পূর্ণিমা রানী শীল ধর্ষণ

পূর্ণিমা রানী শীল ধর্ষণ একটি গণধর্ষণের ঘটনা যা বাংলাদেশে ২০০১ সালের ৮ অক্টোবর দিবাগত রাতে উল্লাপাড়া উপজেলার পূর্ব দেলুয়া গ্রামে সংঘটিত হয়েছিল। ২০০১ সালের সংসদ নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগ সমর্থক এবং ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতার সময় পূর্ণিমা রানী শীলকে (জন্ম:১৯৮৭) ধর্ষণ করা হয়েছিল। এই ঘটনায় মামলা হয়েছে এবং বিচার সম্পন্ন হয়েছে। মামলার রায়ে ১১ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ১ লাখ টাকা করে জরিমানা হয়েছে।[১][২]

পটভূমি সম্পাদনা

২০০১ সালে অনুষ্ঠিত অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল এবং বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী নেতৃত্বাধীন চার দলীয় জোট আওয়ামী লীগকে পরাজিত করে জয়লাভ করে। এই পরিবর্তনের ফলে ২০০১ সালে বাংলাদেশের কোনো স্থানে সহিংসতা শুরু হয়। অভিযোগ রয়েছে যে সে সময় আওয়ামী লীগ সমর্থক এবং ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের নির্যাতন করে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল এবং বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী কর্মীরা। পূর্ণিমা আওয়ামী লীগের একজন পোলিং এজেন্টের পক্ষে দেলুয়া হাই স্কুল ভোট কেন্দ্রে কিছুক্ষণ অবস্থান করেছিলেন। এছাড়াও নির্বাচনের সময় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের কর্মীদের ব্যালট জালিয়াতির অভিযোগ করে এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছিলেন। এই কারণে তাকে টার্গেট করা হয়েছিল।[৩]

ইতিহাস সম্পাদনা

সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া উপজেলার পারবা দেলুয়ায় শীল ১২ বছরের একটি মেয়ে ছিল।[৪] তাকে গণধর্ষণ করা হয়েছিল। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল এবং বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সাথে জড়িত চারজনকে গ্রেফতার করা হলেও তাদের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ আনা হয়নি। তার বোন দৃষ্টিশক্তি হারায় এবং তার পারিবারিক ব্যবসার সেলুন দুবার লুট করা হয়। ফলে তার পরিবার গ্রাম ছেড়ে পালাতে বাধ্য হয়। অনেকেই অভিযোগ করে, বাংলাদেশ জামাত-ই-ইসলামির কর্তৃক তাদের বাংলাদেশ থেকে বিতাড়িত করার জন্য হিন্দু গ্রামগুলিতে একটি পরিকল্পিত আক্রমণের অংশ এটি ছিল।[৪][৫] ওয়াহিদুল হক এবং শাহরিয়ার কবিরের উদ্যোগে ঢাকায় তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হিয়।[৩]

২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় ফেরার পর ২০১০ সালের মে মাসে বিচার শুরু হয়।[৬] ২০১১ সালের ৪ মে শীলের ধর্ষণে জড়িত থাকার কারণে ১১ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়।[৭] তাদের প্রত্যেককে ১ লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে। দণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে ছয়জন হেফাজতে আছে এবং ৫ জন পলাতক।[৪][৮] পূর্ণিমা রানী এই রায়ে খুশি ছিলেন না কারণ তার বিশ্বাস ছিল তার গ্রামের অন্তত দুজন অভিযুক্তের মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত ছিল।[১]

পূর্ণিমা রানী তার শিক্ষার জন্য আওয়ামী লীগ নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে আর্থিক সাহায্যে পড়াশোনা শেষ করে ঢাকায় সঙ্গীত শিক্ষক হিসেবে কাজ করেন।[৭] এর আগে তিনি একটি টিভি স্টেশনে অল্প সময়ের জন্য কাজ করেন কিন্তু ফেসবুকে হয়রানির মুখে পড়তে হয়। তাকে সামাজিকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছিল এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক নির্যাতনের মুখোমুখি হতে হয়েছিল।[৯]

২০১৮ সালে শীল তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা হন। ১৬ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে তিনি মহিলা সংরক্ষিত আসন থেকে সংসদ সদস্য হওয়ার লক্ষ্যে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়নপত্র কিনেন।[৭] তিনি আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় উপ-কমিটির সদস্য।[১০]

জনপ্রিয় সংস্কৃতিতে সম্পাদনা

২০২১ সালের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের সময় ভারতীয় জনতা পার্টির একটি প্রচারণাভিডিও ছিল "দিদি তুমি আমাদের ভালবাসো না"। এই শিরোনামের ভিডিওটিতে শীলকে দেখানো হয়েছিল। ভিডিওটিতে বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে সহিংসতা, মধ্যপ্রাচ্যে ইসলামিক চরমপন্থা এবং বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে গরু চোরাচালান দেখানো হয়েছে।[১১]

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

 

  1. "'লজ্জা আমি পাব কেন, লজ্জা তো সমাজের-রাষ্ট্রের'"SAMAKAL (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 
  2. "Eleven sentenced to life for Bangladesh gang rape"BBC News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১১-০৫-০৪। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 
  3. Express, The Financial। "Purnima proves a few points for her and her kind"The Financial Express (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 
  4. "11 jailed for life for rape of Sirajganj schoolgirl"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১১-০৫-০৫। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 
  5. "Rape and torture empties Bangladeshi villages"the Guardian (ইংরেজি ভাষায়)। ২০০৩-০৭-২১। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 
  6. "বিএনপি জামায়াতের আমলনামা-পূর্ণিমা রানীর কথা মনে কি পড়ে বাংলাদেশ!"Manikganj Barta (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 
  7. "Purnima Shil, the 2001 post-election gang-rape victim, buys AL nomination form"bdnews24.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 
  8. "কালের কণ্ঠ"Kalerkantho। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 
  9. "Shamed again in the age of Facebook"BBC News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৬-১০-২৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 
  10. "Purnima Shil hopes for MP seat"Dhaka Tribune। ২০১৯-০১-১৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫ 
  11. "Bangladesh cards rule West Bengal polls"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২১-০৪-১৪। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৫