোরা এসে মিশেছে বিপাশা নদীতে। পঞ্চবকতর মন্দিরে শিবমূর্তির পাঁচটি মুখ। এছাড়াও মাণ্ডিতে দেখবেন ত্রিলোকীনাথ মন্দির, তারণা মন্দির, ভীমাকালী মন্দির প্রভৃতি।

 
Triloknath Temple

মাণ্ডি থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে রেওয়ালসর হ্রদ। সেখানে পাহাড়ি পথ পেরিয়ে পৌঁছে দেখুন সবুজে ঘেরা পবিত্র রেওয়ালসর হ্রদ। এখানে রয়েছে বৌদ্ধ গুম্ফা, শিখ গুরুদ্বার আর হিন্দু মন্দির। লোকবিশ্বাস, এই হ্রদের জলে স্নান করলে পূর্ণলাভ করা যায়।

সবুজ ঘাসের চাদরে মোড়া পাহাড়ের কোলে ২ হাজার ৭৩০ মিটার উচ্চতায় পরাশর হ্রদের ধারেই রয়েছে ত্রয়োদশ শতকে রাজা বান সেনের তৈরি প্যাগোডাকৃতির পরাশর মুনির মন্দির। তিনতলা মন্দিরটি কাঠ আর পাথর দিয়ে তৈরি। জুন মাসের মাঝখানে এখানে স্বর্ণহালুই মেলা বসে। লোকবিশ্বাস, এই পবিত্র হ্রদ দেবতা কামরুনাগের ইচ্ছায় পদাঘাতে সৃষ্টি করেছিলেন ভীম। হ্রদের জলে রয়েছে ছোট্ট এক খণ্ড ভাসমান দ্বীপ। হ্রদের জলে স্নান করা নিষেধ। চারপাশে মায়াবি প্রাকৃতিক শোভা। দূরে দেখা যায় নীল আকাশের ক্যানভাসে দিগন্ত বিস্তৃত হিমশৃঙ্গ। হ্রদের কাছে অপার নির্জনতার মাঝে রাত কাটানোর জন্যে রয়েছে বনবাংলো ও পিডব্লুডি রেস্ট হাউস।

Galleryসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Mandi"Falling Rain Genomics, Inc। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০০৭ 
  2. "ভারতের ২০০১ সালের আদম শুমারি"। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০০৭ 
  3. "Mandi Average Weather by Month"। সংগ্রহের তারিখ ৪ মে ২০১৩ 
  4. "Solar Potential in the Himalayan Landscape"। সংগ্রহের তারিখ ৪ মে ২০১৩ 
  5. "Mandi Tours"