পিটার ভ্যান ডার মারউই

দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার

পিটার লরেন্স ভ্যান ডার মারউই (১৪ মার্চ ১৯৩৭ – ২৩ জানুয়ারি ২০১৩) ছিলেন একজন দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার। তিনি পার্ল, কেপ প্রদেশ, জন্মগ্রহণ করেন এবং শিক্ষা গ্রহণ করেন গ্রাহামস্টাউন সেন্ট অ্যাণ্ড্রুজ কলেজে এবং কেপ টাউন বিশ্ববিদ্যাল থেকে। ১৯৬৩ থেকে ১৯৬৭ পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে টেস্ট খেলেছেন ১৫টি। তিনি বাঁহাতি স্পিনার হিসেবে শুরু করে পরে মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান হিসেবেও নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন।[১]

পিটার ভ্যান ডার মারউই
পিটার ভ্যান ডার মারউই.png
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামপিটার লরেন্স ভ্যান ডার মারউই
জন্ম১৪ মার্চ ১৯৩৭
পার্ল, কেপ প্রদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা
মৃত্যু২৩ জানুয়ারি ২০১৩ (৭৫ বছর)
পোর্ট এলিজাবেথ, পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা
ব্যাটিংয়ের ধরনডান-হাতি
বোলিংয়ের ধরনবাম-হাতি অ্যার্থোডক্স স্পিন
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক৬ ডিসেম্বর ১৯৬৩ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ টেস্ট২৪ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৭ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৫৭–১৯৫৮দক্ষিণ আফ্রিকান বিশ্ববিদ্যালয়
১৯৫৮–১৯৬৬পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ
১৯৬৬–১৯৬৯পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ১৫ ৯৪
রানের সংখ্যা ৫৩৩ ৪.০৮৬
ব্যাটিং গড় ২৫.৩৮ ২৯.১৮
১০০/৫০ ০/৩ ৪/২৩
সর্বোচ্চ রান ৭৬ ১২৮
বল করেছে ৭৯ ৬,২২১
উইকেট ৮২
বোলিং গড় ২২.০০ ২৫.৭০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ১/৬৬ ৬/৪০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১১/- ৭৩/-
উৎস: ক্রিকেটআর্কাইভ, ২৩ জানুয়ারি ২০১৩

তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য বামহাতি আর্ম স্পিনার হিসেবে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেট খেলা শুরু করেন[২] এবং ১৯৬১ সালে ইংল্যান্ড সফরে দক্ষিণ আফ্রিকার ফেযেলা একাদশের প্রধান স্পিনার ছিলেন। তিনি ১৯৫৮-৫৯ থেকে ১৯৬৫-৬৬ পর্যন্ত পশ্চিম প্রদেশ এরপর, ১৯৬৬-৬৭ থেকে ১৯৬৮-৬৯ পূর্ব প্রদেশের হয়ে খেলেছেন। এই সময়ে দুই দলেই অধিনায়কত্ত করেছেন।

তিনি আট টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকাকে নেতৃত্বে দিয়েছেন, এর মধ্যে চারটি ম্যাচে জয় পান এবং একটি হারেন। ১৯৬৬-৬৭ সালে সিরিজ বিজয় ছিল অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম সিরিজ জয়। এই সিরিজের পর তিনি ২৯ বছর বয়সে টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নেন।

১৯৯১ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার সময় তিনি ছিলেন নির্বাচকমণ্ডলীর চেয়ারম্যান। ১৯৯২ থেকে ১৯৯৯ পর্যন্ত কাজ করেছেন আইসিসি ম্যাচ রেফারি হিসেবেও।

২০১৩ সালের জানুয়ারি মাসে পোর্ট এলিজাবেথে খারাপ স্বাস্থ্যেরের কারণে মারা যান।[৩]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

পূর্বসূরী
ট্রেভর গডার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট ক্রিকেট অধিনায়ক
১৯৬৫ - ১৯৬৬/১৯৬৭
উত্তরসূরী
আলী বাখের