বিনাশক

হিন্দি একশনধর্মী চলচিত্র
(ভিনাশক - ডেস্ট্রয়ার থেকে পুনর্নির্দেশিত)

বিনাশক ১৯৯৮ সালের একটি বলিউড নির্মিত মারপিটধর্মী হিন্দি চলচ্চিত্র। এই ছবিটির পরিচালক ছিলেন রবি দেওয়ান। ছবিটি নির্মানে হলিউডের অ্যাকশন চলচ্চিত্র 'ডেথ ওয়ারেন্ট' এর সামান্য ছায়া আছে।

বিনাশক
পরিচালকরবি দেওয়ান
প্রযোজকজেভিয়ার মার্কুইস
রচয়িতারাজকুমার সন্তোষী
শ্রেষ্ঠাংশেসুনীল শেঠী
রবীনা ট্যান্ডন
ওম পুরি
সুরকারবিজু শাহ
চিত্রগ্রাহকপিটার পেরেরা
সম্পাদকপ্রশান্ত খেড়েকর
মুক্তি
  • ৩০ জানুয়ারি ১৯৯৮ (1998-01-30)
স্থিতিকাল১৫৮ মিনিট
দেশভারত
ভাষাহিন্দি

কাহিনী সম্পাদনা

ইনস্পেকটর অর্জুন সিং একজন বাহাদুর পুলিশ অফিসার যে অপরাধীদের প্রতি কঠোর পদক্ষেপ নিয়ে থাকে। সময়ে সময়ে তাকে আইন হাতে তুলে নেওয়ার জন্যে সতর্ক করা হয়। তার পিতা এবং সহকর্মী বন্ধু ইনস্পেকটর খান বার বার তাকে সংযত হতে বলেন। অর্জুনকে ভালবাসেন এসিপি অগ্নিহোত্রী, যিনি অর্জুনের আদর্শ একজন সৎ অফিসার। তার মেয়ে কাজল অর্জুনের প্রেমিকা। অগ্নিহোত্রী একবার একজন ভাড়াতে খুনী আজগরকে তাড়া করলে সে জেলার লংকেশ্বরের জেলে আশ্রয় নেয়। এসিপি অগ্নিহোত্রী বুঝতে পারেন জেলের ভেতরে লংকেশ্বর জঘন্য অপরাধমুলক ব্যবসা চালায়। জেলকে সে ড্রাগ সাপ্লাই ও অস্ত্রের গুদাম বানিয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দীন দয়াল ও পুলিশ কমিশনার একথা জানতে পেরে অর্জুনকে অপরাধী সাজিয়ে জেলে পাঠাতে চান যাতে করে সে লংকেশ্বরের বিরুদ্ধে প্রমাণ সংগ্রহ করতে পারে। এসিপি অগ্নিহোত্রী কে খুন করার নাটক করা হয় ও অর্জুন এই অপরাধে জেলে যায়। সেখানে গিয়ে সে বুঝতে পারে তাকে ফাঁসানো হয়েছে। অগ্নিহোত্রী কে সে হত্যা না করলেও মন্ত্রী, কমিশনার ও লংকেশ্বর তাকে আসলেই হত্যা করেছে। কনস্টেবল হরে রাম অর্জুনের সাথে জেলে দেখা করতে গেলে অর্জুনের সামনেই তাকে খুন করে আজগর। অর্জুনের পিতা ও বোনকেও লংকেশ্বর, মন্ত্রী ও কমিশনারের মদতে হত্যা করে আজগর। ইনস্পেকটর খান খবরের কাগজে অর্জুনের খবর পান ও জেলে দেখা করতে যান কিন্তু দেখা করতে দেওয়া হয়না। তিনি গোপনে এক কয়েদির সাহায্যে জেলের ভেতরে ঢোকেন ও দেখেন অর্জুনের ওপর অকথ্য অত্যাচার চালানো হয়েছে। তিনি অর্জুনকে নিয়ে জেল থেকে পালান। এই সময় পুলিশ তাড়া করলে অর্জুন গ্রেনেডের সাহায্যে পুলিশ জিপ ধ্বংস করে দেয় কিন্তু খান মারা যান। কাজলের সাথে দেখা করে সে সব খুলে বলে ও প্রতিশোধ নিতে মনস্থির করে। আজগর, মন্ত্রী ও কমিশনারকে খুন করার পর অপরাধ স্বীকার করে আবার লংকেশ্বরের জেলে চলে যায়। ইতিমধ্যে লংকেশ্বর নিজেকে অর্জুনের হাত থেকে বাঁচতে আদালতে নিজের কৃতকর্মের অপরাধ স্বীকার করে নিজেরই জেলে বন্দী হয়। আসল সেই জেলের কিছু কয়েদী ও অন্য কর্মীরা তারই দুষ্টচক্রের সাথী। জেলের ভেতরে লংকেশ্বরের মুখোমুখি হয় অর্জুন।[১][২]

অভিনয় সম্পাদনা

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. Anupam Chopra (৯ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৮)। "Movie review: Vinashak"। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জুন ২০১৭ 
  2. "Vinashak - Destroyer (1998)"imdb.com। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জুন ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ সম্পাদনা