পাগল শংকর জিউ মন্দির, ফান্দাউক

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ফান্দাউক গ্রামের অতি প্রাচীন আমলের স্থাপত্য মন্দির।

পাগল শংকর জিউ মন্দির বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা, নাসিরনগর উপজেলা, ফান্দাউক অবস্থিত[১]। এই মন্দিরের স্থাপত্যশৈলী এবং সৌন্দর্য পূর্ণনকশা প্রাচীন স্থাপত্য নির্দশন[২]। মন্দিরটি প্রায় ২০০ বছরের পুরনো। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের পূজা-অর্চনা ও দেশি- বিদেশি ভক্তদের পদচারণয় মুখরিত[৩][৪]

পাগল শংকর জিউ মন্দির
ধর্ম
অন্তর্ভুক্তিহিন্দুধর্ম
জেলাব্রাহ্মণবাড়িয়া
উৎসবরথযাত্রা, কৃষ্ণ জন্মাষ্টমী, রাধা জন্মাষ্টমী, দোলপূর্ণিমা, গৌর পূর্ণিমা
অবস্থান
অবস্থানফান্দাউক
দেশবাংলাদেশ বাংলাদেশ
স্থাপত্য
স্থাপত্য শৈলীপ্রাচীন আমলে স্থাপত্য
প্রতিষ্ঠার তারিখ২০০ বছর

ইতিহাসসম্পাদনা

প্রায় দুইশত বছর আগে এই স্থানে গভীর নির্জন জঙ্গলে একজন সাধু ভগবানের সাধনা তপস্যা করতেন। এবং তার ছিল অলৌক ক্ষমতা। পরবর্তীতে লোক চোখে প্রকাশ হলে মন্দির স্থাপন করা হয়। সেই থেকেই এই স্থানের নাম হয় পাগল শংকর জিউ মন্দির।

মন্দিরসম্পাদনা

এই মন্দিরে রাধা কৃষ্ণ এবং জগন্নাথ ও গৌরাঙ্গ মহাপ্রভু প্রধান দেবতা। মন্দিরের প্রতিটি জায়গায় প্রাচীন আমলের স্থাপত্য নকশা রয়েছে। এই মন্দিরের একটি মঠ মন্দির ও চারটি মন্দির রয়েছে। প্রধান মন্দিরে ভগবানের পূজা অর্চনা করা হয় এবং পাশের ভবন গুলো সাধু নিবাস রয়েছে ও অপর পাশে রয়েছে চৌচালা নাট মন্দিরের মহানাম সংকীর্তন হয় প্রতি বছর।

উৎসবসম্পাদনা

মন্দিরের প্রধান উৎসব মধ্যে হলোঃ-

  • শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী, রাধা রাণীর জন্মাষ্টমী, গৌর পূর্ণিমা।
  • জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা, স্নানযাত্রা মহোৎসব।
  • দোল যাত্রা, রাসপূর্ণিমা, ভগবত আলোচনা, ইত্যাদি।

স্থাপত্যশৈল্য নকশাসম্পাদনা

মন্দিরের বিভিন্ন জায়গায় নকশা ও কারুশিল্পে পরিপূর্ণ ও প্রাচীন আমলের স্থাপত্য নকশা রয়েছে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "নাসিরনগরে রথযাত্রায় হিন্দু-মুসলমানদের মিলনমেলা"Barta24 (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৫-২৭ 
  2. "নাসিরনগরে শ্রী শ্রী জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা অনুষ্ঠিত"The voice of Brahmanbaria || Local news means the world is (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-০৭-১৫। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৫-২৭ 
  3. ProtidinerChitroBD.com। "নাসিরনগরে প্রণব মুখার্জি এবং সি আর দত্তের প্রার্থনা ও স্মরণসভা"Protidiner Chitro BD (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৫-২৭ 
  4. "Pagal Shankar Jiu Temple, Fandauk"Wikipedia (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২২-০৬-১৩।