প্রধান মেনু খুলুন

প্রতাপপুর জমিদার বাড়ি বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বিভাগের ফেনী জেলার অন্তর্গত দাগনভূঁইয়া উপজেলার এক ঐতিহাসিক জমিদার বাড়ি

প্রতাপপুর জমিদার বাড়ি
সাধারণ তথ্য
ধরনবাসস্থান
অবস্থানদাগনভূঁইয়া উপজেলা
ঠিকানাপ্রতাপপুর
শহরদাগনভূঁইয়া উপজেলা, ফেনী জেলা
দেশবাংলাদেশ
খোলা হয়েছে১৮৫০-৬০
স্বত্বাধিকারীরাজকৃষ্ণ সাহা/রামনাথ কৃষ্ণ সাহা
কারিগরী বিবরণ
পদার্থইট, সুরকি ও রড

পরিচ্ছেদসমূহ

ইতিহাসসম্পাদনা

প্রায় ১৮৫০ কিংবা ১৮৬০ সালে এই জমিদার বাড়িটি নির্মিত হয়। এই জমিদার বাড়ির প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন রাজকৃষ্ণ সাহা কিংবা রামনাথ কৃষ্ণ সাহা। স্থানীয়দের কাছে এটি প্রতাপপুর বড় বাড়ি হিসেবেও পরিচিত। এই এলাকার আশেপাশে যত জমিদার ছিল সবার শীর্ষে ছিল এই জমিদার। এই জমিদার বংশধররা জমিদারি প্রথা বিলুপ্ত হওয়ার পরও ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত এই জমিদার বাড়িটিতে ছিল। জমিদার বাড়ির বংশধরদের কিছু এখনো ঢাকা, চট্টগ্রাম এবং কিছু ভারতের কলকাতাত্রিপুরা রাজ্যে আছেন। জমিদার বাড়ির সম্পত্তি এখনো জমিদার বাড়ির বংশধরদের মালিকানাধীন। জমিগুলো এলাকার মানুষের কাছে বর্গা দিয়ে রাখা হয়েছে। জমিদার বাড়ির বংশধররা এখানে বছরের মধ্যে দুইবার আসেন এবং বর্গার টাকা নিয়ে যান।[১][২]

জমিদার বাড়ির অবকাঠামোসম্পাদনা

প্রায় ১৩ একর জায়গা জুড়ে এই জমিদার বাড়িটি নির্মাণ করা হয়। বাড়িটিতে ১০টি ভবন ও ১৩টি পুকুর রয়েছে। এরমধ্যে ৫টি পুকুর পাকা ঘাট বাঁধানো।

বর্তমান অবস্থাসম্পাদনা

বাড়িটি সরকারি অথবা বেসরকারি কোনো প্রতিষ্ঠানের তত্ত্বাবধায়নে না থাকায় জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে। চারিদিক লতাপাতায় ঢেকে গেছে। ভবনগুলোও ধসে পড়ছে।

যোগাযোগ ব্যবস্থাসম্পাদনা

ঢাকা থেকে ট্রেনে ফেনী নামলে টমটম কিংবা শহর বাস সার্ভিসে চলে যাবেন ফেনীর মহিপাল। ঢাকা থেকে বাসে আসলে মহিপালেই নেমে যেতে পারেন। মহিপাল থেকে নোয়াখালী তথা মাইজদীগামী বাসে উঠে সেবারহাট বাজারে নামবেন। বাজারে রাস্তার বাঁ-পাশে (উত্তরপাশে) চলে আসুন। কাউকে প্রতাপপুর যাওয়ার সিএনজির কথা বললেই দেখিয়ে দেবেন। রাস্তার দুপাশে ধানক্ষেত, গ্রাম্য বাড়িঘর দেখতে-দেখতে পৌঁছে যাবেন প্রতাপপুর গ্রামে। প্রতাপপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় কাউকে জিজ্ঞেস করলেই প্রতাপপুর জমিদার বাড়ি তথা বড়বাড়ি দেখিয়ে দেবেন।

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা