পালাউ–ফিলিপাইন সম্পর্ক

পালাউ ও ফিলিপাইন রাষ্ট্রদ্বয়ের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক

পালাউ–ফিলিপাইন সম্পর্ক হল পালাউ এবং ফিলিপাইনের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক

পালাউ–ফিলিপাইন সম্পর্ক
মানচিত্র Palau এবং Philippines অবস্থান নির্দেশ করছে

পালাউ

ফিলিপাইন

ইতিহাসসম্পাদনা

প্রথম যে ব্যক্তি প্রায় ২০০০ খ্রিস্টপূর্বে পালাউ গিয়েছিল, ধারণা করা হয় তিনি একজন ফিলিপাইনি ছিলেন। দ্বীপটিতে পিগমি জনগণ বসবাস করত বলে জানা যায়, তবে তারা ১১০০ খ্রিস্টপূর্বে বিলুপ্ত হয়।[১]

বর্তমান সময়সম্পাদনা

২৫শে জুলাইন, ১৯৯৭ সালে পালাউ এবং ফিলিপাইনের মধ্যে আনুষ্ঠানিক সম্পর্ক স্থাপিত হয়।[২]

ম্যানিলাতে পালাউয়ের দূতাবাস রয়েছে। অপরদিকে মেলেকেয়কে রয়েছে ফিলিপাইনের দূতাবাস। পালাউয়ে প্রায় ৫০০০ জন ফিলিপিনো কর্মকর্তা কর্মরত রয়েছে। পালাউয়ে কর্মরতদের মধ্যে ৬০ শতাংশই ফিলিপিনো, এবং তারাই পালাউয়ের মোট জনসংখ্যার ২০ শতাংশ। পালাউয়ের মেডিকেল রেফারেল কর্মসূচীর আওতায় বার্ষিক ১০০-১৫০ জন রোগী ফিলিপাইনে চিকিৎসার জন্য যেত। কর্মসূচীটি প্রায় ২০ বছর বলবৎ ছিল। উচ্চতর শিক্ষালাভের জন্য অনেক পালাউয়ের অধিবাসীই ফিলিপাইনের বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে যায়।[৩]

বিবাদসম্পাদনা

সামুদ্রিক সীমাসম্পাদনা

পালাউ এবং ফিলিপাইনের মধ্যকার সীমানা নির্দেশের জন্য আলোচনার প্রয়োজন রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে এখন পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত বা চুক্তি হয়নি।[৩]

ইইজেড-এ ফিলিপিনোদের মাছ ধরার ঘটনাসম্পাদনা

পালাউয়ের ইইজেডে ফিলিপিনোদের মাছ ধরার ঘটনা উভয় দেশের সম্পর্কের মাঝে একটি যন্ত্রণাদায়ক ঘটনা। পালাউয়ের দক্ষিণ উপকূলের নিকটবর্তী অঞ্চলের সমুদ্রে চীন, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন এবং আরো কিছু দেশের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।[৪] পালাউ এবং ফিলিপাইনের মধ্যকার কূটনৈতিক সম্পর্ক সর্বনিম্ন সীমায় পৌছে যায় যখন পালাউয়ের রাষ্ট্রপতি কুনিও নাকামুরা ১৯৯৯ সালের জানুয়ারি মাসে ফিলিপাইনের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার হুমকি দেয়। এমন ঘটনার পিছে দায়ী ছিল পালাউয়ের ইইজেডে ফিলিপিনো নৌকার গমন।[৫][৬] তবে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে পালাউ ফিলিপাইনের মত প্রতিবেশী দেশের সাথে কূটনৈতিক প্রতিবাদের পরিবর্তে বরং শান্তিপূর্ণ সমুদ্রচুক্তিতে আগ্রহী।[৭]

