প্রধান মেনু খুলুন

হিন্দুধর্মে ধর্মগ্রন্থ রামায়ণে বর্ণিত নিকষা (Devanagari: निकषा) ছিলেন একজন রাক্ষসী৷ তিনি রাবণের মা ছিলেন৷[১] গাত্রবর্ণ কষ্টিপাথরের মত হওয়ায় তিনি নিকষা নামে অধিক পরিচিত হলেও তার আসল নাম ছিলো কৈকসী বা কেশিনী

নিকষা
দাম্পত্য সঙ্গীঋষি বিশ্রবা
সন্তানরাবণ, কুম্ভকর্ণ বিভীষণ (পুত্রত্রয়) এবং শূর্পণখা (কন্যা)
পিতা-মাতা

কিংবদন্তীসম্পাদনা

নিকষা ছিলেন রাক্ষসরাজ সুমালী এবং গন্ধর্ব রাজকুমারী কেতুমতির কন্যা৷ ঋষি বিশ্রবাকে পতিহিসাবে পাওয়ার জন্য তিনি তার পিতা ও মাতার সহিত পরামর্শ করে৷ তিনি ভেবেছিলেন বিশ্রবার অপর পুত্রের মতো তার পুত্রসন্তানরাও ধনবান ও চরিত্রবান হবে৷ কিন্তু তার এই পরিকল্পনা সফল হয় না৷ বিশ্রবা নিকষাকে বিবাহ করার জন্য তার পুর্বপত্নী দেববর্ণিনী ও তার পুত্র কুবেরকে ত্যাগ করেন৷ ক্রমে উভয়ের রাবণ, কুম্ভকর্ণবিভীষণ নামে তিন পুত্র ও শূর্পণখা নামে এক কন্যাসন্তান হয়৷

রাবণ সীতাকে হরণ করে লঙ্কায় বন্দিনী করে রাখলে নিকষা তাকে আবার তার পতি রামের কাছে ফেরত দিয়ে আসতে বললেও রাবণ তা অমান্য করে৷ বিভীষণ সীতাকে ফেরত দিয়ে আসার কথা বললে রাবণ ক্ষিপ্ত হয় ও তাকে লঙ্কা থেকে বিতাড়িত করেন৷ তার মাতা নিকষার পরামর্শেই বিভীষণ রামের পক্ষে যুদ্ধে যোগদান করে৷

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Ramayana by Valmiki