নারায়ণ মেঘাজি লোখান্ডে

নারায়ণ মেঘাজি লোখান্ডে (১৮৪৮-১৮৯৭) ছিলেন ভারতীয় শ্রমিক নেতা এবং ভারতে ট্রেড ইউনিয়ন আন্দোলনের জনক।[১] শুধুমাত্র ঊনিশ শতকের পোষাক শিল্পের বা বস্ত্র কারখানায় শ্রমিকদের কাজের অবস্থার উন্নতির জন্যই নয়, বরং জাতি বর্ণ ও সাম্প্রদায়িক বিষয়ের সমাধানে সাহসী উদ্যোগের জন্যও তিনি বিশেষভাবে স্মরণীয়।[২] হিন্দু মুসলমানদের দাঙ্গার সময় সম্প্রীতি রক্ষায় যে  অভাবনীয় কাজ করেছিলেন, সে জন্য ১৮৯৫ খ্রিস্টাব্দে ব্রিটিশ সরকার তাকে রায়বাহাদুর উপাধি প্রদান করে এবং গভীর শ্রদ্ধায় "জাস্টিস অফ পিস" হিসাবে আখ্যায়িত করে। স্বাধীনতার পর ভারত সরকারের ডাক বিভাগ ২০০৫  খ্রিস্টাব্দে তার ছবি সহ একটি ডাকটিকিট জারি করে।

নারায়ণ মেঘাজি লোখান্ডে
Narayan Meghaji Lokhande 2005 stamp of India.jpg
লোখান্ডের নামে ২০০৫ খ্রিস্টাব্দে ভারতীয় ডাক বিভাগ কর্তৃক জারি করা ডাকটিকিট
জন্ম১৮৪৮
মৃত্যু৯ ফেব্রুয়ারি ১৮৯৭
আন্দোলনট্রেড ইউনিয়ন আন্দোলন

জন্ম ও প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

নারায়ণ মেঘাজি লোখান্ডে মহারাষ্ট্রের পুনে জেলার কানহেরসারের এক দরিদ্র ফুলমালি পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি কেবলমাত্র উচ্চ বিদ্যালয়ের স্তর পর্যন্তই পড়াশোনা করছিলেন। [৩]

তিনি  গোপিকাবাইকে বিবাহ করেন।  তাদের একমাত্র পুত্র সন্তান ছিল গোপীনাথ।

কর্মজীবন ও শ্রমিক আন্দোলনসম্পাদনা

লোখান্ডে প্রথমে রেলওয়ে বিভাগে এবং পরে পোস্ট অফিসে কিছুকাল কেরানির  কাজ করেন। তারপর  মুম্বাইয়ের মান্ডভি এলাকায় টেক্সটাইল মিলের অফিসে হেড ক্লার্কের চাকরি পান। তিনি দেখেন সূতাকল বা বস্ত্র কারখানার সকল শ্রমিককে দিনে বিরতি ছাড়া তের-চোদ্দ ঘন্টা নিদারুণ করুণ অবস্থায় সপ্তাহের সাত দিনই কাজ করতে হত। এসবের কারণে তিনি চাকরি ছেড়ে শ্রমিক আন্দোলনে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন এবং ১৮৮৪ খ্রিস্টাব্দের ২৩ সেপ্টেম্বর প্রতিষ্ঠিত বোম্বে মিল হ্যান্ডস অ্যাসোসিয়েশনের মাধ্যমে শ্রমিক আন্দোলন সংগঠিত করেন। ১৮৮৪ খ্রিস্টাব্দের ২৩ থেকে ২৬ শে সেপ্টেম্বর বোম্বের বিভিন্ন সূতাকলের প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার শ্রমিকদের উপস্থিতি নিশ্চিত করে অসাধারণ সম্মেলন সংগঠিত করেন। এই সম্মেলনের মধ্য দিয়ে শ্রমিকেরা দাবি জানায় যে , দুপুরের টিফিন এবং সকাল সাড়ে নটা থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত কাজের সময় নির্দিষ্ট করতে হবে। তবে এখানে উল্লেখযোগ্য এই যে, বাংলায় তথা ভারতে  শ্রমিকদের মধ্যে প্রথম  সচেতনতা তৈরির কাজ করেছিলেন শশীপদ বন্দ্যোপাধ্যায় (১৮৪০-১৯২৪)।  ১৮৭০ খ্রিস্টাব্দে তিনি কলকাতার  চটকল শ্রমিকদের নিয়ে' শ্রমজীবী সমিতি' প্রতিষ্ঠা করেন। তবে লোখান্ডের নেতৃত্বে বোম্বাইয়ের শ্রমিক সমাবেশটি সমগ্র বিশ্বের শ্রমিক আন্দোলনের ইতিহাস তথা ভারতবর্ষের শ্রমিক আন্দোলনের ইতিহাসে এক গুরুত্বপূর্ণ স্থান নিয়েছে।

ব্রিটিশ শাসনামলে লোখান্ডের নেতৃত্বেই বোম্বাইয়ের বস্ত্র কারখানার শ্রমিকেরা যে যে অধিকার অর্জন করেন সে গুলি হল [৪]

  • রবিবার মিল শ্রমিকদের সাপ্তাহিক ছুটি নির্দিষ্ট করতে হবে।
  • বিকালে  শ্রমিকদের আধ ঘন্টা কাজে অবকাশ দিতে হবে।
  • মিলের কাজ শুরু হবে  সকাল সাড়ে ছয়টায় এবং সূর্যাস্তের পর বন্ধ হবে।
  • শ্রমিকদের প্রতি মাসের বেতন বা মজুরি ১৫ তারিখের মধ্যে দিতে হবে।

প্রসঙ্গত, লোখান্ডে সূতাকল  শ্রমিকদের জন্য সাপ্তাহিক ছুটির জন্য যে লড়াই করে রবিবার দিনটি নির্দিষ্ট করেছিলেন, সেটিই ১৮৯০ খ্রিস্টাব্দের  ১০ জুন হতে সমগ্র ভারতে রবিবার সাপ্তাহিক ছুটি ঘোষণা করা হয়েছিল এবং তা আজও অব্যাহত রয়েছে।

স্বভাবতই, ঊনিশ শতকে লোখান্ডে ভারতে ট্রেড ইউনিয়ন আন্দোলনের জনক হিসাবে পরিগণিত হন। মুম্বাইয়ে শ্রমিকদের সংগঠন  "মুম্বাই কামগার সংঘ" প্রতিষ্ঠা করেন তিনি।

সামাজিক অবদানসম্পাদনা

নারায়ণ মেঘাজি লোখান্ডে ছিলেন বিশিষ্ট সমাজকর্মী ও "সত্যশোধক সমাজ"-এর  প্রতিষ্ঠাতা মহাত্মা জ্যোতিরাও গোবিন্দরাও ফুলের অন্যতম  সহকর্মী। 'সত্যশোধক সমাজ'-এর মুখপত্র হিসাবে কাজ করত পুনে হতে প্রকাশিত দীনবন্ধু কৃষ্ণরাও পান্ডুরং ভালেকার (১৮৫০-১৯১০) দ্বারা প্রতিষ্ঠিত মারাঠি ভাষার সাপ্তাহিক দীনবন্ধু। এটি মূলত কৃষক ও শ্রমিকদের অভিযোগ তুলে ধরত প্রতি সপ্তাহে এবং নারায়ণ মেঘাজি লোখান্ডে নিয়মিতই লিখতেন পত্রিকাটিতে। পরে আর্থিক কারণে কৃষ্ণরাও পান্ডুরং ভালেকার অসমর্থ হলে, ১৮৮০ খ্রিস্টাব্দ হতে নারায়ণ মেঘাজি লোখান্ডে সম্পাদনার ভার নেন। পরে লোখান্ডে "সত্যশোধক সমাজ" এর মুম্বাই শাখার এর সভাপতি হন এবং জাতি, ধর্ম ও বর্ণ নির্বিশেষে সমাজের সমস্ত মানুষের সেবায় তিনি নিজেকে সম্পূর্ণভাবে নিবেদিত করেন। [৫]

সম্মাননাসম্পাদনা

ভারতে হিন্দু মুসলমানদের দাঙ্গার সময় সম্প্রীতি রক্ষায় তিনি যথেষ্ট কাজ করেছিলেন, সে জন্য ১৮৯৫ খ্রিস্টাব্দে ব্রিটিশ সরকার তাকে রায়বাহাদুর উপাধিতে ভূষিত করে এবং গভীর শ্রদ্ধায় "জাস্টিস অফ পিস" নামেও আখ্যায়িত করে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Pandit, Nalini (১৯৯৭)। "Narayan Meghaji Lokhande: The Father of Trade Union Movement in India"Economic and Political Weekly32 (7): 327–329। আইএসএসএন 0012-9976জেস্টোর 4405089 
  2. Pandit, Nalini (১৯৯৭)। "Narayan Meghaji Lokhande: The Father of Trade Union Movement in India"। Economic and Political Weekly32 (7): 327–329। জেস্টোর 4405089 
  3. "लोखंडे, नारायण मेघाजी (মারাঠি ভাষা)"। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৬-১০ 
  4. Sarkar, Aditya (২০১৮)। Trouble at the Mill: Factory Law and the Emergence of the Labour Question in Late Nineteenth-Century Bombay। New Delhi: Oxford University Press। আইএসবিএন 978-0199093298 
  5. Omvedt, Gail (২০১১)। Cultural Revolt in a Colonial Society: The Non-Brahman Movement in Western India। New Delhi: Manohar। পৃষ্ঠা 292–293। আইএসবিএন 978-81-7304-927-9