ফিলিপাইন দূতাবাসের বন্ধ থাকাসম্পাদনা

২৫ জানুয়ারি, ২০১২ সালে ফিলিপাইন আর্থিক সমস্যাজনিত কারণে ২০১২-এর জুলাই মাসের শেষের দিকে দূতাবাসসহ অন্যান্য কূটনৈতিক মিশন বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। পালাউয়ের রাষ্ট্রপতি জোহানসন টরিবিওং ফিলিপাইনের রাষ্ট্রপতি বেনিঙ্গো তৃতীয় অ্যাকুইনোকে অনুরোধ করে পালাউয়ে দূতাবাস বন্ধ করে দেওয়ার এ সরকারি সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার জন্য। পালাউয়ে দূতাবাস বন্ধ ক্রএ দেবার সিদ্ধান্ত শুনে পালাউ "গভীর দুঃখ পেয়েছে"। পালাউয়ের রাষ্ট্রপতি দূতাবাসের প্রয়োজনীয়তার কথা আবারও তুলে ধরেন। টরিবিওংয়ের মতে, দুই দেশের মধ্যকার সামুদ্রিক সীমানাবিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ আলোচনার জন্য এ দূতাবাস অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়াও দূতাবাস প্রায় ৫০০০ ফিলিপিনো কর্মীর কর্মস্থল, যা পালাউয়ের পররাষ্ট্র কর্মীবাহিনীর ৬০ শতাংশ এবং দেশের মোট জনসংখ্যার ২০ শতাংশ। মেলেওককে ফিলিপাইন দূতাবাসের বন্ধ হয়ে যাবার ঘটনা মাইক্রোনেশিয়া এবং মার্শাল দ্বীপপুঞ্জের মত প্রতিবেশী রাষ্ট্রসমূহের জন্যেও ক্ষতিকর হবে।[৮]

ফিলিপাইনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায় যে তারা যেসকল দূতাবাস ও কনস্যুলেট অফিস বন্ধ করে দেবার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে, তা তারা এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে জানায়নি। ফলে কোনো নির্দিষ্ট দূতাবাস বা কনস্যুলেট অফিস বন্ধ করে দেবার খবর আনুষ্ঠানিক নয়।[৮] করোরে অবস্থিত ফিলিপাইনের দূতাবাসটি ৩১ জুলাই, ২০১২ সালে বন্ধ হয়ে যায়। এশীয় ও প্যাসিফিক অঞ্চলের পররাষ্ট্রবিষয়ক দপ্তর থেকে জানানো হয় যে ফিলিপাইন দূতাবাস বন্ধ হয়ে যাবার ফলে তারা ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ১ মার্চ পর্যন্ত সেখানে কূটনৈতিক মিশন পরিচালনা করবে।[৯]

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Palau"। Histclo.com। সংগ্রহের তারিখ ২ জুন ২০১২ 
  2. "18th Anniversary of Palau-Philippines Diplomatic Relations"। Palau Embassy in the Philippines। ২২ জুলাই ২০১৫। ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১৫ 
  3. "Palau president appeals to President Noynoy Aquino to keep embassy"। Sun.Star। সংগ্রহের তারিখ ২ জুন ২০১২ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. "Santa Cruz group helps Palau save reef"SF Gate। Hearst Communications। Bloomberg। ২ আগস্ট ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  5. "RP-Palau fisheries deal sought"Over Seas - The Online Magazine for Sustainable Seas2 (February, 1999)। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১৫ 
  6. Palau Country Review। CountryWatch Incorporated। ২০১৩। পৃষ্ঠা 48। 
  7. Go, Marianne (২৫ অক্টোবর ২০১০)। "Palau studying new fishing scheme for RP vessels"Nagoya: The Philippine Star। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  8. Santos, Tina (২৫ জানুয়ারি ২০১২)। "10 PH embassies, consulates to be closed; Palau appeals"। Philippine Daily Inquirer। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুন ২০১২ 
  9. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২১, ২০১৩ 

টেমপ্লেট:পালাউয়ের বৈদেশিক সম্পর্ক টেমপ্লেট:ফিলিপাইনের বৈদেশিক সম্পর্ক