প্রণয়ধর্মী চলচ্চিত্র

প্রণয়ধর্মী ছায়াছবি বা রোম্যান্স চলচ্চিত্র হ'ল রোমান্টিক প্রেমের গল্পগুলি প্রেক্ষাগৃহে এবং টিভিতে সম্প্রচারের জন্য দৃশ্যগত মাধ্যমে (ভিজ্যুয়াল মিডিয়া) রেকর্ড করা, যার লক্ষ্য থাকে মূল চরিত্রগুলির আবেগ ও স্নেহময় রোম্যান্টিক সম্পৃক্ততা এবং তাদের যাত্রা, যা ডেটিং, বিবাহপূর্ব মেলামেশা বা বিবাহের মাধ্যমে তাদের ভালবাসা তাদের গ্রহণ করে। প্রণয়ধর্মী ছায়াছবি রোমান্টিক প্রেমের গল্প বা দৃঢ় ও খাঁটি প্রেমের সন্ধান এবং রোম্যান্সকে মূল চিত্রনাট্যের কেন্দ্রবিন্দু করে। মাঝে মাঝে রোম্যান্স প্রেমীরা অর্থ, শারীরিক অসুস্থতা, বিভিন্ন ধরণের বৈষম্য, মনস্তাত্ত্বিক সংযম বা পারিবারিক প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হন, যা তাদের প্রেমের মিলন ভেঙে ফেলার হুমকি দেয়। সমস্ত দৃঢ়, গভীর এবং ঘনিষ্ঠ রোমান্টিক সম্পর্কের মতোই, প্রতিদিনের জীবনের উত্তেজনা, প্রলোভনগুলি (বিশ্বাসহীনতা) এবং সামঞ্জস্যতার পার্থক্য প্রণয়ধর্মী চলচ্চিত্রগুলির চিত্রনাট্যে প্রবেশ করে।[১]

রোমান্টিক ছায়াছবি প্রায়শই প্রথম দর্শনে প্রেম, প্রবীণের সাথে অল্প বয়স্কের প্রেম, প্রতিদানহীন রোমান্টিক প্রেম, আবেগময় প্রেম, সংবেদনশীল প্রেম, আধ্যাত্মিক প্রেম, নিষিদ্ধ প্রেম/রোম্যান্স, স্বামী প্রেম, যৌন ও প্রগাঢ় প্রেম, উৎসর্গীকৃত প্রেম, বিস্ফোরক ও ধ্বংসাত্মক প্রেম এবং বিয়োগান্ত প্রেমের প্রয়োজনীয় বিষয়গুলি অন্বেষণ করে।

চিত্রনাট্যকার ও পণ্ডিত এরিক আর উইলিয়ামস তাঁর চিত্রনাট্যকারদের শ্রেনী বিভাগের প্রণয়ধর্মী চলচ্চিত্রগুলিকে একাদশ সুপার জেনার হিসাবে চিহ্নিত করেন এবং দাবি করেছেন যে সমস্ত পূর্ণ দৈর্ঘ্যের আখ্যান চলচ্চিত্রগুলি এই সম্পূর্ণ-ঘরানা দ্বারা শ্রেণিবদ্ধ করা যেতে পারে। আর দশটি সম্পূর্ণ-ঘরানা হ'ল অ্যাকশন, অপরাধ, কল্পনা, ভয়, কল্পবিজ্ঞান, জীবনের খন্ড, খেলাধূলা, রোমাঞ্চকর, যুদ্ধ এবং পাশ্চাত্য।[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Romance films"Filmsite.org। সংগ্রহের তারিখ ১০ নভেম্বর ২০১৬ 
  2. Williams, Eric R., (২০১৭)। The screenwriters taxonomy : a roadmap to collaborative storytelling। New York, NY: Routledge Studies in Media Theory and Practice। আইএসবিএন 978-1-315-10864-3ওসিএলসি 993983488 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা