ব্যারি স্টিড

ইংরেজ ক্রিকেটার

ব্যারি স্টিড (ইংরেজি: Barry Stead; জন্ম: ২১ জুন, ১৯৩৯ - মৃত্যু: ১৫ এপ্রিল, ১৯৮০) ইয়র্কশায়ারের লিডসে জন্মগ্রহণকারী বিখ্যাত ইংরেজ প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট তারকা ছিলেন। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে এসেক্স, ইয়র্কশায়ারনটিংহ্যামশায়ারের এবং দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে নর্দার্ন ট্রান্সভালের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ বামহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম বোলিং করতেন। পাশাপাশি নিচেরসারির কার্যকরী ব্যাটসম্যানের দায়িত্ব পালন করতেন তিনি।

ব্যারি স্টিড
ব্যারি স্টিড.png
১৯৬৬ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে ব্যারি স্টিড
ব্যক্তিগত তথ্য
জন্ম (1939-06-21) ২১ জুন ১৯৩৯ (বয়স ৮২)
লিডস, ইয়র্কশায়ার, ইংল্যান্ড
মৃত্যু১৫ এপ্রিল ১৯৮০(1980-04-15) (বয়স ৪০)
ড্রাইলিংটন, মর্লে, ইংল্যান্ড
বোলিংয়ের ধরনবামহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ২৩২ ১৫৮
রানের সংখ্যা ২১৬৬ ৭৬৪
ব্যাটিং গড় ১২.৩০ ১০.০৫
১০০/৫০ ০/১ ০/০
সর্বোচ্চ রান ৫৮ ৩৫*
বল করেছে ৩৭৯৩৯ ৭৮৮৫
উইকেট ৬৫৩ ২০০
বোলিং গড় ২৮.০৫ ২৩.১৭
ইনিংসে ৫ উইকেট ২৪
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৮/৪৪ ৫/২৬
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৫৯/০ ২৬/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১০ আগস্ট ২০১৮

কাউন্টি ক্রিকেটসম্পাদনা

ইয়র্কশায়ারের লিডসে জন্মগ্রহণকারী ব্যারি স্টিড খুবই পরিশ্রমী ফাস্ট-মিডিয়াম বামহাতি বোলার হিসেবে পরিচিতি পেয়েছিলেন। প্রায় দুই দশককাল কাউন্টি ক্রিকেটে রাজত্ব করেছেন তিনি। ১৯৫৯ সালে ইয়র্কশায়ারের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার।[১]

১৯৫৯ সালে ভারত দল ইংল্যান্ড সফরে আসে। ব্রাডফোর্ডে অনুষ্ঠিত অভিষেক খেলায় সফরকারী ভারতীয় একাদশের বিপক্ষে ৭/৭৬ বোলিং পরিসংখ্যান গড়েছিলেন।[২] এরপর ইয়র্কশায়ারের পক্ষে আরও একটি খেলায় অংশ নেন। তবে, ১৯৬০ ও ১৯৬১ সালে কম্বাইন্ড সার্ভিসেসের পক্ষে খেলেন। এরপর ১৯৬২ মৌসুমের শুরুতে এসেক্সের পক্ষে খেলার চেষ্টা চালালেও ব্যর্থ হন।

নটিংহ্যামশায়ারে যোগদানসম্পাদনা

১৯৬২ সালে নটিংহ্যামশায়ারে যোগ দেন।[৩] এ দলের পক্ষে ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত পরবর্তী চৌদ্দ বছর নিয়মিতভাবে খেলতে থাকেন। ১৯৬৯ সালে ক্যাপ লাভ করেন ও প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে উইকেট লাভের দিক দিয়ে ৭১ উইকেট নিয়ে জাতীয় পর্যায়ে শীর্ষস্থান আরোহণ করেন। তিন বছর পর ১৯৭২ সালে খেলোয়াড়ী জীবনে ব্যক্তিগত সেরা বোলিং পরিসংখ্যান দাঁড় করান ৮/৪৪। সমারসেটকে ১০৭ রানে গুটিয়ে ফেলতে সহায়তা করেন। ইনিংসে তিনি ভার্জিন, কুপার ও ক্লোজের উইকেট নিয়ে হ্যাট্রিক লাভ করেন। অপর দুই উইকেট পেয়েছিলেন সোবার্স। খেলায় ১২/১১১ লাভ করেন। ঐ মৌসুমে ২০.৩৩ গড়ে ৯৩ উইকেট লাভ করে নটসদের মধ্যে শীর্ষস্থান দখল করেন। এছাড়াও, ১৯৭৩ সালে ৪৯ উইকেট নিয়ে কাউন্টির পক্ষে সর্বাধিক উইকেট লাভে সক্ষমতা দেখান। এরপর বেশ কয়েকবছর নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে অপেক্ষার প্রহর গুনেন।

১৯৭৬ সালে আর্থিক সুবিধা গ্রহণের খেলার জন্য মনোনীত হন তিনি। ঐ বছর ৯৮ উইকেট পেয়েছিলেন তিনি। ফলশ্রুতিতে পিসিএ বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের মর্যাদা পান তিনি। বোলিংয়ের পাশাপাশি কার্যকরী নিচেরসারির ব্যাটসম্যানের দায়িত্ব পালন করতেন। মাঝে-মধ্যে একদিনের খেলায় উপরের দিকেও ব্যাটিং করতে তাকে দেখা যেতো।

দক্ষিণ আফ্রিকা গমনসম্পাদনা

ক্রিকেট ব্যারি স্টিডের জীবনের সাথে অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত ছিল। ১৯৭৫-৭৬ মৌসুমের পর দক্ষিণ আফ্রিকায় পাড়ি জমান। সেখানে নর্দার্ন ট্রান্সভালের পক্ষে খেলেন। ট্রেন্ট ব্রিজে রাইস-হ্যাডলি যুগের সূচনাকাল হলে স্টিডের পেসও নিম্নগামী হতে শুরু করে। এরপর লীগ ক্রিকেটের কিছু খেলায় অংশ নিয়েছিলেন।

১৯৭৮ সালে আঘাতগ্রস্ত নটস দলে সৌভাগ্যবশতঃ পুনরায় আহুত হন। ল্যাঙ্কাশায়ারের জ্যাক সিমন্সের ক্যাচ তালুবন্দী করতে পারেননি তিনি ও জন প্লেয়ার লীগের শিরোপা নির্ধারণী খেলায় দলকে জয় করতে ব্যর্থ হন।

অবসরসম্পাদনা

খেলা থেকে অবসর নেয়ার পর ড্রাইলিংটনে একটি পানশালা খোলেন। জীবনের শেষ বছরে ইংলিশ প্রেস একাদশ গড়তে সহায়তা করেন ও হ্যারোগেটে প্রেস টেস্টে স্বেচ্ছাশ্রম দেন।

মাত্র ৪০ বছর বয়সে ১৫ এপ্রিল, ১৯৮০ তারিখে মর্লের ড্রাইলিংটন এলাকায় ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ব্যারি স্টিডের দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Warner, David (২০১১)। The Yorkshire County Cricket Club: 2011 Yearbook (113th সংস্করণ)। Ilkley, Yorkshire: Great Northern Books। পৃষ্ঠা 378। আইএসবিএন 978-1-905080-85-4 
  2. "Barry Stead"। Espncricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুলাই ২০১১ 
  3. Wisden 1963

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা