প্রধান মেনু খুলুন

নিউরোসিস বা সাইকোনিউরোসিস বা পরিজ্ঞানসম্পন্ন মানসিক রোগ হলো কিছু মানসিক রোগের সমন্বিত নাম। এই রোগে আক্রান্তদের নিউরোটিক বলা হয়ে থাকে। এসব রোগে গুরুতর বাতুলতার উপসর্গ থাকে না, ব্যক্তিত্ব তুলনামূলকভাবে অক্ষত থাকে এবং রোগী বাস্তবতাবোধ থেকে বিচ্ছিন্ন হয় না। প্রকৃতপক্ষে নিউরোসিসকে মানসিক চাপের মুখে রোগীর প্রতিক্রিয়ার অস্বাভাবিক প্রকাশ হিসেবে গণ্য করা যায়।[২]
'আমেরিকান ডায়াগনস্টিক এন্ড স্ট্যাটিসটিকাল ম্যানুয়াল অফ মেন্টাল ডিসর্ডার' (Diagnostic and Statistical Manual of Mental Disorders) বা ডিএসএম সম্প্রতি তাদের নিউরোসিস ক্যাটাগরিটি বাদ দিয়েছে। কারণ তারা অজানা রোগনির্ণয় পদ্ধতির চাইতে রোগনির্ণয় করা যায় এমন বর্ণনাকে প্রাধান্য দিয়েছে।[৩] আবার আমেরিকান হেরিটেজ মেডিকেল অভিধান অনুসারে এই শব্দটি আর "মনস্তাত্ত্বিক রোগনির্ণয়ে আর ব্যবহৃত হয় না"।[৪] নিউরোসিসের পরিবর্তে বরং দুশ্চিন্তাগ্রস্ত ব্যধি (anxiety disorder) নামেই এই রোগগুলো এখন চিহ্নিত হচ্ছে।[৫] তবে ডিএসএম এর এই সিদ্ধান্ত বিতর্কের সৃষ্টি করে।[৬]

নিউরোসিস
Girl suffering from anxiety.jpg
দুশ্চিন্তাগ্রস্ত একজন নিউরোসিস রোগী
শ্রেণীবিভাগ এবং বহিঃস্থ সম্পদ
বিশিষ্টতামনোরোগবিদ্যা, মনোবিজ্ঞান
আইসিডি-১০F40-F48[১]
ওএমআইএম১৬৭৮৭০
মেএসএইচF03.650 (ইংরেজি)

নিউরোসিস পরিবারভুক্ত মানসিক রোগসম্পাদনা

নিউরোসিস একটি রোগ নয়; বরং কয়েকটি মানসিক রোগের সমন্বিত নাম।[২] বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রোগসংক্রান্ত আন্তর্জাতিক শ্রেণিবিন্যাস পদ্ধতি অনুসারে নিউরোসিস পরিবারভুক্ত মানসিক রোগগুলোর কয়েকটি হল[১]:

ইতিহাসসম্পাদনা

 
নিউরোসিস শব্দটির প্রচলন করেন উইলিয়াম কুলেন

"নিউরোসিস" শব্দটি প্রথম চালু করেন উইলিয়াম কুলেন (William Cullen) নামক এক স্কটিশ ডাক্তার। বিভিন্ন স্নায়ুতন্ত্রের সমস্যা যা কিনা শারীরবিদ্যা দিয়ে ব্যাখ্যা করা যায় না তাদের বোঝাতে তিনি এই শব্দটির প্রচলন করেন। শব্দটি তৈরি হয় গ্রিক শব্দ "νεῦρον" (নিউরন) এবং -osis বিভক্তি দিয়ে। ফলে শব্দটির আক্ষরিক অর্থ দাঁড়ায়: রোগাক্রান্ত নিউরন। তবে তার প্রায় একশ বছর পর শব্দটির সবচেয়ে প্রচলিত ব্যাখ্যা করেন মনোবিজ্ঞানী কার্ল জং এবং সিগমুন্ড ফ্রয়েড। তখন থেকে দর্শন এবং মনোবিজ্ঞানে শব্দটি প্রচলিত অর্থেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে।[৭][৮]

উপসর্গসম্পাদনা

নিউরোসিসের উপসর্গ অনেকগুলো। তবে দুশ্চিন্তা সব ধরনের নিউরোসিসের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ লক্ষণ। নিউরোসিসের সাধারণ কিছু উপসর্গের মধ্যে রয়েছে[৯][১০]:

  • দুশ্চিন্তা,
  • হতাশা,
  • মনোযোগের অভাব,
  • সিদ্ধান্ত গ্রহণে অক্ষমতা,
  • অযৌক্তিক ভয়,
  • ঘোর,
  • রোষপ্রবণতা,
  • ঘুমের সমস্যা,
  • অকারণ চিন্তা, ইত্যাদি।

সাইকোসিস ও নিউরোসিসের পার্থক্যসম্পাদনা

অপর একটি মনোরোগ সাইকোসিসের সাথে নিউরোসিসের পার্থক্য হল নিউরোসিসে দৃষ্টিভ্রম (halucination) এবং ভ্রম (delusion): এই দুইটি উপসর্গ থাকে না। নিউরোসিস মূলত মৌল প্রবৃত্তির তাড়না (ইংরেজি: libido) ও তার নিয়ন্ত্রণকারী শক্তির (ইংরেজি: ego) অবচেতন দ্বন্দ্ব থেকে উদ্ভূত। আসলে নিউরোসিসে এই নিয়ন্ত্রণকারী শক্তিই প্রাধান্য বিস্তার করে। আর সিগমুন্ড ফ্রয়েড মনে করতেন সাইকোসিস রোগীদের মনোজগত বাস্তবতা থেকে ভিন্ন।[১১] বাস্তবে অবশ্য সাইকোসিস এবং নিউরোসিসের মাত্রাগত পার্থক্য কম। সাইকোসিসের রোগীরা দৃষ্টিভ্রম (halucination) এবং ভ্রম (delusion) এই দুইটি সমস্যায় ভুগে থাকে। এজন্য আইনের দৃষ্টিতে এদের কর্মকাণ্ডের জন্য এরা দায়ী নয় বলে মনে করা হয়।[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. রোগের আন্তর্জাতিক শ্রেণীবিভাগ: দশম সংস্করণ
  2. সাইফুদ্দিন একরাম। "পরিজ্ঞানসম্পন্ন মনোরোগ; নিউরোসিস"। এ. কে. এম. নুরুল ইসলাম, এ. এম. হারুন অর রশীদ, আমিনুল ইসলাম, অজয় রায়, সৈয়দ মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, আবু জাফর মাহমুদ। বাংলা একাডেমী বিজ্ঞান বিশ্বকোষ: তৃতীয় খণ্ড (প্রিন্ট)। ঢাকা: বাংলা একাডেমী। পৃষ্ঠা ৬৬০। আইএসবিএন 984-07-4196 |আইএসবিএন= এর মান পরীক্ষা করুন: length (সাহায্য)  অজানা প্যারামিটার |origmonth= উপেক্ষা করা হয়েছে (সাহায্য)
  3. Horwitz and Wakefield (২০০৭)। The Loss of Sadness। Oxford। আইএসবিএন 978-0-19-531304-8 
  4. The American Heritage Medical Dictionary। Houghton Mifflin। ২০০৭। আইএসবিএন 978-0-618-82435-9 
  5. T.L. Brink. (2008) Psychology: A Student Friendly Approach. "Unit 11: Clinical Psychology." pp. 246 [১]
  6. Wilson, Mitchell, (1993), "DSM-III and the Transformation of American Psychiatry: A History". The American Journal of Psychiatry, 150,3, pp. 399-410.
  7. "উইলিয়াম কুলেনের জীবনী"। ৪ ফেব্রুয়ারি ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ জানুয়ারি ২০১৩ 
  8. Russon, John (২০০৩)। Human Experience: Philosophy, Neurosis, and the Elements of Everyday Life। State University of New York Press। আইএসবিএন 0-7914-5754-0  See also Kirsten Jacobson, (2006), "The Interpersonal Expression of Human Spatiality: A Phenomenological Interpretation of Anorexia Nervosa," Chiasmi International 8, pp. 157-74.
  9. সাইকোনিউরোসিসের উপসর্গ
  10. নিউরোসিসের জৈব-সামাজিক তত্ত্ব
  11. "সংক্ষিপ্তে সিগমুন্ড ফ্রয়েড"। ২১ অক্টোবর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ জানুয়ারি ২০১৩ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

আরো দেখুনসম্পাদনা