বিকিরণ

এক প্রকার শক্তি স্থানান্তর বা নির্গমন প্রক্রিয়া

পদার্থবিদ্যায়, বিকিরণ হল, এক প্রকার শক্তি স্থানান্তর বা  নির্গমন প্রক্রিয়া যা তরঙ্গ বা কণা আকারে শূন্য স্থান বা মাধ্যমের মধ্য দিয়ে ভ্রমণ করে।[১][২] এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে:

আপেক্ষিক ক্ষমতার তিনটি ভিন্ন ধরনের আয়োনাজিং বিকিরণ কঠিন বস্তুর মধ্য দিয়ে প্রবেশের চিত্রণ।  সাধারণত আলফা কণা (α) এক টুকরা  কাগজের দ্বারাই থেমে যায়, যেখানে বিটা কণা (β) থামানো হয় একটি অ্যালুমিনিয়াম প্লেট দ্বারা।গামা বিকিরণ (γ) তীব্রতা ঈষৎ হ্রাস পায় যখন এটি সীসার মধ্যে  প্রবেশ করে।
ক্ষতিকর ও অরক্ষিত বিকিরনের আন্তর্জাতিক প্রতীক যা মানুষের জন্য বিপদজ্জনক ও অনিরাপদ।বিকিরণ সাধারণত আলো এবং শব্দ হিসেবে প্রকৃতিতে বিদ্যমান।

বিচ্ছুরিত কণার শক্তির উপর নির্ভর করে বিকিরণকে প্রায়ই আয়োনাজিং বা নন-আয়োনাজিং হিসাবে শ্রেণীকরণ করা হয়। পরমাণু ও অনুকে আয়নিত করার এবংরাসায়নিক বন্ধন  ভাঙার মত পর্যাপ্ত শক্তি প্রায় ১০ ইলেক্ট্রো ভোল্ট শক্তি আয়নাজিং বিকিরন বহন করে। তেজস্ক্রিয় পদার্থ যা α, β, বা γ  রশ্মির সাথে সাথে  হিলিয়াম নিউক্লিয়াস,ইলেকট্রন বা পজিট্রনেরএবং ফোটন  নির্গত করে তা আয়নাজিং বিকিরনের একটি সাধারণ উৎস। অন্যান্য উৎসের মধ্যে রয়েছে এক্স-রে, পজিট্রনের, নিউট্রন, মেসন সেকেন্ডারি কসমিক রে যা প্রাইমারি কসমিক রে পৃথিবীর বায়ু মন্ডলের সাথে আন্তক্রিয়ার পড়ে উৎপাদিত হয়। 

গামা রশ্মি, এক্স-রে এবং অতিবেগুনী রশ্মির উচ্চতর শক্তি পরিসর ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক বর্ণালীর আয়নাইজিং অংশ গঠন করে। "আয়নাইজ" শব্দটি একটি পরমাণু থেকে দূরে এক বা একাধিক ইলেক্ট্রন ভেঙ্গে যাওয়াকে বোঝায়, এমন একটি ক্রিয়া যার জন্য অপেক্ষাকৃত উচ্চ শক্তির প্রয়োজন হয় যা এই ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক তরঙ্গ সরবরাহ করে। বর্ণালীতে আরও নিচে, নিম্ন অতিবেগুনি বর্ণালীর অ-আয়নাইজিং নিম্ন শক্তিগুলি পরমাণুকে আয়নিত করতে পারে না, কিন্তু আন্তঃপারমাণবিক বন্ধনগুলিকে ব্যাহত করতে পারে যা অণু গঠন করে, যার ফলে পরমাণুর পরিবর্তে অণুগুলি ভেঙে যায়; এর একটি ভাল উদাহরণ হল দীর্ঘ তরঙ্গদৈর্ঘ্য সৌর অতিবেগুনী দ্বারা সৃষ্ট রোদে পোড়া। দৃশ্যমান আলো, ইনফ্রারেড এবং মাইক্রোওয়েভ ফ্রিকোয়েন্সিতে UV এর চেয়ে দীর্ঘ তরঙ্গদৈর্ঘ্যের তরঙ্গগুলি বন্ধন ভাঙতে পারে না তবে তাপ হিসাবে অনুভূত বন্ধনে কম্পন সৃষ্টি করতে পারে। রেডিও তরঙ্গদৈর্ঘ্য এবং তার নীচে সাধারণত জৈবিক সিস্টেমের জন্য ক্ষতিকারক হিসাবে বিবেচিত হয় না। এগুলি শক্তির তীক্ষ্ণ বর্ণনা নয়; নির্দিষ্ট ফ্রিকোয়েন্সির প্রভাবে কিছু ওভারল্যাপ আছে।

"বিকিরণ" শব্দটি একটি উৎস থেকে বিকিরণকারী তরঙ্গের ঘটনা (অর্থাৎ, সমস্ত দিকে বাইরের দিকে ভ্রমণ) থেকে উদ্ভূত হয়। এই দিকটি পরিমাপ এবং শারীরিক এককগুলির একটি সিস্টেমের দিকে নিয়ে যায় যা সমস্ত ধরণের বিকিরণে প্রযোজ্য। কারণ এই ধরনের বিকিরণ মহাকাশের মধ্য দিয়ে যাওয়ার সাথে সাথে প্রসারিত হয় এবং এর শক্তি সংরক্ষিত (শূন্যতায়), একটি বিন্দু উত্স থেকে সমস্ত ধরণের বিকিরণের তীব্রতা তার উত্স থেকে দূরত্বের সাথে সম্পর্কিত একটি বিপরীত-বর্গীয় আইন অনুসরণ করে। যে কোনো আদর্শ আইনের মতো, বিপরীত-বর্গীয় আইন একটি পরিমাপিত বিকিরণের তীব্রতাকে আনুমানিক করে যে পরিমাণ উৎসটি একটি জ্যামিতিক বিন্দুকে আনুমানিক করে।

See alsoসম্পাদনা

নোট এবং রেফারেন্সসম্পাদনা

  1. Weisstein, Eric W.। "Radiation"Eric Weisstein's World of Physics। Wolfram Research। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০১-১১ 
  2. "Radiation"The free dictionary by Farlex। Farlex, Inc.। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০১-১১