বড় চামট সাগর কাছিম

বড় চামট সাগর কাছিম বা পুরুচর্ম পৃষ্ঠ সাগর কাছিম[৮] (ইংরেজি: leatherback sea turtle বা lute turtle বা leathery turtle) (দ্বিপদ নাম: Dermochelys coriacea), হচ্ছে একটি কাছিমের প্রজাতি। এরা বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামুদ্রিক কাছিম। এই প্রজাতির কাছিম প্রশান্ত মহাসাগর, আটলান্টিক মহাসাগর এবং ভারত মহাসাগরে উষ্ণপ্রধান এবং উপউষ্ণপ্রধান এলাকায় পাওয়া যায়।[৯]

বড় চামট সাগর কাছিম
Dermochelys coriacea
সময়গত পরিসীমা: Holocene ০.০১২–০কোটি
LeatherbackTurtle.jpg
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: Chordata
উপপর্ব: Vertebrata
শ্রেণী: Reptilia
বর্গ: Testudines
পরিবার: Dermochelyidae
গণ: Dermochelys
প্রজাতি: Dermochelys coriacea
দ্বিপদী নাম
Dermochelys coriacea
VANDELLI 1761
প্রতিশব্দ

Sphargis angusta PHILIPPI 1899[২][৩]>
Sphargis coriacea GARMAN 1884[৪]
Dermatochelys coriacea GÜNTHER 1864
Sphargis coriacea Gray 1831
Dermatochelys porcata WAGLER 1830[৫]
Dermochelis atlantica LESUEUR 1829
Sphargis mercurialis MERREM 1820[৬]
Chelonia lutaria RAFINESQUE 1814
Testudo tuberculata PENNANT 1801
Testudo lyra LACÉPÈDE 1788
Testudo arcuata CATESBY 1771[৭]
Testudo coriacea VANDELLI 1761[২]

বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনের তফসিল-১ অনুযায়ী এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত।[৮]

চিত্রশালাসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Dermochelys coriacea"বিপদগ্রস্ত প্রজাতির আইইউসিএন লাল তালিকা। সংস্করণ 2012.2প্রকৃতি সংরক্ষণের জন্য আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন। 2000। সংগ্রহের তারিখ 24/10/2012  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  2. Vandelli,D. (1761) Epistola de holothurio, et testudine coriacea ad celeberrimum Carolum Linnaeum equitem naturae curiosum Dioscoridem II., Conzatti, Padua.
  3. TIGR Reptile Database . Uetz P. , 2007-10-02
  4. Garman,Samuel (1884) Reptiles. In: Jones, J. Matthew & G. Brown Goode, eds.Contributions to the natural history of the Bermudas., Bull. US Nat. Mus. (25): 285-303
  5. Wagler, Jean G. (1830) Natürliches System der Amphibien, mit vorangehender Classification der Säugetiere und Vögel. Ein Beitrag zur vergleichenden Zoologie. 1.0., Cotta, München, Stuttgart, and Tübingen, 354 pp.
  6. Merrem, B. (1820) Versuch eines Systems der Amphibien I (Tentamen Systematis Amphibiorum)., J. C. Kriegeri, Marburg, 191 pp.
  7. Catesby (1771) , Natural History of Carolina 2: 40
  8. বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, জুলাই ১০, ২০১২, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার, পৃষ্ঠা-১১৮৪৪২।
  9. জিয়া উদ্দিন আহমেদ (সম্পা.), বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ: উভচর প্রাণী ও সরীসৃপ, খণ্ড: ২৫ (ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি, ২০০৯), পৃ. ৮৩-৮৪

পাঠসম্পাদনা